অভিনব কৌশলী পদ্ধতি

নিজ প্রতিষ্ঠানেই কেন পুলিশের এই প্রতারণা?

  সম্পাদকীয় ০৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সম্পাদকীয়

প্রতারণার এক অভিনব কৌশলী পদ্ধতি ফাঁস হয়েছে সম্প্রতি। এই প্রতারণা ঘটে চলেছে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) অভ্যন্তরে।

জানা গেছে, আরএমপির ২০১৬-১৭ অর্থবছরের যন্ত্রপাতি ও অফিস সরঞ্জামাদি সরবরাহের জন্য বিজ্ঞপ্তি সংবলিত একটি জাতীয় দৈনিকের কপি আরএমপির টেন্ডার ফাইলে দেখানো হয়েছে। অথচ প্রকাশিত ওই দৈনিকটির সব সংস্করণের কোনো কপিতেই নেই আরএমপির এই বিজ্ঞপ্তি।

অর্থাৎ টেন্ডার জালিয়াতরা ওই জাতীয় দৈনিকের একটি নকল কপি ছাপানোর ব্যবস্থা করেছে। একইভাবে আরও দুটি টেন্ডার জালিয়াতির স্বার্থে তৈরি করা একটি বাংলা ও একটি ইংরেজি দৈনিকের নকল কপি পাওয়া গেছে আরএমপির প্রশাসনিক কর্মকর্তার ফাইলে। বোঝাই যাচ্ছে, টেন্ডার প্রক্রিয়ায় যোগ্য ব্যবসায়ীদের বিরত রাখার উদ্দেশ্যেই সংঘটিত হয়েছে এই অপকর্ম।

বিজ্ঞপ্তিটি নিয়ম রক্ষার স্বার্থেই এমনভাবে ছাপানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে, যাতে তা সর্বমহলে প্রচারিত হতে না পারে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শুধু উপরের জালিয়াতিগুলোই নয়, আরএমপিতে একটি অসাধু চক্র নানা ধরনের দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে আছে।

প্রশ্ন হচ্ছে, এই জালিয়াত চক্রের সদস্য কারা? আপাতত আরএমপির তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে দায়ী করা হয়েছে, যাদের একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা। তার মানে পুলিশ বাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার যোগসাজশেই জালিয়াত চক্রটি সক্রিয় রয়েছে।

নকল পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি ছাপিয়ে টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার অর্থ হল প্রকৃত ব্যবসায়ীদের বঞ্চিত করা, যার আরেকটি অর্থ দাঁড়ায়- সরবরাহকৃত মালামালের গুণগত মান রক্ষা করা হয়নি। দুর্নীতির মাধ্যমে যাদের অর্থ উপার্জনের লক্ষ্য, তারা সব ক্ষেত্রেই দুর্নীতি করবে এটাই স্বাভাবিক।

পুলিশ বাহিনীর কিছু সদস্যের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে। এখন দেখা যাচ্ছে, তাদের কেউ কেউ নিজ প্রতিষ্ঠানেই দুর্নীতিতে লিপ্ত রয়েছেন। এ ধরনের অপরাধীকে শক্ত হাতে দমন করতে হবে। টেন্ডার প্রক্রিয়ায় নানারকম দুর্নীতির খবর শোনা যায়।

কিন্তু নকল পত্রিকা ছাপানোর মতো অপরাধ নিঃসন্দেহে গুরুতর। এ অপরাধ কোনোভাবেই ক্ষমার যোগ্য নয়। আমরা আশা করব, আরএমপির কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে, তার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করা হবে। এই অসাধু চক্রের সঙ্গে ব্যবসায়ী মহলের কেউ জড়িত থাকলে তাদেরকেও আনতে হবে আইনের আওতায়।

আরও পড়ুন
pran
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

mans-world

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.