করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি: সতর্কবার্তা হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই

  সম্পাদকীয় ২৮ জুন ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিধিনিষেধ শিথিল করায় সারা বিশ্বে দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণের ঝুঁকিতে রয়েছে এমন ১০টি দেশের তালিকা তৈরি করেছে ব্রিটিশ সংবাদপত্র দ্য গার্ডিয়ান। উদ্বেগের বিষয় হল, এ তালিকায় শীর্ষ পাঁচে রয়েছে বাংলাদেশের নাম। উল্লেখ্য, ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা ট্র্যাকিং অ্যাপের মাধ্যমে পাওয়া উপাত্ত বিশ্লেষণ করে এ তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

এ ক্ষেত্রে ২৫ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে এমন ৪৫টি দেশের পূর্ববর্তী সপ্তাহের তুলনায় পরের সপ্তাহে করোনা সংক্রমণের ভিত্তিতে তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করা হয়েছে; যেসব দেশের মধ্যে অন্তত ২১টিতে লকডাউন শিথিল করার পর করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

দ্বিতীয় দফায় প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়া জার্মানির অন্তত দুটি কাউন্টিতে ফের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। অন্যদিকে লকডাউন শিথিল করার পর সৌদি আরব ও ইরানে ভাইরাসটির দ্বিতীয় দফা সংক্রমণ শুরু হয়েছে এবং এরই মধ্যে ইরানে করোনার সংক্রমণ ‘চূড়ায়’ পৌঁছেছে। বস্তুত এশিয়া ও ইউরোপের অনেক দেশ করোনার প্রকোপ শুরুর পর ভাইরাসটির সংক্রমণ কমিয়ে আনতে সক্ষম হওয়ায় তারা লকডাউন তুলে নেয়। এ ধারাবাহিকতায় আরও অনেক দেশ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেয়া অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছানোর আগেই লকডাউন সংক্রান্ত বিধিনিষেধ তুলে নেয় বা নিচ্ছে; যার মধ্যে বাংলাদেশও রয়েছে। আশঙ্কার বিষয় হল, গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে দেশে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে ১২ দশমিক ৯ শতাংশ। ইতোমধ্যে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আগামী জুলাই মাসে দেশে করোনার সংক্রমণ চূড়ান্ত ধাপে পৌঁছানোর আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন।

দেশে ৬৬ দিনের সাধারণ ছুটির পর গত ৩০ মে থেকে সরকারি-বেসরকারি অফিসগুলোয় কার্যক্রম শুরু হয়েছে। চালু হয়েছে গণপরিবহনও। জনসাধারণের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণের জন্য সর্বাবস্থায় মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ থেকে জারিকৃত ১৩ দফা নির্দেশনা কঠোরভাবে অনুসরণ করার কথা বলা হলেও যাতায়াত ও কর্মক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্ব রক্ষা করা, বিশেষ করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টিকে বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ব্যর্থ হলে দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা যে বহুগুণ বেড়ে যাবে, তা বলাই বাহুল্য। এ আশঙ্কার মধ্যেই দ্য গার্ডিয়ানের তালিকায় দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণের ঝুঁকিতে থাকা শীর্ষ ১০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের ৫ নম্বরে থাকার বিষয়টি উঠে এলো, যা হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই। গার্ডিয়ানের সতর্কবার্তা গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে সরকার দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে, এটাই প্রত্যাশা।

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

আরও
আরও খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত