খেলাপি ঋণের লাগাম টেনে ধরতেই হবে: অর্থমন্ত্রীর নির্দেশনা

  সম্পাদকীয় ০৮ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ফাইল ছবি

দেশের ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ একটি বড় সমস্যা হিসেবে বিরাজমান। খেলাপি ঋণ আদায়ের সমস্যাগুলো বহুল আলোচিত। খেলাপি ঋণের পরিমাণ যাতে আর না বাড়ে সেজন্য ব্যাংকগুলোকে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন অর্থমন্ত্রী।

সোমবার যুগান্তরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, সম্প্রতি রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সঙ্গে এক বৈঠকে নতুন করে ঋণ অবলোপন বন্ধসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা প্রদান করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বৈঠকে নেয়া সিদ্ধান্তগুলো অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে ব্যাংকগুলোর কাছে নির্দেশ আকারে পাঠানো হয়েছে। নির্দেশনায় বলা হয়েছে - প্রতিটি ব্যাংককে শ্রেণিকৃত ঋণের পরিমাণ কমাতে হবে। নতুন করে আর কোনো ঋণ যাতে শ্রেণিকৃত না হয় সে ব্যাপারে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

দেশে ব্যাংকিং খাতে যেসব সমস্যা বিরাজ করছে এর মধ্যে সবচেয়ে বড় সমস্যা হল উচ্চ খেলাপি ঋণ। মাত্রাতিরিক্ত খেলাপি ঋণ ব্যাংকগুলোর মূলধন ঘাটতির অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বস্তুত খেলাপি ঋণ শুধু ব্যাংকিং খাতে নয়, দেশের সামগ্রিক অর্থনীতিতেই ঝুঁকি তৈরি করছে। তাই ঋণ অবলোপন বন্ধসহ খেলাপি ঋণের লাগাম টেনে ধরা জরুরি।

বৈঠকের নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলোকে তাদের পরিচালনা মুনাফা বাড়াতে হবে। এর মাধ্যমে ব্যাংকের সম্পদের পরিমাণ বাড়বে। এছাড়া অটোমেশনের প্রতি গুরুত্বারোপসহ লেনদেনে আধুনিক পদ্ধতির ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে, যাতে সহজে ও দ্রুতগতিতে আর্থিক লেনদেন সম্পন্ন করা যায়। এছাড়া ব্যাংকের গ্রাহক ও কর্মকর্তাদের আরও দায়িত্বশীল আচরণের কথা বলা হয়েছে।

বস্তুত ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা না হলে খেলাপি ঋণের পরিমাণ বৃদ্ধির আশঙ্কা থেকেই যায়। অতীতে কোনো কোনো গ্রাহক উপযুক্ত জামানত বন্ধক না রেখেই ঋণ পেতে সক্ষম হয়েছেন। ভুয়া দলিল দাখিল করে নতুন আর কোনো গ্রাহক যাতে ঋণ গ্রহণের সুযোগ না পান এটা নিশ্চিত করতে হবে।

ঋণ বিতরণের সময় সঠিকভাবে ঝুঁকি নির্ণয় না করে কোনো অসাধু কর্মকর্তা গ্রাহককে ঋণ পাইয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে সেসব অসাধু কর্মকর্তা যাতে সফল হতে না পারেন তার জন্যও যথাযথ ব্যবস্থা থাকা দরকার। ভালো গ্রাহকরা যাতে সময়মতো কাঙ্ক্ষিত সেবা পান এটাও নিশ্চিত করতে হবে।

আমরা মনে করি, খেলাপি ঋণসহ ব্যাংকিং খাতের সমস্যাগুলোর স্থায়ী সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া দরকার। সমাধানটি এমন হওয়া উচিত যাতে ঋণখেলাপিরা যত বড় প্রভাবশালীই হোন, তাদের কাছ থেকে টাকা আদায়ে কোনো অনিশ্চয়তা দেখা দেবে না।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×