রেলের ইঞ্জিন কেনায় অনিয়ম
jugantor
রেলের ইঞ্জিন কেনায় অনিয়ম
দুর্নীতিবাজদের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে

  সম্পাদকীয়  

১২ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রেলের দুর্নীতি নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই। লাগামহীন দুর্নীতি ছাড়াও নানা ধরনের অব্যবস্থাপনায় নিমজ্জিত রেল বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের ঘুম ভেঙেছে বলে মনে হয় না। বরং নতুন করে আবারও অনিয়ম-দুর্নীতির খবর পাওয়া যাচ্ছে।

গতকাল যুগান্তরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, চুক্তিভঙ্গের কারণে দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্দাই রোটেম কোম্পানির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হলেও তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। এর পরিবর্তে ১০টি ইঞ্জিনের অর্থ পরিশোধের জন্য তৎপর হয়ে উঠেছেন রেলের কিছু কর্মকর্তা। প্রশ্ন হল, চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ ওঠার পরও ইঞ্জিনগুলো কেন গ্রহণ করার আয়োজন চলছে?

তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট কোম্পানির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেওয়ার বিষয়টিও রহস্যজনক। এ অবস্থায় প্রকল্প পরিচালক (পিডি) পরিবর্তনের ফলে বিষয়টি নিয়ে আরও নানা ধরনের প্রশ্ন উঠবে, এটাই স্বাভাবিক। নতুন পিডি তাড়াহুড়ো করে অর্থ পরিশোধ করতে চাচ্ছেন। এতে রহস্যের ডালপালা আরও বাড়ছে। এসব রহস্য উদঘাটন জরুরি হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, ইঞ্জিনগুলোর ২৫ শতাংশ অর্থ অগ্রিম দেওয়া আছে। দেশে আসার পর ৬৫ শতাংশ এবং গুণগত মান যাচাই শেষে বাকি ১০ শতাংশ অর্থ পরিশোধের কথা ছিল। তবে নিুমানের ইঞ্জিন সরবরাহের কারণে চুক্তিমূল্যের ৬৫ শতাংশ অর্থ আটকে দেন তৎকালীন পিডি। একইসঙ্গে এ অনিয়ম-দুর্নীতিতে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন তিনি।

চুক্তি অনুযায়ী ইঞ্জিন সরবরাহ না করে অন্য মডেলের ইঞ্জিন সরবরাহ করা হলেও সম্প্রতি সেসব গ্রহণের প্রস্তুতি নেওয়ার কারণ কী? সরবরাহ করা ইঞ্জিনগুলো আগে বেশ কয়েকবার ট্রায়াল করা হলেও চুক্তিতে থাকা সর্বোচ্চ গতি তোলা যায়নি। এরপরও এসব ইঞ্জিন গ্রহণ করা হলে রাষ্ট্রের যে ক্ষতি হবে, এর দায় কে নেবে?

সরকার রেলের উন্নয়নে নতুন নতুন পরিকল্পনা করে যাচ্ছে। এ অবস্থায় রেলের দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। দুর্নীতিবাজ ও তাদের পৃষ্ঠপোষকরা বহাল তবিয়তে থাকলে রেল নিয়ে সরকার যত পরিকল্পনাই করুক না কেন, তাতে দুর্নীতিবাজদের পকেট ভারি হওয়া ছাড়া কাজের কাজ যে কিছুই হবে না, তা বলাই বাহুল্য। দুর্নীতি বজায় রেখে জাতিকে যুগোপযোগী রেল উপহার দেওয়া কোনোভাবেই সম্ভব নয়।

রেলের ইঞ্জিন কেনায় অনিয়ম

দুর্নীতিবাজদের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে
 সম্পাদকীয় 
১২ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রেলের দুর্নীতি নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই। লাগামহীন দুর্নীতি ছাড়াও নানা ধরনের অব্যবস্থাপনায় নিমজ্জিত রেল বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের ঘুম ভেঙেছে বলে মনে হয় না। বরং নতুন করে আবারও অনিয়ম-দুর্নীতির খবর পাওয়া যাচ্ছে।

গতকাল যুগান্তরে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, চুক্তিভঙ্গের কারণে দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্দাই রোটেম কোম্পানির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হলেও তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। এর পরিবর্তে ১০টি ইঞ্জিনের অর্থ পরিশোধের জন্য তৎপর হয়ে উঠেছেন রেলের কিছু কর্মকর্তা। প্রশ্ন হল, চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ ওঠার পরও ইঞ্জিনগুলো কেন গ্রহণ করার আয়োজন চলছে?

তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট কোম্পানির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেওয়ার বিষয়টিও রহস্যজনক। এ অবস্থায় প্রকল্প পরিচালক (পিডি) পরিবর্তনের ফলে বিষয়টি নিয়ে আরও নানা ধরনের প্রশ্ন উঠবে, এটাই স্বাভাবিক। নতুন পিডি তাড়াহুড়ো করে অর্থ পরিশোধ করতে চাচ্ছেন। এতে রহস্যের ডালপালা আরও বাড়ছে। এসব রহস্য উদঘাটন জরুরি হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, ইঞ্জিনগুলোর ২৫ শতাংশ অর্থ অগ্রিম দেওয়া আছে। দেশে আসার পর ৬৫ শতাংশ এবং গুণগত মান যাচাই শেষে বাকি ১০ শতাংশ অর্থ পরিশোধের কথা ছিল। তবে নিুমানের ইঞ্জিন সরবরাহের কারণে চুক্তিমূল্যের ৬৫ শতাংশ অর্থ আটকে দেন তৎকালীন পিডি। একইসঙ্গে এ অনিয়ম-দুর্নীতিতে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন তিনি।

চুক্তি অনুযায়ী ইঞ্জিন সরবরাহ না করে অন্য মডেলের ইঞ্জিন সরবরাহ করা হলেও সম্প্রতি সেসব গ্রহণের প্রস্তুতি নেওয়ার কারণ কী? সরবরাহ করা ইঞ্জিনগুলো আগে বেশ কয়েকবার ট্রায়াল করা হলেও চুক্তিতে থাকা সর্বোচ্চ গতি তোলা যায়নি। এরপরও এসব ইঞ্জিন গ্রহণ করা হলে রাষ্ট্রের যে ক্ষতি হবে, এর দায় কে নেবে?

সরকার রেলের উন্নয়নে নতুন নতুন পরিকল্পনা করে যাচ্ছে। এ অবস্থায় রেলের দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে। দুর্নীতিবাজ ও তাদের পৃষ্ঠপোষকরা বহাল তবিয়তে থাকলে রেল নিয়ে সরকার যত পরিকল্পনাই করুক না কেন, তাতে দুর্নীতিবাজদের পকেট ভারি হওয়া ছাড়া কাজের কাজ যে কিছুই হবে না, তা বলাই বাহুল্য। দুর্নীতি বজায় রেখে জাতিকে যুগোপযোগী রেল উপহার দেওয়া কোনোভাবেই সম্ভব নয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন