বানভাসি মানুষের কষ্ট

  আকবর হোসাইন ০৭ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বাংলাদেশ। এ দেশের ওপর দিয়ে বয়ে চলেছে শত শত নদ-নদী। দেহের শিরা-উপশিরার মতো দেশের ওপর দিয়ে প্রবাহিত এই নদ-নদীর ভূমিকা অপরিসীম।

দেশের অর্থনীতি, রাজনীতি, সংস্কৃতিসহ সব ক্ষেত্রে নদ-নদীর প্রভাব রয়েছে। সময়ের পরিক্রমায় অনেক নদী শুকিয়ে গেছে, পরিবর্তন হয়েছে নদীর গতিপথের, নাব্যতা হারিয়ে যাচ্ছে অনেক নদীর।

আর নদীর এ পরিবর্তনের সঙ্গে পরিবর্তন ঘটছে নদীপারের মানুষের। নদীভাঙন, বন্যা, জলোচ্ছ্বাসের কারণে হারিয়ে যাচ্ছে বসতভিটা। অসহায় হয়ে পড়ছে দেশের কৃষক। এসব মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারলে আবার নতুন করে স্বপ্ন দেখবে তারা, বাঁচার স্বপ্ন।

মহামারী করোনাভাইরাসে সারা বিশ্বের মানুষ আজ দিশেহারা। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি নয়, বেঁচে থাকাটাই আজ বড় বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কবে এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ মিলবে কেউ জানে না। বেঁচে থাকার এই সংগ্রামে বাংলাদেশের মানুষকে আজ বন্যার বিরুদ্ধেও লড়াই করতে হচ্ছে।

সরকারি হিসাবমতে এখন পর্যন্ত ৪৪ লাখ মানুষ বন্যাকবলিত। আশ্রয় কেন্দ্রে আছে ৮০ হাজার মানুষ। খোলা আকাশের নিচে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে হাজার হাজার মানুষ।

বন্যাকবলিত এলাকায় বিশুদ্ধ পানির অভাবে অনেকে পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। করোনা ও বন্যার কারণে কর্মহীন এই মানুষদের বাঁচাতে হলে দ্রুত খাদ্য সহায়তা, চিকিৎসাসেবা পৌঁছে দিতে হবে।

প্রতিদিন বন্যায় দেশের নতুন নতুন অঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। ভেঙে যাচ্ছে যাতায়াত ব্যবস্থা। বন্যার কারণে প্রাণহানি ঘটছে, গৃহপালিত গবাদি পশুর ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে, কৃষকের ফসল তলিয়ে যাচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে দেশের কৃষি, কৃষক তথা অর্থনীতি।

বন্যাকবলিত অঞ্চলগুলোর বানভাসি মানুষের খাদ্য নিশ্চিত করতে হবে। নিরাপদ বিশুদ্ধ খাবার, পানি ও চিকিৎসাসেবা প্রদান করতে হবে। সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের এই ক্রান্তিলগ্নে। আমাদের মনে রাখতে হবে বন্যায় বানভাসি মানুষের সংখ্যা কম নয়, তাদের বিপদে রেখে আমরা সামনে এগিয়ে যেতে পারি না। বন্যা-পরবর্তী সময়ে কৃষকের কাছে বীজ ও চারা পৌঁছে দিতে হবে।

বাংলাদেশের মানুষ প্রাকৃতিক দুর্যোগের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করে বছরের পর বছর টিকে আছে। হাতে হাত রেখে গড়ে তুলেছে শক্তিশালী কাঠামো। এই দুর্যোগেও সবাই হাতে হাত রেখে যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে এলে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ বাঁচার স্বপ্ন দেখবে, সাহস পাবে সামনে এগিয়ে যেতে।

আকবর হোসাইন : শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত