মসলাসহ নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি: ব্যবসায়ীদের নীতিজ্ঞানহীন কর্মকাণ্ড সমর্থনযোগ্য নয়

  সম্পাদকীয় ১০ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মসলা

বাজারে মসলাসহ নিত্যপণ্যের মূল্য ঊর্ধ্বমুখী। গতকাল যুগান্তরে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাইকারি বাজারে গত এক মাসে এলাচ, লবঙ্গ, দারুচিনি, আদা, রসুনসহ মসলাজাতীয় পণ্যের দাম দ্বিগুণ বেড়েছে।

এর সঙ্গে তাল মিলিয়ে পণ্যের দাম বেড়েছে খুচরা বাজারেও। মসলাসহ নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের উদ্বিগ্ন হওয়াটাই স্বাভাবিক। অথচ এ ব্যাপারে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বাজার মনিটরিং সেল, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, সিটি কর্পোরেশন এবং র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত সম্পূর্ণ নির্বিকার।

ঈদ ঘিরে মসলাসহ বিভিন্ন পণ্যের দাম সহনীয় রাখার ক্ষেত্রে এসব প্রতিষ্ঠানের কার্যকর ভূমিকা কাম্য। কিন্তু এক্ষেত্রে তাদের কোনো তৎপরতা নেই বললেই চলে।

দেখা যায়, যে কোনো উৎসবে বাড়তি চাহিদার সুযোগ নিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা বাড়তি মুনাফার আশায় নিত্যপণ্যসহ বিভিন্ন পণ্যের মূল্য অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চালায়। মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা সামনে রেখে এবারও অসাধু ব্যবসায়ীদের মধ্যে এ প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে। বিষয়টি দুঃখজনক।

অসাধু ব্যবসায়ীরা পণ্যের দাম, বিশেষ করে মসলাজাতীয় বিভিন্ন পণ্যের দাম বৃদ্ধির অজুহাত হিসেবে আন্তর্জাতিক বাজারে এসব পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কথা বললেও জানা গেছে, চড়া দামে বিক্রি হওয়া মসলাজাতীয় পণ্যগুলো অনেক আগেই আমদানিকৃত।

কাজেই এটা স্পষ্ট, আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে এর কোনো সম্পর্ক নেই। অন্যদিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বাজার মনিটরিং সেলসহ সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বাজার নিয়ন্ত্রণে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের কথা বললেও কার্যক্ষেত্রে এর কোনো প্রতিফলন নেই।

আমরা দেখেছি, সময় ও সুযোগ বুঝে অতি মুনাফালোভী অসাধু একটি চক্র প্রায়ই বাজারকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চালিয়ে থাকে, এবারও যার ব্যতিক্রম হয়নি। যোগসাজশের মাধ্যমে বাজার ব্যবস্থার স্বাভাবিক গতি বাধাগ্রস্ত করা হলে একদিকে ভোক্তাস্বার্থের হানি ঘটে, অন্যদিকে দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর পড়ে এর বিরূপ প্রভাব।

বিগত কয়েক বছরে সরকারের আন্তরিকতা ও নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ সত্ত্বেও পণ্যের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধি কেন রোধ করা যায়নি, তা খতিয়ে দেখা উচিত। ব্যবসায় মুনাফা অর্জন স্বতঃসিদ্ধ ও স্বাভাবিক একটি প্রক্রিয়া। কিন্তু মুনাফা অর্জনের নামে নীতিজ্ঞানহীন কর্মকাণ্ড সমর্থনযোগ্য নয়।

ব্যবসায়ীরা সাধারণ মানুষের দুর্দশা লাঘবে আন্তরিক হলে বছরের আন্যান্য মাস তো বটেই, ঈদসহ বিভিন্ন উৎসবেও দ্রব্যমূল্যের বাজার স্থিতিশীল থাকবে বলে আমাদের বিশ্বাস। আসন্ন ঈদুল আজহায় মসলাসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে সরকারের পাশাপাশি ব্যবসায়ীরাও আন্তরিক হবেন, এটাই কাম্য।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×