ডায়াবেটিস রোগীর জন্য টিকা কি নিরাপদ?
jugantor
করোনা পরামর্শ
ডায়াবেটিস রোগীর জন্য টিকা কি নিরাপদ?

  ডা. শাহজাদা সেলিম  

২০ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে শুরু হওয়া করোনাভাইরাস দ্বারা সংঘটিত রোগ কোভিড-১৯ পৃথিবীর সব দেশের মানুষকে ব্যাপক ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে; কোটি কোটি মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, লাখ লাখ মানুষ মারা যাচ্ছেন। মৃত্যুর তালিকা দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে দিনের পর দিন। ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি অকার্যকর, হাঁপানি, দৈহিক স্থূলতার রোগীরা এ রোগে আক্রান্ত হলে মৃত্যুর মারাত্মক ঝুঁকিতে থাকেন।

অন্য আরও কিছু রোগের মতো ডায়াবেটিসের রোগীদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। অন্য রোগ হলে তার সঙ্গে লড়াই করার সক্ষমতা হ্রাস পায়। ফলে একইসঙ্গে বসবাস করা অন্যান্য মানুষের তুলনায় ডায়াবেটিস রোগী চট করেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষার আচরণগুলোর সঙ্গে একটি নির্ভরতার আশ্বাস দিচ্ছে টিকা। বিভিন্ন দেশ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক্রমে বিভিন্ন লাগসই নীতিমালায় তাদের জনগণকে টিকা প্রদান শুরু করেছে। ডায়াবেটিসের রোগীদের কিছুটা দ্বিধা-দ্বন্দ্ব পরিলক্ষিত হচ্ছে টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, করোনার টিকা কি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য নিরাপদ?

এখন পর্যন্ত এ টিকার তেমন বড় ধরনের ঝুঁকি দেখা দেয়নি; ডায়াবেটিসেও নয়। বরং ডায়াবেটিসের রোগী করোনায় আক্রান্ত হলে অতিরিক্ত মৃত্যুঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনা করে তাদের টিকা প্রদানে অগ্রাধিকার তালিকায় স্থান দিতে পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষ এর সঙ্গে একমত।

যাদের রক্তে গ্লুকোজ অনেক বেশি (অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস), তাদের দ্রুত তা নিয়ন্ত্রণে এনে তারপর টিকা নেওয়া দরকার। বাংলাদেশে সরকার থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকা-অক্সফোর্ডের তৈরি কোভিশিল্ড টিকার দুই ডোজ আট সপ্তাহ অন্তর নিতে হবে। এ ছাড়া জনসন ও জনসন, ফাইজার ও মডার্নার তৈরি করোনার টিকাও ডায়াবেটিসে নিরাপদ বলে প্রমাণিত হয়েছে।

তবে গরমের সঙ্গে সঙ্গে রক্তে গ্লুকোজ বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই ডায়াবেটিস রোগীর রক্তের গ্লুকোজ কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় (৬-১০ মিলিমোল/লিটার) নামিয়ে এনে টিকা দেওয়া শ্রেয়। যেসব ডায়াবেটিসের রোগী এখনো টিকা নিতে পারেননি বা নেননি, তারা সময়মতো টিকা নিয়ে নিতে ভুল করবেন না।

সবাই ঘরেই থাকুন যতটা সম্ভব, মাস্ক পরুন, বাইরে যেতে হলে ভিড় এড়িয়ে চলুন। নিজে নিরাপদে থাকুন, পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সচেষ্ট হোন। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করুন বছরজুড়ে, আজীবন।

ডা. শাহজাদা সেলিম : সহযোগী অধ্যাপক, এন্ডক্রাইনলজি বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়

করোনা পরামর্শ

ডায়াবেটিস রোগীর জন্য টিকা কি নিরাপদ?

 ডা. শাহজাদা সেলিম 
২০ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে শুরু হওয়া করোনাভাইরাস দ্বারা সংঘটিত রোগ কোভিড-১৯ পৃথিবীর সব দেশের মানুষকে ব্যাপক ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে; কোটি কোটি মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, লাখ লাখ মানুষ মারা যাচ্ছেন। মৃত্যুর তালিকা দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে দিনের পর দিন। ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি অকার্যকর, হাঁপানি, দৈহিক স্থূলতার রোগীরা এ রোগে আক্রান্ত হলে মৃত্যুর মারাত্মক ঝুঁকিতে থাকেন।

অন্য আরও কিছু রোগের মতো ডায়াবেটিসের রোগীদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। অন্য রোগ হলে তার সঙ্গে লড়াই করার সক্ষমতা হ্রাস পায়। ফলে একইসঙ্গে বসবাস করা অন্যান্য মানুষের তুলনায় ডায়াবেটিস রোগী চট করেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষার আচরণগুলোর সঙ্গে একটি নির্ভরতার আশ্বাস দিচ্ছে টিকা। বিভিন্ন দেশ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক্রমে বিভিন্ন লাগসই নীতিমালায় তাদের জনগণকে টিকা প্রদান শুরু করেছে। ডায়াবেটিসের রোগীদের কিছুটা দ্বিধা-দ্বন্দ্ব পরিলক্ষিত হচ্ছে টিকা নেওয়ার ক্ষেত্রে। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, করোনার টিকা কি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য নিরাপদ?

এখন পর্যন্ত এ টিকার তেমন বড় ধরনের ঝুঁকি দেখা দেয়নি; ডায়াবেটিসেও নয়। বরং ডায়াবেটিসের রোগী করোনায় আক্রান্ত হলে অতিরিক্ত মৃত্যুঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনা করে তাদের টিকা প্রদানে অগ্রাধিকার তালিকায় স্থান দিতে পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষ এর সঙ্গে একমত।

যাদের রক্তে গ্লুকোজ অনেক বেশি (অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস), তাদের দ্রুত তা নিয়ন্ত্রণে এনে তারপর টিকা নেওয়া দরকার। বাংলাদেশে সরকার থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকা-অক্সফোর্ডের তৈরি কোভিশিল্ড টিকার দুই ডোজ আট সপ্তাহ অন্তর নিতে হবে। এ ছাড়া জনসন ও জনসন, ফাইজার ও মডার্নার তৈরি করোনার টিকাও ডায়াবেটিসে নিরাপদ বলে প্রমাণিত হয়েছে।

তবে গরমের সঙ্গে সঙ্গে রক্তে গ্লুকোজ বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই ডায়াবেটিস রোগীর রক্তের গ্লুকোজ কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় (৬-১০ মিলিমোল/লিটার) নামিয়ে এনে টিকা দেওয়া শ্রেয়। যেসব ডায়াবেটিসের রোগী এখনো টিকা নিতে পারেননি বা নেননি, তারা সময়মতো টিকা নিয়ে নিতে ভুল করবেন না।

সবাই ঘরেই থাকুন যতটা সম্ভব, মাস্ক পরুন, বাইরে যেতে হলে ভিড় এড়িয়ে চলুন। নিজে নিরাপদে থাকুন, পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সচেষ্ট হোন। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করুন বছরজুড়ে, আজীবন।

ডা. শাহজাদা সেলিম : সহযোগী অধ্যাপক, এন্ডক্রাইনলজি বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন