আবারও জঙ্গিবিরোধী অভিযান

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স অব্যাহত থাকুক

  যুগান্তর ডেস্ক ১৪ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নাখালপাড়ায় জঙ্গিবিরোধী অভিযানের একটি দৃশ্য
নাখালপাড়ায় জঙ্গিবিরোধী অভিযানের একটি দৃশ্য

নাখালপাড়ায় খোদ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পেছনে জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের অভিযানে তিন জঙ্গি নিহত হয়েছে। জনবহুল একটি এলাকার এমন একটি বাড়িতে তেমন ক্ষয়ক্ষতি ছাড়া সফল জঙ্গিবিরোধী অভিযান প্রশংসার দাবি রাখে। কিন্তু একই বাড়িতে ২০১৩ ও ২০১৬ সালে অভিযান চালানোর পরও সেখানে জঙ্গি আস্তানা থাকে কীভাবে- এমন প্রশ্ন তোলা অযৌক্তিক হবে না। আরও উদ্বেগের বিষয়, বাড়িটির মালিক বাংলাদেশ বিমানের স্টুয়ার্ড সাব্বির হোসেন, কেয়ারটেকার ও মেস ম্যানেজার কোনো ধরনের সহায়তা করেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। ফলে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে, যাতে করে অন্য বাড়ির মালিকরা ভাড়াটিয়া সম্পর্কে আরও বেশি সচেতন হয়।

জানা যায়, রুবি ভিলা নামের বাড়িটিতে থাকা জঙ্গিদের বড় ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা ছিল। গ্যাসের চুলায় গ্রেনেড বিস্ফোরণের চেষ্টা করে তার প্রমাণই তারা দিয়েছে; কিন্তু র‌্যাব চৌকসভাবে গ্যাস লাইন কেটে দেয়ায় বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতির শিকার হতে হয়নি। এ যাত্রায় বড় সমস্যা না হলেও মনে রাখতে হবে জঙ্গিরা বসে নেই। তারা যেন কোনোভাবেই সংগঠিত হয়ে বড় ধরনের নাশকতা করতে না পারে সেদিকে নিবিড় মনিটরিং থাকতে হবে। নীতিনির্ধারণী মহল থেকে অবশ্য জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নেয়া হয়েছে। সে মোতাবেক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, বিশেষত র‌্যাব অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। গত ১২ মাসে ৩৬টি অভিযানে শতাধিক জঙ্গির প্রাণ হারানো ও ৬০ জনের বেশি গ্রেফতার হওয়ার ঘটনা তারই নজির। এ ধরনের অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে।

২০১৬ সালের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় অনেক বিদেশি নাগরিকের প্রাণ হারানোর পর সরকার নড়েচড়ে বসে। তবে বিভিন্ন জঙ্গি হামলার মাস্টারমাইন্ড জিয়া এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। তাকেসহ ভয়ঙ্কর অন্য জঙ্গিদের আটকের জন্য জোরালো উদ্যোগ নিতে হবে। সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতের হাতছানি পেছনে ফেলে আমাদের কিছু তরুণের জঙ্গি হয়ে পড়া দুর্ভাগ্যজনক যেমন, তেমনই উদ্বেগেরও। কেবল অভিযানের মাধ্যমে এ প্রবণতা রোধ করা যাবে না। এজন্য জঙ্গিবিরোধী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। নাখালপাড়ার ঘটনায় বাড়ির মালিক, কেয়ারটেকার ও অন্যদের সহায়তা না করা থেকে স্পষ্ট যে, কিছু মানুষ জঙ্গিবাদের মতো ঘৃণিত অপরাধের ক্ষেত্রেও নির্বিকার অথবা জঙ্গিদের সহযোগী। ফলে সবাই যেন সচেতনভাবে জঙ্গিবাদবিরোধী অবস্থান নেয় পরিবার, প্রশাসন ও রাষ্ট্রের সব পর্যায় থেকে তা নিশ্চিত করতে হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter