অবৈধ লাগেজ বাণিজ্য: বিমানের অনিয়ম রোধে কঠোর পদক্ষেপ নিন

প্রকাশ : ০৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

প্রতীকী ছবি

বিমানের একটি দুষ্টচক্র কারসাজি করে অবৈধ লাগেজ বাণিজ্যের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে যুগান্তরে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এর ফলে বিমান বড় অঙ্কের রাজস্ব হারালেও কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী লাভবান হচ্ছে, যা মোটেই কাম্য নয়।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে, সংস্থাটির উপর ‘দুর্নীতি’ নামক নাছোড়বান্দা প্রকৃতির যে ভূতটির আছর হয়েছে, অনেক সাধ্য-সাধনা করেও বিমানের কাঁধ থেকে তাকে নামানো যাচ্ছে না। বলার অপেক্ষা রাখে না, এর ফলেই সম্ভাবনাময় এ সংস্থাটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে উপনীত হয়েছে। আধুনিক কৌশল ও সুব্যবস্থাপনার মাধ্যমে যাত্রী ও পণ্য পরিবহন করে রাষ্ট্রীয় এ প্রতিষ্ঠানটির পক্ষে অর্থ ও সুনাম অর্জনের কাজটি দুরূহ না হলেও কেন তা সম্ভব হচ্ছে না- এ প্রশ্নের উত্তর খোঁজার সময় এসেছে বলে মনে করি আমরা।

জানা গেছে, অবৈধ লাগেজ বাণিজ্যের কারণে বাংলাদেশ বিমানের সব রুটের কার্গো ব্যবসায় ধস নেমেছে। সাধারণত প্রতিবছর ঈদ মৌসুমে প্রবাসী যাত্রীদের মধ্যে ‘অ্যাকসেস ব্যাগেজ’ আনার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়। উল্লেখ্য, একজন বিমানযাত্রী সর্বোচ্চ ৩০ কেজি ওজনের লাগেজ বহনের সুযোগ পেলেও ঈদ মৌসুমে তারা ৫০ থেকে ৬০ কেজির ব্যাগেজ নিয়ে দেশে ফিরছেন।

এ সুযোগে আন্তর্জাতিক স্টেশনের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মোটা অঙ্কের উৎকোচ নিয়ে যাত্রীদের অতিরিক্ত ব্যাগেজ বহনের সুবিধা দিয়ে সমপরিমাণ কার্গো পরিবহন কমিয়ে দিচ্ছেন। বলাই বাহুল্য, ‘অ্যাকসেস ব্যাগেজের’ কল্যাণে উপার্জিত অর্থ বিমানের কোষাগারে জমা না হয়ে দুর্নীতিবাজদের পকেটে যাচ্ছে। অবশ্য এ অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধে আন্তর্জাতিক স্টেশনগুলোর কার্গো পরিবহন ব্যবস্থা অটোমেশন করার কথা বলছে কর্তৃপক্ষ। দেখার বিষয়, এতে কতটুকু কাজ হয়।

উদ্বেগজনক হল, অনিয়ম-অব্যবস্থাপনা শুধু অবৈধ লাগেজ বাণিজ্যকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত হচ্ছে না; বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রায় প্রতিটি বিভাগেই চলছে ভয়াবহ অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনা। এসব অনিয়মের সঙ্গে খোদ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য ছাড়াও শক্তিশালী রাঘববোয়ালদের জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

ফলে বছরের পর বছর চলতে থাকা অনিয়ম ও দুর্নীতি রোধ করা যাচ্ছে না। কোনো দুর্নীতিবাজ বা অন্যায়কারীর অবস্থান যাই হোক না কেন; তার দ্বারা সমাজ কলুষিত হয়, রাষ্ট্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কাজেই দুর্নীতিবাজ ও অন্যায়কারীদের যথাযথ শাস্তি হওয়া উচিত। অবৈধ লাগেজ বাণিজ্য রোধের পাশাপাশি বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে বিরাজমান অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা ও অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড দমনে সরকার কঠোর পদক্ষেপ নেবে, এটাই প্রত্যাশা।