এইচএসসি পরীক্ষা শুরু

প্রশ্ন ফাঁস রোধে কঠোর থাকতে হবে

  সম্পাদকীয় ০২ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এইচএসসি

সারা দেশে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ। পিইসি, জেএসসি ও এসএসসির মতো এ পরীক্ষার ক্ষেত্রেও প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় কিনা, তা নিয়ে ১৩ লাখের বেশি শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন। যদিও শিক্ষামন্ত্রী থেকে শুরু করে দায়িত্বশীল মহল বলছে প্রশ্ন ফাঁস বন্ধে নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তারপরও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্ন ফাঁসের বিজ্ঞাপন কিন্তু থেমে নেই। পরীক্ষার আগের দিন কিংবা পরীক্ষার দিন সকালে প্রশ্ন ফাঁস এবং জিপিএ ও গোল্ডেন জিপিএ-৫ পাইয়ে দেয়ার বিজ্ঞাপন যোগ হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। বিষয়টি যথেষ্ট উদ্বেগের। কারণ এর আগে এসএসসি, জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার সময়ও একইভাবে ঘোষণা দিয়ে প্রশ্নপত্র ফাঁস করা হয়েছিল।

আশার কথা, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবার প্রশ্ন ফাঁসের বিরুদ্ধে যথেষ্ট তৎপর। এরই মধ্যে প্রশ্ন ফাঁস চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং এইচএসসি পর্যায়ের বিভিন্ন কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার সরকারি ঘোষণা বাস্তবায়নে ঢাকার বাইরে অভিযান চালানো হয়েছে। এটি ইতিবাচক। তবে ঢাকার নামি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা কোচিংয়ের ক্ষেত্রে তেমন তৎপরতা না থাকাটা দুঃখজনক। প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে বিভিন্ন সময়ে কোচিং সেন্টারের সংশ্লিষ্টতা আসায় এইচএসসি পরীক্ষার সময় যে কোনো মূল্যে এগুলোর অপতৎপরতা রোধের বিকল্প নেই। শুধু তাই নয়, কোচিং সেন্টারকেন্দ্রিক নানা অনিয়ম-দুর্নীতির ঘটনা সামনে আসায় এগুলোকে দুর্নীতির আখড়া অভিহিত করে চিরতরে বন্ধ করার উদ্যোগ নিতে বলেছেন দুদক চেয়ারম্যান। তার সঙ্গে একমত হয়ে বলা যায়, কোচিং পদ্ধতি আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থার মেরুদণ্ড ভেঙে দিয়েছে। ফলে অবিলম্বে সব ধরনের কোচিং স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করা দরকার।

প্রশ্ন ফাঁসে জড়িতদের ছাড় দেয়া হবে না বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। এটি কেবল কথার কথা না হয়ে প্রশ্ন ফাঁসসহ শিক্ষা খাতের সব ধরনের অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর ভূমিকা এখনই নিতে হবে। কারণ, দুর্ভাগ্যজনকভাবে এর আগে অন্যান্য পরীক্ষার বেলায় মন্ত্রীর হুশিয়ারির পরও পরিস্থিতির কোনো ধরনের উন্নয়ন লক্ষ্য করা যায়নি। এতে সংশ্লিষ্ট মহলের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন ওঠা অস্বাভাবিক নয়। এ অবস্থায় এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস রোধসহ শিক্ষা ক্ষেত্রের যে কোনো ধরনের অনিয়ম দূর করতে হলে উন্নয়নের প্রধান শর্ত মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করার প্রতি মনোযোগী হতে হবে সরকারের শীর্ষমহলকে। শিক্ষা খাত যদি সুশিক্ষা নিশ্চিত করে দক্ষ মানবসম্পদ গড়তে ব্যর্থ হয়, তবে উন্নয়নশীল ও উন্নত দেশ হওয়ার লক্ষ্য ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা উড়িয়ে দেয়ার উপায় নেই।

ঘটনাপ্রবাহ : এইচএসসি-২০১৮

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter