রোহিঙ্গাদের সহায়তার প্রতিশ্রুতি

দ্রুত প্রত্যাবাসনেও দাতা সংস্থাগুলোর ভূমিকা কাম্য

  সম্পাদকীয় ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দ্রুত প্রত্যাবাসনেও দাতা সংস্থাগুলোর ভূমিকা কাম্য

রোহিঙ্গা সংকট উত্তরণে ভূমিকা রাখা এবং বাংলাদেশের বড় প্রকল্পে আরও বেশি সহায়তা দেয়ার আশ্বাস দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফের বসন্তকালীন সম্মেলনে দেয়া হয় এ প্রতিশ্রুতি।

মঙ্গলবার যুগান্তরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, রোববার বাংলাদেশের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফের বৈঠকে রোহিঙ্গা সমস্যার বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছে।

আগামী বর্ষায় পাহাড় ধসের আশঙ্কার বিষয়টিও আলোচনায় গুরুত্ব পায়। এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গাদের কারণে বাংলাদেশে যেসব সমসা সৃষ্টি হয়েছে, বিশ্বব্যাংকের সিইওর সঙ্গে বৈঠকে সেসব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বিশ্বব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে তাদের আর্থিক সহায়তা আগের মতোই অব্যাহত থাকবে।

এ বিষয়ে আমাদের বক্তব্য হল, জরুরি মুহূর্তে সম্পূর্ণ মানবিক কারণে অন্তত ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে বাংলাদেশ। মিয়ানমার দ্রুত রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেবে, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে গিয়ে সম্পূর্ণ মর্যাদা নিয়ে যাতে বসবাস করতে পারে, এটা নিশ্চিত করা জরুরি। তা না হলে ফিরে যাওয়া রোহিঙ্গারা পুনরায় বাংলাদেশে আসার চেষ্টা করবে।

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে মিয়ানমার বারবার প্রতিশ্রুতি দিলেও দেশটি তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষায় কোনো রকম আন্তরিকতা না দেখানোর বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। বারবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে মিয়ানমার তা রক্ষা না করায় এখন রোহিঙ্গারাও মিয়ানমারের কোনো প্রতিশ্রুতির প্রতি আর ভরসা রাখতে পারছে না।

বাংলাদেশে এমনিতেই ঘনবসতিপূর্ণ দেশ। আমাদের পক্ষে এই বিপুলসংখ্যক রোহিঙ্গাকে বেশিদিন আশ্রয় দেয়া সম্ভব নয়। রোহিঙ্গারা বেশিদিন অবস্থান করলে কক্সবাজার, টেকনাফসহ ওই অঞ্চলের পরিবেশ ও প্রতিবেশ এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ওপর প্রভাব পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

তাই রোহিঙ্গাদের সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা তাদের দ্রুত প্রত্যাবাসনে কার্যকর ভূমিকা নেবে এবং মিয়ানমারের ওপর চাপ অব্যাহত রাখবে, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

দাতা সংস্থাগুলোর ঋণ পরিশোধে ইতিমধ্যে বাংলাদেশ সুনাম অর্জন করেছে। তাই বিশ্বব্যাংক আগামীতে বিভিন্ন খাতে সহায়তার পরিমাণ বাড়ানোর যে আশ্বাস দিয়েছে তা ইতিবাচক।

বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে বাংলাদেশে যেসব প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে, সেসব দ্রুততম সময়ের মধ্যে শেষ করার জন্য বৈঠকে তাগিদ দেয়া হয়েছে। নির্ধারিত সময়ে বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ শেষ করা বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ হলেও এক্ষেত্রে সফল হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×