কাঁঠালে কেমিক্যাল নয়

  সাব্বির হোসেন ১২ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কাঁঠাল

শ্যামল শ্রীপুর কাঁঠালে ভরপুর। প্রচুর কাঁঠাল উৎপাদিত হয় গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায়। ইতিমধ্যে সারা দেশে কাঁঠাল উৎপাদনে সুনামও কুড়িয়েছে এ উপজেলা। জাতীয় ফল কাঁঠালের স্বাদ ও পুষ্টিগুণ অন্য যে কোনো ফলের থেকে বেশি। কাঁঠাল কাঠের আসবাবপত্রের কদরও অনেক। কাঁঠালের পাতা গবাদিপশু ছাগল ও ভেড়ার জন্য বেশ উপকারী। বিগত অর্থবছরগুলোতে শ্রীপুরের কাঁঠাল বাগান মালিকরা আর্থিকভাবে সাফল্যও পেয়েছেন কাঁঠাল বিক্রি করে। তবে গত কয়েক বছর ধরে কাঁঠাল ব্যবসায়ীরা নানা ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করে আগাম কাঁঠাল পাকাতে গিয়ে জাতীয় এ ফলের জনপ্রিয়তায় আঘাত হেনেছেন। এটি বন্ধ হওয়া জরুরি।

বৈশাখ বহমান, জ্যৈষ্ঠের শুরুতেই সুমিষ্ট কাঁঠাল প্রাকৃতিকভাবেই পাকতে শুরু করবে, যা খেতে হবে সুস্বাদু। একটি পরিবার দিনে একটি কাঁঠাল খেয়ে আমিষ, ভিটামিনসহ শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় বেশ কয়েকটি উপকরণের ঘাটতি পূরণ করতে পারে। অথচ কেমিক্যাল মিশ্রিত কাঁঠাল স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। অসাধু ব্যবসায়ীদের কেমিক্যাল মিশ্রণের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ মিডিয়ায় প্রচার হওয়ায় এখন আর কাঁঠালের প্রতি মানুষের আগ্রহ নেই। পরিতাপের বিষয় হল, কাঁঠালের জনপ্রিয়তা দিন দিন কমে যাচ্ছে। আমরা শ্রীপুরের মানুষ কাঁঠালের ওপর কেমিক্যালের এ ধরনের উপদ্রব চাই না। তাই প্রশাসনের কাছে আবেদন করছি, যেসব কীটনাশক কোম্পানি এই কেমিক্যাল বাজারজাত করে তাদের চিহ্নিত করে শাস্তির ব্যবস্থা করুন। যেসব কাঁঠাল ব্যবসায়ী এই কেমিক্যাল ব্যবহার করে তাদেরও আইনের আওতায় নিয়ে আসুন। জাতীয় ফল কাঁঠালের জনপ্রিয়তা ফিরিয়ে আনুন। এ অর্থকরী ও পুষ্টিগুণসম্পন্ন ফলকে এভাবে অসৎ ব্যবসায়ীদের বাড়তি মুনাফার লোভে ক্ষতিগ্রস্ত হতে দেয়া যায় না।

শ্রীপুরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, এবার গাছে প্রচুর কাঁঠালের ফলন হয়েছে, যা প্রাকৃতিকভাবে সংগ্রহ করে দেশের নানা প্রান্তে পৌঁছে দেয়া গেলে একদিকে লাভবান হবেন বাগান মালিক, অন্যদিকে মিটবে সাধারণ মানুষের পুষ্টি চাহিদা। কাঁঠালের রঙ, স্বাদ ও পুষ্টিগুণ ঠিক রেখে বিদেশেও রফতানি করা যেতে পারে। সেজন্য সময়োপযোগী উদ্যোগ নিতে হবে। এ ফলকে অর্থকরী করে তোলার এখনই উপযুক্ত সময়। বাগান মালিকদেরও সচেতন করার উদ্যোগ নেয়া যেতে পারে। এক্ষেত্রে শ্রীপুরের প্রশাসনকে অগ্রণী ভূমিকা নিতে হবে। ক্যাম্পেইন করা যেতে পারে কেমিক্যালের ব্যবহার রোধ করার বিষয়ে। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতা ছড়িয়ে দিতে পারলেও কাজ হবে। ‘কাঁঠালে কোনো কেমিক্যাল নয়’- এ স্লোগান নিয়ে শ্রীপুরের প্রত্যেক মানুষকে সচেতন করতে হবে। সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সুদৃষ্টি কাঁঠালের অঞ্চল শ্রীপুরকে সমৃদ্ধ করবে। সবার সমন্বিত উদ্যোগ কাঁঠালের হারানো জনপ্রিয়তা ফিরিয়ে আনবে বলে মনে করি।

সাব্বির হোসেন : প্রকৌশলী, শ্রীপুর, গাজীপুর

[email protected]

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter