দেউলিয়া আইনের সংশোধন: খেলাপি ঋণ সংস্কৃতি অবসানে সহায়ক হবে

  সম্পাদকীয় ০৫ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খেলাপি ঋণ সংস্কৃতি অবসানে সহায়ক হবে

ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ ঠেকাতে দেউলিয়া আইন সংশোধনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নিঃসন্দেহে এটি একটি ভালো খবর।

জানা গেছে, বর্তমানের দেউলিয়া আইনটি এমনভাবে সংশোধন করা হবে যাতে তা আরও কঠোর এবং একইসঙ্গে আইনের বিধানগুলোর প্রয়োগ আরও সহজ ও সুনির্দিষ্ট হতে পারে। সংশোধিত আইনে বিধান থাকবে, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে কেউ ঋণ নিয়ে দেউলিয়া হলে তিনি নিজ নামে সরকারি কোনো সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না।

দেউলিয়া আইনের প্রস্তাবিত খসড়া সংশোধনী প্রতিবেদন থেকে আরও তথ্য পাওয়া গেছে, দেউলিয়া ব্যক্তি কোনো নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না, এমনকি তিনি ভোটও দিতে পারবেন না। নতুন আইনটিতে আরও থাকছে, যিনি দেউলিয়া হবেন তিনি দেশ ত্যাগ করতে পারবেন না, উঠতে পারবেন না বিমানে। তিনি রাষ্ট্রীয় কোনো অনুষ্ঠানে দাওয়াত পাওয়ারও অযোগ্য ঘোষিত হবেন।

অবশ্য উপরে যেসব বিধিনিষেধের কথা বলা হয়েছে, দেউলিয়ার দায় থেকে মুক্ত হলে আদালতের সম্মতি নিয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি আবারও সুযোগ-সুবিধাগুলো ভোগ করতে পারবেন।

দেউলিয়া আইনের সংশোধনীতে আরও যা থাকবে তা হল, কোনো ব্যক্তি দু’ভাবে দেউলিয়া ঘোষিত হবেন।

প্রথমত, খেলাপির দায় থেকে মুক্ত হতে কোনো ঋণখেলাপি আইনের আওতায় মামলা করে নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করতে পারবেন। দ্বিতীয়ত, একইভাবে ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানও মামলা করে কোনো খেলাপিকে দেউলিয়া ঘোষণা করতে পারবে।

আইনটির আওতায় কেউ দেউলিয়া হলে আদালত থেকে বিষয়টি কেন্দ্রীয় ব্যাংকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়ে দেয়া হবে। অতঃপর দেউলিয়া ঘোষিত ব্যক্তি যাতে কোনো সুবিধা ভোগ করতে না পারে তা নিশ্চিত করা হবে।

উল্লেখ করা যেতে পারে, প্রচলিত দেউলিয়া আইনে উপরের বিধিবিধানের অনেক কিছুই থাকলেও সেগুলো সুনির্দিষ্ট ও সুস্পষ্ট আকারে নেই। ফলে এগুলোর প্রয়োগ করা যাচ্ছে না। আশার কথা, প্রস্তাবিত সংশোধনীর বিধিবিধানগুলো সুনির্দিষ্ট করা হচ্ছে বলে সেগুলোর প্রয়োগ সহজ হয়ে পড়বে।

তবে সবচেয়ে বড় কথা, কোনো আইনের সুষ্ঠু প্রয়োগ হবে কিনা তা নির্ভর করে মূলত রাজনৈতিক সদিচ্ছার ওপর। আমরা মনে করি, এখন সময় এসেছে, আইনের সঠিক প্রয়োগের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে রাজনৈতিক সদিচ্ছা দেখানোর।

প্রথমত, সরকারের পক্ষ থেকে ঋণখেলাপিদের এমন এক বার্তা দিতে হবে যে, ব্যাংক থেকে জনগণের আমানত নিয়ে ব্যবসার নামে তা আত্মসাৎ করা হলে আইনের কঠোর প্রয়োগ করা হবে। আমরা আশা করব, বর্তমানের দেউলিয়া আইনটি দ্রুতই সংশোধন করে তা কার্যকর করা হবে। বস্তুত, কঠোর আইন ও তার সঠিক প্রয়োগ ছাড়া ঋণখেলাপি সংস্কৃতি থেকে মুক্ত হওয়ার কোনো উপায় নেই।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×