চলন্ত বাস থেকে ফেলে হত্যা: অপরাধীর শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত করুন

  সম্পাদকীয় ১১ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চালক রোকনউদ্দিন
বাসচালক রোকনউদ্দিন। ছবি: যুগান্তর

কোনো কোনো পরিবহন শ্রমিকের মূল্যবোধে এতটাই ধস নেমেছে যে, তারা কোনো যাত্রীর সঙ্গে ভাড়া কিংবা অন্য কোনো বিষয়ে বাকবিতণ্ডা হলে ওই যাত্রীকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিতেও দ্বিধা করে না।

সম্প্রতি এ ধরনের বেশকিছু ঘটনা ঘটেছে। এ ধরনের ঘটনায় কোনো কোনো ক্ষেত্রে ঘটনাস্থলেই যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। একজন যাত্রীকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে সড়কে ফেলে দিলে এর পরিণতি কী হতে পারে এবং এ অপরাধের শাস্তি কী, এটা সংশ্লিষ্ট পরিবহন শ্রমিকের অজানা থাকার কথা নয়। কিন্তু তারপরও বারবার এমন ঘটনা ঘটছে অপরাধীর দ্রুত শাস্তি না হওয়ার কারণে।

গত রোববার গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে এক পরিবহন শ্রমিক একজন অসুস্থ যাত্রীকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে বাসের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই সালাউদ্দিন নামের ওই যাত্রীর মৃত্যু হয়। নিহতের স্ত্রীকে উদ্ধৃত করে সোমবার যুগান্তরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পরিবহনের সহকারী সালাউদ্দিনকে শারীরিকভাবেও নির্যাতন করে।

এ থেকে ওই যাত্রীর অসহায়ত্ব স্পষ্ট হয়। একজন যাত্রীর আচরণে ঔদ্ধত্য প্রকাশ পেলেও একজন পরিবহন শ্রমিক কোনো যাত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করতে পারেন না। লক্ষ করা যায়, কোনো যাত্রীর আচরণে ঔদ্ধত্য প্রকাশ পেলে তাৎক্ষণিকভাবে অন্য যাত্রীরা এর প্রতিবাদ জানান।

সালাউদ্দিন নামের ওই যাত্রী পরিবহন সহকারীর সঙ্গে যেমন আচরণই করে থাকুন, এর প্রতিবাদে সে তাকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে সড়কে ফেলে দেয়ার মতো অপরাধ করতে পারে না। যেহেতু এ ধরনের নির্মম ঘটনা বারবার ঘটছে, তাই এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিত করা জরুরি হয়ে পড়েছে।

পরিবহন শ্রমিকদের আচরণের বিষয়ে ইদানীং যে ধরনের অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে, এতে তাদের ঔদ্ধত্যের বিষয়টি বারবার প্রকাশ পায়। এমন আচরণের নেপথ্যে কী কারণ রয়েছে, তা অনুসন্ধান করা দরকার। পরিবহন শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির বিষয়টি বারবার আলোচনায় এলেও তাদের নৈতিকতার মান বৃদ্ধির বিষয়ে তেমন আলোচনা হয় না।

পরিবহন সংশ্লিষ্ট সবার দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি তাদের নৈতিকতার মান বৃদ্ধির বিষয়েও গুরুত্ব বাড়াতে হবে। এ জন্য তাদের অব্যাহত প্রশিক্ষণের আওতায় আনতে হবে। পরিবহন সংশ্লিষ্ট সবাই উন্নত নৈতিকতার চর্চায় উদ্বুদ্ধ হলে স্বাভাবিকভাবেই তারা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×