খুলনা সিটি নির্বাচন

ইসিকে দৃঢ় ভূমিকা রাখতে হবে

  সম্পাদকীয় ১৫ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কেসিসি

আজ খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা নির্বাচন কমিশনের (ইসি) জন্য একধরনের অগ্নিপরীক্ষা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

নির্বাচনটি সিটি কর্পোরেশনের হলেও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নির্ধারিত সময়ের মাত্র পাঁচ-ছয় মাস আগে হওয়ায় নানা দিক থেকে নির্বাচনটি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

বিশেষ করে ইসির জন্য গুরুত্বপূর্ণ এ কারণে যে, নির্বাচনটি সুষ্ঠু হওয়া না হওয়ার ওপর অনেকাংশে নির্ভর করছে আগামীতে জাতীয় রাজনীতি কোনদিকে যাবে।

অন্তত পর্যবেক্ষকরা তা-ই মনে করছেন। রাজনৈতিক সরকার ক্ষমতায় থাকাবস্থায় জাতীয় নির্বাচন হলে সেই নির্বাচন সুষ্ঠু করতে নির্বাচন কমিশন কতটা দৃঢ়তা প্রদর্শনে সক্ষম হবে, তার একটি বার্তা পাওয়া যাবে খুলনা সিটি নির্বাচন থেকে। তাছাড়া নির্বাচনে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কী ভূমিকা পালন করবে এবং এক্ষেত্রে ইসির ভূমিকা কী হবে সেটিও দেখার বিষয়।

দ্বিতীয়ত, খুলনা সিটি নির্বাচনে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে মেয়র নির্বাচন হওয়ায় স্বভাবতই এর প্রভাব পড়েছে জাতীয় রাজনীতিতে। অনেক পর্যবেক্ষক মনে করছেন, এ নির্বাচনের ফলাফলে আগামী জাতীয় নির্বাচনের কিছুটা আভাস মিলবে।

তৃতীয়ত, আইনি জটিলতায় ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র ও দুই সিটিতেই নতুন করে যুক্ত হওয়া কয়েকটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচন এবং গাজীপুর সিটি নির্বাচন স্থগিত হওয়া বা পিছিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে যথাযথ ভূমিকা না রাখায় নির্বাচন কমিশন সমালোচিত হয়েছে। সব মিলিয়ে খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা ইসির জন্য চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জানা গেছে, নির্বাচন সামনে রেখে খুলনায় ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মাঠে নেমেছে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স। খুলনা সিটি নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে ৯ হাজার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এটি স্বস্তিদায়ক হলেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করাই যথেষ্ট নয়। অতীতে স্থানীয় পর্যায়ের বিভিন্ন নির্বাচনে দেখা গেছে কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থাধীনে নির্বাচন হওয়া সত্ত্বেও অনেক অঘটন ঘটেছে। বস্তুত নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়ার বিষয়টি বহুলাংশে নির্ভর করছে ইসি কতটা স্বাধীনভাবে ও দৃঢ়তার সঙ্গে কাজ করবে বা করতে পারবে তার ওপর। এ ক্ষেত্রে সরকারের সদিচ্ছার বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ।

খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়া সরকারের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ। কারণ সরকার চাইছে জাতীয় নির্বাচন বর্তমান রাজনৈতিক সরকার ক্ষমতায় থাকাবস্থায় সম্পন্ন করতে। সেক্ষেত্রে খুলনা সিটি নির্বাচন সুষ্ঠু হলে রাজনৈতিক সরকার ক্ষমতায় থাকাবস্থায় জাতীয় নির্বাচনও যে সুষ্ঠু হতে পারে, তার একটি দৃষ্টান্ত হিসেবে তুলে ধরতে পারবে সরকার এই নির্বাচনটিকে। আমরা মনে করি, দেশে গণতন্ত্র ও সুষ্ঠু রাজনৈতিক পরিবেশের স্বার্থে স্থানীয় ও জাতীয়সহ সব নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে ইসির দৃঢ় ভূমিকা কাম্য।

ঘটনাপ্রবাহ : খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ২০১৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×