ভূমি অফিসের জবাবদিহিতা শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

ভূমি অফিসের জবাবদিহিতা শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে

‘ভূমি সেবা সপ্তাহ এবং ভূমি উন্নয়ন কর মেলা ২০১৯’ উপলক্ষে সেবা ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভূমিমন্ত্রী ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সব দফতরে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, জনগণ ঠিকমতো সেবা পেলেই ভূমি মন্ত্রণালয়ে কর্মরত সবার জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে। মন্ত্রীর এ বক্তব্য নিঃসন্দেহে প্রণিধানযোগ্য।

সিস্টেম ডেভেলপমেন্টের অংশ হিসেবে ইতিমধ্যে সরকার দেশের ভূমি ব্যবস্থাপনা অটোমেশনের উদ্যোগ নিয়েছে। বলার অপেক্ষা রাখে না, এর ফলে অনাবাসী বাংলাদেশিসহ দেশের মানুষ উপকৃত হবেন। তবে ভূমি ব্যবস্থাপনা অটোমেশনের সুফল সবার কাছে পৌঁছে দিতে হলে ভূমি প্রশাসনসহ অন্যান্য দফতরকে অনিয়ম-দুর্নীতিমুক্ত করে সেখানে জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

এ কথা সর্বজনবিদিত, ভূমি সংক্রান্ত সরকারি অফিসগুলোয় নানারকম অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা বিরাজ করায় জমিজমা নিয়ে মানুষের মধ্যে ঝগড়া-ফ্যাসাদ, মারামারি, খুনখারাবি, মামলা-মোকদ্দমা লেগেই থাকে। ভূমি অফিসের কাজ হল, জমিজমা সংক্রান্ত দুর্ভোগ কমাতে মানুষকে সাহায্য করা। অপ্রিয় হলেও সত্য, ভূমি অফিসে কর্মরতসহ সংশ্লিষ্ট লোকজন প্রায় ক্ষেত্রেই সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ আরও বাড়িয়ে দেয়। জমিজমা নিয়ে সাধারণ মানুষের আবেগ ও অজ্ঞতাকে পুঁজি করে ভূমি অফিসের কর্মচারী ও কর্মকর্তারা ক্ষমতার অপব্যবহার করায় হাঙ্গামা ও অশান্তির শেষ থাকে না। এ অবস্থার অতিসত্বর পরিবর্তন হওয়া উচিত, যা ভূমিমন্ত্রী নিজেও উপলব্ধি করেছেন।

দুর্নীতি হচ্ছে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, অগ্রগতি ও দারিদ্র্য বিমোচনের প্রধান অন্তরায়। সুতরাং ভূমি অফিসের দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ এবং তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার ব্যাপারে কারও দ্বিমত থাকা উচিত নয়। অবশ্য দেশের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই কমবেশি দুর্নীতির বিস্তার ঘটেছে। উন্নয়নের স্বার্থে এমন আইন প্রণয়ন করা উচিত, যাতে দুর্নীতিবাজরা আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে বেরিয়ে যেতে না পারে। তবে শুধু আইন করে নয়, দেশ থেকে দুর্নীতি হটাতে হলে এর বিরুদ্ধে জনসচেতনতা গড়ে তোলাও জরুরি।

বাংলাদেশ একটি ঘনবসতিপূর্ণ দেশ। তাই জমিজমা নিয়ে বিরোধও এখানে বেশি। দেখা গেছে, দেশের বেশিরভাগ মামলা-মোকদ্দমাই জমিজমাকেন্দ্রিক। জনসংখ্যাধিক্যের কারণে ভবিষ্যতে জমির বিভাজন যত বেশি হবে, এ জটিলতা ততই বাড়বে। এ অবস্থায় দুর্নীতিমুক্ত ভূমি প্রশাসন গড়ে তুলে সেখানে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা না গেলে দেশের ভূমি ব্যবস্থাপনা যতই আধুনিক করা হোক না কেন, সাধারণ মানুষ তার কোনো সুফল পাবে না।