ফের লেভেল ক্রসিং দুর্ঘটনা
jugantor
ফের লেভেল ক্রসিং দুর্ঘটনা
দ্রুত সুরক্ষিত করার পদক্ষেপ নিন

  সম্পাদকীয়  

০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লায় ট্রেনের ধাক্কায় সিএনজিচালকসহ চার যাত্রীর মৃত্যু ও একজন আহত হওয়ার ঘটনাটি মেনে নেওয়া কষ্টকর।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার সকালে নোয়াখালী থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী নোয়াখালী এক্সপ্রেস তেঘুরিয়া লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। উল্লেখ্য, লেভেল ক্রসিংটি দীর্ঘদিন ধরে অরক্ষিত ছিল।

কর্তৃপক্ষ এটিকে অবৈধ হিসাবে ঘোষণা করলেও প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শত শত যানবাহন সেখান দিয়ে যাতায়াত করে থাকে।

আমরা মনে করি, এক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের উচিত ছিল এমন একটি পদক্ষেপ নেওয়া, যাতে মানুষের জীবন ও সম্পদের সুরক্ষা নিশ্চিত হয়। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তা না করে বরং একটি ঘোষণার মাধ্যমে তাদের দায়িত্ব শেষ করেছে, যা গ্রহণযোগ্য নয়।

দেশের লেভেল ক্রসিংগুলোতে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটছে। চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন লেভেল ক্রসিংয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন অনেকেই। আর গত ১০ বছরে মারা গেছেন তিনশর বেশি মানুষ। কেবল যে অবৈধ লেভেল ক্রসিংয়েই দুর্ঘটনা, প্রাণহানি ও সম্পদহানি ঘটছে তা নয়; বৈধ ক্রসিংগুলোতেও হরহামেশা ঘটছে দুর্ঘটনা। জানামতে, দেশে ৪ হাজার ১৩ কিলোমিটার রেলপথে ২ হাজার ৮৫৬টি লেভেল ক্রসিং রয়েছে। এর মধ্যে ১ হাজার ৩৬১টির অনুমোদন নেই। অন্যদিকে ১ হাজার ৪৯৫টি লেভেল ক্রসিং বৈধ হলেও এর ৬৩২টিতে নেই কোনো গেটকিপার।

দেশের লেভেল ক্রসিংগুলো অবশ্যই সুরক্ষিত করতে হবে। বছরের পর বছর ধরে লেভেল ক্রসিং দুর্ঘটনায় বিপুলসংখ্যক মানুষ হতাহত হওয়ার পাশাপাশি সম্পদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো পরস্পরের ওপর দোষ চাপিয়ে দায়িত্ব শেষ করছে। লেভেল ক্রসিংগুলো কেন নিরাপদ করা যাচ্ছে না এবং অবৈধগুলো কেন বন্ধ করা হচ্ছে না-এ প্রশ্নের সদুত্তর খোঁজা জরুরি। বিশ্বে লেভেল ক্রসিংজনিত দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে এক নম্বরে রয়েছে বাংলাদেশ এবং রেল দুর্ঘটনার প্রায় ৯৫ শতাংশই ঘটছে এসব ক্রসিংয়ে। এর একটি কারণ, অন্তত ৮৫ শতাংশ বৈধ লেভেল ক্রসিংয়ে কোনো প্রহরী নেই। অবৈধগুলোর অবস্থা তো আরও ভয়াবহ; সেগুলোয় কোনো প্রতিবন্ধক দণ্ড পর্যন্ত নেই! অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংগুলোয় নামকাওয়াস্তে একটি নোটিশ টাঙিয়ে দায়িত্ব শেষ করেছে রেল বিভাগ। এটি অগ্রহণযোগ্য। লেভেল ক্রসিংয়ে ৯৫ শতাংশ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী সেখানে কোনো প্রহরী না থাকা-এ কথা যেমন সত্য; তেমনি এক্ষেত্রে পথচারী ও বাস-ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহনের চালকরাও তাদের দায় এড়াতে পারেন না। দুর্ঘটনা রোধে ও ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে লেভেল ক্রসিংগুলো অবশ্যই সুরক্ষিত করতে হবে। লেভেল ক্রসিং অতিক্রমকারীদেরও আরও সচেতন ও সতর্ক হওয়া উচিত।

