দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি

সুপ্রিমকোর্টের প্রশংসনীয় উদ্যোগ

  সম্পাদকীয় ২৯ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি

মাত্র সাড়ে চার মাসে ৪৩ হাজার ৯৩টি মামলা নিষ্পত্তি করে দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে অনন্য নজির স্থাপন করেছেন সুপ্রিমকোর্ট। এ ধারা অব্যাহত থাকলে সুপ্রিমকোর্টে বিদ্যমান মামলার জট দ্রুত খোলা সম্ভব হবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

গতকাল যুগান্তরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, মামলার জট খুলতে কার্যকরী উদ্যোগ নিয়েছেন স্বয়ং প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। এ বিষয়ে তিনি সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতিদের নিয়ে ফুলকোর্ট সভা করেন। সেখানে বিচারপতিরা নতুন বিচারপতি নিয়োগসহ নানা পরামর্শ দেন।

‘ফৌজদারি বিবিধ (ক্রিমিনাল মিস কেস) মামলা’ নিষ্পত্তিতে হাইকোর্টের ১৬টি বেঞ্চকে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়। এভাবে স্বল্প সময়ে এত সংখ্যক মামলার নিষ্পত্তি সম্ভব হয়েছে।

বর্তমানে প্রায় ৯০ হাজার পুরনো মামলা নিষ্পত্তির কাজ চলছে। খুব পুরনো ফৌজদারি (বিবিধ) মামলাগুলোর শুনানির জন্য হাইকোর্টের বেঞ্চগুলো নির্ধারণ করে দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি। তার সিদ্ধান্ত অনুসারে সপ্তাহের প্রতি বৃহস্পতিবার পুরনো মামলাগুলো বেঞ্চগুলোর কার্যতালিকায় (কজলিস্ট) শুনানির জন্য রাখা হয়। এ উদ্যোগে সফলতা মিলছে।

মানুষ আদালতের দ্বারস্থ হয় ন্যায়বিচার পাওয়ার আশায়। মামলা নিষ্পত্তিতে যদি বিলম্ব হয়, তাহলে ন্যায়বিচার পাওয়ার বিষয়ে মানুষের আস্থা কমে যায়। বস্তুত দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া মানুষের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির ক্ষেত্রে একটি বড় অন্তরায়। বিচার প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতার অন্যতম কারণ হল বিচারপতির অপ্রতুলতা। তবে এটিই একমাত্র কারণ নয়।

বর্তমানে বিশ্বের অধিকাংশ দেশের আদালতে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু হয়েছে। এক্ষেত্রে আমরা অনেকটা পিছিয়ে আছি। দেশের আদালতগুলোয় এখনও সেকেলে পদ্ধতি বহাল রয়েছে।

পর্যাপ্তসংখ্যক বিচারক নিয়োগ এবং আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার মামলাজট খুলতে সহায়ক হবে সন্দেহ নেই। তবে কার্যকর ও ডায়নামিক সিদ্ধান্তের মাধ্যমেও যে দ্রুত মামলার নিষ্পত্তি সম্ভব তা দেখিয়ে দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

আমরা আশা করব, মামলার জট খুলতে বিচারক ও তাদের সহায়ক লোকবল নিয়োগসহ আরও যা কিছু প্রয়োজন, তা দ্রুত করা হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×