রাজধানীতে চক্রাকার বাস সার্ভিস

মিনিবাসের চেয়ে বড় বাসই বেশি উপযোগী

  সম্পাদকীয় ২৯ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সম্পাদকীয়

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সংস্থার (বিআরটিসি) তত্ত্বাবধানে রাজধানীর দুটি রুটে চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু হওয়ায় এ দুই পথে চলাচলকারী যাত্রীদের পরিবহন সংকট কিছুটা হলেও লাঘব হবে।

রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা ফেরানোর উদ্যোগ হিসেবে বুধবার ধানমণ্ডি-নিউমার্কেট-আজিমপুর রুটে প্রাথমিকভাবে ১০টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস এবং বিমানবন্দর-রামপুরা-গুলিস্তান রুটে চারটি দ্বিতল বাস চালু করা হয়েছে।

বলা হচ্ছে, পর্যায়ক্রমে বাসের সংখ্যা বাড়ানো হবে। সরকারের এ উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। আমরা মনে করি, গোটা রাজধানীকেই এমন চক্রাকার বড় বাস সার্ভিসের আওতায় আনা উচিত। এর মাধ্যমে রাজধানীর পরিবহন সংকট এবং পরিবহন খাতে বিশৃঙ্খলা উভয়ই দূর করা সম্ভব হতে পারে।

একসময় রাজধানীর গণপরিবহন ব্যবস্থায় বিআরটিসির বড় বাসের সংখ্যাই ছিল বেশি। এর পাশাপাশি কিছু বেসরকারি বড় বাসও চলাচল করত। এসব বাসের যাত্রী বহনের সক্ষমতা বেশি।

এখন সেই জায়গাটি দখল করে নিয়েছে মিনিবাস, যা রাস্তায় জায়গা দখল করে বড় বাসের প্রায় সমান; কিন্তু যাত্রী বহন করতে পারে না বেশি। অভিযোগ আছে, কী এক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে নাকি পরিবহন শ্রমিক-মালিকরা মিলে রাস্তা থেকে বড় বাস উঠিয়ে দিয়েছেন! এসব মিনিবাস সিটিং সার্ভিসের নামে যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া আদায় করে নির্ধারিত ভাড়ার কয়েকগুণ বেশি।

ট্রাফিক শৃঙ্খলাও মেনে চলে না তারা। ফলে দুর্ঘটনার বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এই মিনিবাসগুলো। এ বাস্তবতায় রাজধানীর গণপরিবহন ব্যবস্থায় মিনিবাসগুলো পর্যায়ক্রমে উঠিয়ে দিয়ে বড় বাস বাড়ানো জরুরি হয়ে পড়েছে। এ ক্ষেত্রে মূল ভূমিকাটি পালন করতে পারে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিআরটিসি। এছাড়া বেসরকারিভাবেও বড় বাসকে উৎসাহিত করা যেতে পারে। বস্তুত বিশ্বের জনবহুল নগরগুলোতে মিনিবাস চলার নজির খুবই কম। আমাদের পাশের দেশের কলকাতা নগরীতেও এখন আর মিনিবাস চলে না। আমাদেরও এ পথে আসতে হবে দ্রুত। মিনিবাস উঠিয়ে বড় বাস নামানোর পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করতে হবে দৃঢ়তার সঙ্গে। এ ক্ষেত্রে কোনো ধরনের কায়েমী স্বার্থের কাছে নতি স্বীকার করলে চলবে না। এ ব্যাপারে আমরা সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে বলিষ্ঠ ভূমিকা প্রত্যাশা করছি।

রাজধানীর সড়কে নতুন বাস নামানো হয়েছে, সামনে আরও নামানো হবে। এসব বাস যেন দীর্ঘ সময় যাত্রীসেবা দিতে পারে সেদিকে কর্তৃপক্ষের নজর থাকতে হবে। বাসগুলোর যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ যেন করা হয়। অতীতে বিআরটিসির বাস নিয়ে নানা দুর্নীতির ঘটনা ঘটেছে। নতুন বাস নামানোর অল্প কিছুদিন পরই সেগুলো অকেজো হয়ে পড়ার নজির রয়েছে। এমনটি যেন আর না ঘটে সেজন্য সংশ্লিষ্টদের জবাবদিহির ব্যবস্থা থাকা জরুরি। রাজধানীতে পরিবহন সংকট এবং পরিবহন খাতে বিশৃঙ্খলার অবসান হোক।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×