ঢাকা ওয়াসার পান-অযোগ্য পানি

সংস্থাটির সক্ষমতা বাড়াতে হবে

  সম্পাদকীয় ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঢাকা ওয়াসার পান-অযোগ্য পানি

বেসরকারি সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ঢাকা ওয়াসার সরবরাহকৃত পানি নিয়ে এক ব্যতিক্রমী গবেষণা করেছে।

টিআইবির গবেষণা প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঢাকা ওয়াসা কর্তৃক রাজধানীতে সরবরাহকৃত পানি ৯১ শতাংশ গ্রাহকই ফুটিয়ে পান করেন।

পানি ফোটানোর এই প্রক্রিয়ায় বছরে রাজধানীর বাসাবাড়িতে বছরে পুড়ছে ৩৬ কোটি ৫৭ লাখ ৩৭ হাজার ঘনমিটার গ্যাস, অর্থাৎ এতে ব্যয় হচ্ছে ৩৩২ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।

২০১৮ সালের এপ্রিল থেকে এ বছরের মার্চ পর্যন্ত পরিচালিত টিআইবির গবেষণায় ঢাকা ওয়াসার ১০টি মডস জোনের আওতাধীন আবাসিক, বাণিজ্যিক, শিল্পপ্রতিষ্ঠান এবং বস্তি এলাকার পানি ও পয়ঃসংযোগ অন্তর্ভুক্ত ছিল। বলা বাহুল্য, গবেষণা থেকে প্রাপ্ত উপরের তথ্যগুলো উদ্বেগজনক।

রাজধানী ঢাকায় সরবরাহকৃত ওয়াসার পানির যখন এমন অবস্থা, তখন এই তথ্য উপস্থাপন করা অপ্রাসঙ্গিক হবে না যে, বিশ্বের অনেক দেশেই ট্যাপ থেকে সরাসরি পানি পান করা যায়।

এমনকি এশিয়ারই অনেক দেশে ট্যাপের পানি ফুটিয়ে বা অন্য কোনোভাবে বিশুদ্ধ করার প্রয়োজন পড়ে না। ঢাকার অনেক গ্রাহকই ওয়াসার দুর্গন্ধযুক্ত দূষিত পানির ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানালেও সেসব অভিযোগ আমলে নেয়া হয় না।

টিআইবির গবেষণা প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, ঢাকা ওয়াসার ৫১.৫ শতাংশ গ্রাহকই বলেছেন, তাদের কাছে সরবরাহকৃত পানি অপরিষ্কার; ৪১.৪ শতাংশ গ্রাহক বলেছেন, পানি দুর্গন্ধযুক্ত। সবচেয়ে বড় কথা, পান অনুপযোগী পানি সারা বছর ধরেই সরবরাহ করে থাকে ওয়াসা।

রাজধানীতে প্রতিদিন ১৪ লাখ ঘনমিটার পয়ঃবর্জ্য তৈরি হলেও ওয়াসার রয়েছে মাত্র দেড় লাখ ঘনমিটার সক্ষমতার একটি ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট। এ প্ল্যান্টে প্রতিদিন পরিশোধিত হয় ৫০ হাজার ঘনমিটার বর্জ্য। অর্থাৎ বাকি ৯৬ শতাংশ পয়ঃবর্জ্যই অপরিশোধিত অবস্থায় বিভিন্ন খাল হয়ে আশপাশের নদীতে গিয়ে পড়ে।

বস্তুত ঢাকা ওয়াসা একটি অকার্যকর প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। সংস্থাটি পরিচালনার জন্য একটি বোর্ড থাকলেও অভিযোগ রয়েছে, রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের কারণে সেই বোর্ড অকার্যকর হয়ে পড়েছে।

সংস্থাটি অকার্যকর হওয়ার কারণেই গ্রাহকরা অনিয়ম, হয়রানি ও দুর্নীতির শিকার হচ্ছেন। পানি সংযোগ এবং পয়ঃলাইনের প্রতিবন্ধকতা দূর করতেও গ্রাহককে গুনতে হয় মোটা অঙ্কের ঘুষের টাকা।

প্রকৃতপক্ষে, ওয়াসার ওপর সরকারের উচ্চ মহলের দৃষ্টি দেয়া অনিবার্য হয়ে পড়েছে। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার পানির চাহিদা পূরণে টেকসই ও পরিবেশবান্ধব পানির উৎপাদন ব্যবস্থা এবং উন্নত পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা ছাড়া ওয়াসা রাজধানীবাসীকে যে কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে পারবে না, তা নিশ্চিতভাবেই বলা যায়।

ঘটনাপ্রবাহ : ওয়াসার সুপেয় পানি

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×