ফের লেভেল ক্রসিং দুর্ঘটনা

দ্রুত সুরক্ষিত করার পদক্ষেপ নিন
 সম্পাদকীয় 
০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লায় ট্রেনের ধাক্কায় সিএনজিচালকসহ চার যাত্রীর মৃত্যু ও একজন আহত হওয়ার ঘটনাটি মেনে নেওয়া কষ্টকর।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার সকালে নোয়াখালী থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী নোয়াখালী এক্সপ্রেস তেঘুরিয়া লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। উল্লেখ্য, লেভেল ক্রসিংটি দীর্ঘদিন ধরে অরক্ষিত ছিল।

কর্তৃপক্ষ এটিকে অবৈধ হিসাবে ঘোষণা করলেও প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শত শত যানবাহন সেখান দিয়ে যাতায়াত করে থাকে।

আমরা মনে করি, এক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের উচিত ছিল এমন একটি পদক্ষেপ নেওয়া, যাতে মানুষের জীবন ও সম্পদের সুরক্ষা নিশ্চিত হয়। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তা না করে বরং একটি ঘোষণার মাধ্যমে তাদের দায়িত্ব শেষ করেছে, যা গ্রহণযোগ্য নয়।

দেশের লেভেল ক্রসিংগুলোতে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটছে। চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন লেভেল ক্রসিংয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন অনেকেই। আর গত ১০ বছরে মারা গেছেন তিনশর বেশি মানুষ। কেবল যে অবৈধ লেভেল ক্রসিংয়েই দুর্ঘটনা, প্রাণহানি ও সম্পদহানি ঘটছে তা নয়; বৈধ ক্রসিংগুলোতেও হরহামেশা ঘটছে দুর্ঘটনা। জানামতে, দেশে ৪ হাজার ১৩ কিলোমিটার রেলপথে ২ হাজার ৮৫৬টি লেভেল ক্রসিং রয়েছে। এর মধ্যে ১ হাজার ৩৬১টির অনুমোদন নেই। অন্যদিকে ১ হাজার ৪৯৫টি লেভেল ক্রসিং বৈধ হলেও এর ৬৩২টিতে নেই কোনো গেটকিপার।

দেশের লেভেল ক্রসিংগুলো অবশ্যই সুরক্ষিত করতে হবে। বছরের পর বছর ধরে লেভেল ক্রসিং দুর্ঘটনায় বিপুলসংখ্যক মানুষ হতাহত হওয়ার পাশাপাশি সম্পদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো পরস্পরের ওপর দোষ চাপিয়ে দায়িত্ব শেষ করছে। লেভেল ক্রসিংগুলো কেন নিরাপদ করা যাচ্ছে না এবং অবৈধগুলো কেন বন্ধ করা হচ্ছে না-এ প্রশ্নের সদুত্তর খোঁজা জরুরি। বিশ্বে লেভেল ক্রসিংজনিত দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে এক নম্বরে রয়েছে বাংলাদেশ এবং রেল দুর্ঘটনার প্রায় ৯৫ শতাংশই ঘটছে এসব ক্রসিংয়ে। এর একটি কারণ, অন্তত ৮৫ শতাংশ বৈধ লেভেল ক্রসিংয়ে কোনো প্রহরী নেই। অবৈধগুলোর অবস্থা তো আরও ভয়াবহ; সেগুলোয় কোনো প্রতিবন্ধক দণ্ড পর্যন্ত নেই! অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংগুলোয় নামকাওয়াস্তে একটি নোটিশ টাঙিয়ে দায়িত্ব শেষ করেছে রেল বিভাগ। এটি অগ্রহণযোগ্য। লেভেল ক্রসিংয়ে ৯৫ শতাংশ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী সেখানে কোনো প্রহরী না থাকা-এ কথা যেমন সত্য; তেমনি এক্ষেত্রে পথচারী ও বাস-ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহনের চালকরাও তাদের দায় এড়াতে পারেন না। দুর্ঘটনা রোধে ও ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে লেভেল ক্রসিংগুলো অবশ্যই সুরক্ষিত করতে হবে। লেভেল ক্রসিং অতিক্রমকারীদেরও আরও সচেতন ও সতর্ক হওয়া উচিত।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন