শোকাঞ্জলি

আমার জন্য এই শোক মর্মান্তিক

  সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ১৬ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আনিসুজ্জামান গবেষক, শিক্ষক, সংস্কৃতিসেবী এবং সমাজ সচেতন হিসেবে অসাধারণ একজন মানুষ ছিলেন। একসঙ্গে এত গুণ কমসংখ্যক মানুষেরই থাকে। তার প্রধান কাজ, তার গবেষণায় আধুনিক বাংলা সাহিত্যে মুসলিম সাহিত্যিকদের গুরুত্বপূর্ণ কাজকে তুলে ধরেছেন।

আহমদ শরীফ যেমন মধ্যযুগে মুসলিম সাহিত্যিকদের কাজকে তুলে ধরেছেন, তিনি তেমনি আধুনিক বাংলা সাহিত্যে মুসলিম সাহিত্যিকদের কাজকে সমাজ চেতনার প্রেক্ষিতে গুরুত্বপূর্ণরূপে উপস্থাপন করেছেন। বাংলা ভাষার পুরাতন নমুনাগুলো তুলে এনেছেন।

তিনি অনেক গ্রন্থ রচনা করেছেন, অনেক গ্রন্থ সম্পাদনা করেছেন, অনেক প্রতিষ্ঠানের নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে যে স্বীকৃতিগুলো পেয়েছেন, তা তার মেধার জন্য প্রাপ্য ছিল, যথার্থ ছিল। তার যে আত্মজীবনী, সেখানে বাংলাদেশের সমাজের যথার্থ ও বিশ্বস্ত প্রতিফলন ঘটেছে। শিক্ষক হিসেবে ছিলেন প্রেরণাদায়ী। তার অনেক ছাত্রের স্মৃতিতে তিনি চিরভাস্বর হয়ে থাকবেন। শৈশব থেকে ছিলেন সংগঠক, সমাজ সচেতন।

আমরা একসঙ্গে বেড়ে উঠেছি। একসঙ্গে অনেক কাজ করেছি। একই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছি। ফলে আমার জন্য এ শোক মর্মান্তিক। এ দুঃসময়ে তার চলে যাওয়া। তিনি আমার স্ত্রীর প্রিয় শিক্ষক ছিলেন। তার গবেষণার তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন। আনিসুজ্জামানের নির্দেশনায় তার গবেষণা অনেক সমৃদ্ধ হয়েছিল। বেঁচে থাকলে তিনিও আনিসুজ্জামানের মৃত্যুতে খুবই মর্মাহত হতেন।

তার জায়গায় অন্য আরেকজন হয়তো আসবেন; কিন্তু একজন আনিসুজ্জামান আর আসবেন না। এ ক্ষতি অপূরণীয়। তার যে একটি উদারনৈতিক সহমর্মিতা ছিল, সেটা তার লেখায় প্রতিফলিত হতো। এবং এ গুণের কারণে তার লেখা, তার গবেষণা অন্য গবেষণামূলক লেখার মতো হতো না। সেগুলো অনেক প্রাণবন্ত ও সজীব হয়ে উঠত।

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী : শিক্ষাবিদ

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত