কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে

  সম্পাদকীয় ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে

সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠানের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি), আমরা তাকে স্বাগত জানাই। জানা গেছে, আগামী মাসেই শুরু হচ্ছে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা প্রস্তুতির কার্যক্রম।

বুধবার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউজিসি। আমরা মনে করি, এ সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে আসার আর সুযোগ নেই। এ ব্যাপারে ইউজিসির দৃঢ় মনোভাবই কাম্য।

শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমাতে সমন্বিত বা গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা হলেও, এমনকি খোদ রাষ্ট্রপতি এ ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করা সত্ত্বেও তা এখনও বাস্তবায়ন না হওয়াটা দুর্ভাগ্যজনক। আমরা আশা করব, আগামী ১ এপ্রিল যে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে, সে পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা এবার কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার মাধ্যমে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারবে।

ভাবনার বিষয় হল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ চারটি বিশ্ববিদ্যালয় এ ব্যাপারে তাদের সিদ্ধান্তের কথা এখনও জানায়নি। কেন্দ্রীয় ভর্তি পদ্ধতির সরাসরি বিরোধিতা না করলেও নানা অজুহাত দেখিয়ে যাচ্ছে তারা।

বলা হচ্ছে, এ বিষয়ে তাদের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে এ ধরনের ভর্তি পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা শুরুর পরও এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন উপাচার্যরা সরাসরি এর বিরোধিতা করেননি।

তারা নিজ নিজ পর্ষদে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা বলে গেছেন। পরে কেউ নেতিবাচক সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন, আবার কেউ সিদ্ধান্ত না জানিয়ে আলাদা ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করেছেন। এভাবেই ভেস্তে গেছে সমন্বিত বা গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষার উদ্যোগ। এবারও তেমনটি ঘটার আশঙ্কা উড়িয়ে দেয়া যায় না।

বস্তুত বড় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অনাগ্রহের কারণেই বিষয়টি আটকে আছে। ধারণা করা হয়, এর পেছনের কারণ হল বিদ্যমান ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বড় অঙ্কের অর্থ আয়। ভর্তি বাণিজ্য ও কোচিং-গাইড বাণিজ্যের জন্য অনেকেই গুচ্ছ পদ্ধতির বিরোধিতা করেন। এ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হলে এ ধরনের অনৈতিক ব্যবসা নিরুৎসাহিত হবে। সেটা অনেকেই চান না।

অথচ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের স্বার্থে কেন্দ্রীয় ভর্তি পদ্ধতি চালু হওয়া জরুরি। এ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা হলে তাদের দুর্ভোগ লাঘব হবে। বর্তমানে শুধু মেডিকেল কলেজগুলোতে গুচ্ছভিত্তিক বা সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি চালু আছে।

অনেক আগে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজির অধীনে কুয়েট, চুয়েট ও রুয়েটে (সে সময় যথাক্রমে বিআইটি খুলনা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী নামে এগুলো পরিচিত ছিল) একযোগে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতো। সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হলেও পরে তা বাতিল হয়ে যায়। আমরা আশা করব, দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতি চালু করতে সংশ্লিষ্টরা যথাযথ পদক্ষেপ নেবেন। পরবর্তী সময়ে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকেও এ পথেই এগোতে হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×