বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অভাব

করোনায় মৃত্যু কমাতে এ সমস্যা দূর করা জরুরি

  সম্পাদকীয় ১৫ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা আশঙ্কাজনক পর্যায়ের দিকে যাচ্ছে বলেই মনে হয়। গত কয়েক দিনের মৃত্যুর আধিক্যে সে আভাসই পাওয়া যায়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের গতকালের ঘোষণা অনুযায়ী, করোনায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ১০৪১ এবং মৃতের সংখ্যা ১৪। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট ২৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। লক্ষ করার বিষয় হল, দেশে করোনা প্রাদুর্ভাবের প্রথমদিকে মৃতের সংখ্যা কম থাকলেও এর হার ক্রমেই বাড়ছে।

এর বাইরে করোনার উপসর্গ নিয়েও মৃত্যু হচ্ছে অনেকের। করোনায় মৃত্যুর ঘটনা অন্যান্য দেশেও ঘটছে। তবে সেসব দেশের অধিকাংশের সঙ্গে আমাদের পার্থক্য হল- অন্যান্য দেশে করোনায় যাদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে বয়স্ক ও গুরুতর অসুস্থ রোগীর সংখ্যাই বেশি; কিন্তু আমাদের দেশে মৃতদের মধ্যে তরুণসহ সব বয়সের রোগীই রয়েছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর অন্যতম কারণ হল দেশে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত হাসপাতালগুলোতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অভাব। অনেক করোনা রোগীর অন্য নানা জটিলতা থেকে থাকে, যেমন- হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, নিউরো, কিডনি জটিলতা, রেসপিরেটরি সমস্যা ইত্যাদি।

সেক্ষেত্রে এসব রোগীর চিকিৎসার জন্য বিষয়ভিত্তিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক থাকাটা জরুরি। নয়তো করোনার কারণে তাদের এসব রোগ আরও জটিল আকার ধারণ করতে পারে। এর ফলে তাদের মৃত্যুও হতে পারে। বাস্তবে হচ্ছেও তা-ই।

এ কারণে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত হাসপাতালগুলোতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অভাব দূর করা জরুরি।

এটি ঠিক, দেশে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অভাব রয়েছে। তবে সুসমন্বিত পদক্ষেপের মাধ্যমে এ অভাব কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হতে পারে। যেমন, বিভিন্ন জটিল রোগে আক্রান্ত করোনা রোগীদের সেসব হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করা উচিত, যেখানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা আছেন।

আর যেসব করোনা হাসপাতালে বিষয়ভিত্তিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নেই, সেসব হাসপাতালে প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা যেন রোগীদের মাঝেমাঝে দেখে আসেন সেই ব্যবস্থা করতে হবে। জানা যায়, করোনা রোগীদের জন্য নির্ধারিত হাসপাতালগুলোর মধ্যে

ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিট এবং মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক রয়েছেন। এ ছাড়া শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতাল এবং কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে কয়েকটি বিষয়ের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আছেন। বাদবাকি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোয় করোনা চিকিৎসা মেডিকেল অফিসারনির্ভর।

অভিযোগ আছে, অনেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক করোনা রোগীর চিকিৎসা দিতে আগ্রহী হলেও তাদের করোনা হাসপাতালে ডাকা হয়নি। আবার যাদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, তাদের অনেকে ভয়ে রোগীদের কাছে যান না। হাসপাতালে গিয়েও আড়ালে-আবডালে থাকেন! সংকটাপন্ন রোগীর চিকিৎসার ক্ষেত্রে এ ধরনের আচরণ মোটেই কাম্য নয়।

এসব সমস্যা নিরসন করা গেলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সংকট কিছুটা হলেও কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে বলে আমরা মনে করি। সম্প্রতি ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হয়েছে বটে; তবে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় এসব চিকিৎসক যদি উপযুক্ত বিশেষজ্ঞের সহযোগিতা না পান, তাহলে তারা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগবেন এটাই স্বাভাবিক।

করোনা রোগীদের অন্যান্য জটিল সমস্যার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের মতামত অত্যন্ত জরুরি। কাজেই সেসব জটিলতা নিরসনে হাসপাতালগুলোয় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নিশ্চিত করতে হবে। করোনায় মৃত্যুহার কমিয়ে আনার জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতর অবিলম্বে এদিকে দৃষ্টি দেবে, এটাই কাম্য।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত