জেগে উঠুক মানুষ

  ইসমাইল মাহমুদ ২৯ Jun ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রিফাত হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন। ফাইল ছবি

জন ডানের একটি কবিতার দুটি লাইন মনে পড়ছে- ‘মানুষ আসলে বিচ্ছিন্ন কোনো দ্বীপ নয়। মৃত্যুর সংবাদবাহী ঘণ্টাটা বাজে আমাদের সবার জন্যই।’

রাস্তায় প্রকাশ্যে ও দিনের আলোয় স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যার দৃশ্যের ভিডিওটি দেখার পর একটি কথাই বারবার মনে হচ্ছে- আমরা আজও মানুষরূপী জন্তুর এক বস্তিতে বসবাস করছি।

বুধবার সকালে বরগুনা সরকারি কলেজসংলগ্ন স্থানে শত শত মানুষের উপস্থিতিতে স্ত্রীর সামনে শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফকে নির্মমভাবে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার ভিডিও দেখে অন্তরাত্মা কেঁপে উঠেছে। বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিফাত মৃত্যুবরণ করেন।

সন্ত্রাসীদের এ আচরণ পশুত্বকেও হার মানিয়েছে। এ কোন্ বর্বর যুগে আমাদের বসবাস? বন্য পশুর চেয়েও অধম আমাদের আচার-আচরণ। প্রশ্ন জাগে- আসলেই কি আমরা মানুষ? নাকি মানুষরূপী অমানুষ?

সমাজের নিরীহ ও শান্তিপ্রিয় মানুষদের কেউ আগুনে পুড়ে মরে, কেউ সন্ত্রাসীদের অস্ত্রাঘাতে মরে, কেউ মানুষ নামের অমানুষদের কাছে জিম্মি বা নির্যাতনের শিকারে অতিষ্ঠ হয়ে আত্মহনন করে জীবন থেকে পালিয়ে বাঁচে।

অস্বাভাবিক ও অকাল মৃত্যুর তালিকায় প্রতিনিয়তই নতুন নতুন নাম যুক্ত হচ্ছে। যারা পশুর চেয়েও জঘন্য আচরণ করছে, তাদের সেই কাজ আমরা রাস্তায় দাঁড়িয়ে অবলোকন করছি আর স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছি এই ভেবে যে, যে লোকটি প্রাণ হারাচ্ছে সে আমার নিজের কোনো স্বজন নয়!

চোখের সামনে মানুষ নামের অমানুষগুলো প্রকাশ্যে কুপিয়ে মানুষ হত্যা করছে আর আমরা হত্যার দৃশ্যটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিচার দাবি করছি। আমাদের চোখের সামনে যে নির্মম ঘটনাটি ঘটছে তার প্রতিবাদ বা প্রতিরোধ না করে দূরে দাঁড়িয়ে দেখাটাই যেন আমাদের একমাত্র দায়িত্ব বা কাজ!

কিন্তু একটি কথা আমরা অবলীলায় ভুলে যাচ্ছি- আজ তার হলে কাল আমার। হয়তো একসময় মানুষ নামের এসব অমানুষের অস্ত্রাঘাতে এভাবেই বেঘোরে আমাকেও প্রাণ দিতে হতে পারে। আমাদের প্রিয় দেশটাকে খুবলে খেতে চাইছে মানুষ নামের কিছু অমানুষ। তাদের দাপটে আমজনতা এখন অস্থির।

বরগুনায় যে ঘটনা ঘটে গেল সেটা এক কথায় বর্বরতম। একজন যুবককে তার স্ত্রীর সামনে যখন কিছু মানুষরূপী অমানুষ প্রকাশ্যে কুপিয়ে চলছিল, তখন শত শত মানুষ ঘটনাস্থলের আশপাশে দাঁড়িয়ে সেই দৃশ্য দেখেছে।

স্বামীর প্রাণ বাঁচানোর জন্য স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি দুই যুবককে বারবার প্রতিরোধ করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু দুই অস্ত্রধারী যুবকের সামনে অসহায় মিন্নির পক্ষে স্বামীর প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

যারা এমন নির্মমভাবে প্রকাশ্যে কুপিয়ে রিফাতকে হত্যা করেছে, দেশের প্রচলিত আইনে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি। সেই সঙ্গে আর যেন কোনো রিফাতকে এভাবে প্রাণ হারাতে না হয় সেই প্রার্থনা করছি।

আবার জাগুক মানুষের বিবেক, আবার জেগে উঠুক মানুষ। ভবিষ্যৎ প্রজন্ম আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে। আবারও একদিন হয়তো আমাদের প্রিয় এ দেশটা সোনার মানুষে ভরে যাবে। প্রকৃত অর্থেই গড়ে উঠবে সোনার দেশ হিসেবে।

শাহ নেয়াজ রিফাত শরীফ, ভালো থেকো পরপারে।

ইসমাইল মাহমুদ : গণমাধ্যমকর্মী

[email protected]

ঘটনাপ্রবাহ : রিফাতকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা

আরও খবর
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত