শিল্পে গ্যাস সংযোগ

দ্রুত বিতরণ লাইন নির্মাণের উদ্যোগ নিন

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গ্যাস সংযোগ
ফাইল ছবি

গ্যাস সংযোগের অনুমোদন পাওয়ার দীর্ঘদিন পরও বিতরণ বা সার্ভিস লাইন নির্মাণ না করার বিষয়টি উদ্বেগজনক। এর ফলে কেবল শিল্পকারখানার মালিক ও উদ্যোক্তারাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন না, একইসঙ্গে সরকারও বিপুল অঙ্কের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ছে।

জানা গেছে, সরকার ২০১৭ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি এক আদেশে দেশের ২২০টি কোম্পানিতে গ্যাস সংযোগের অনুমোদন দেয়। এর আগে আরও সাড়ে ৫শ’র মতো শিল্পপ্রতিষ্ঠানে গ্যাস সংযোগের অনুমোদন দেয়া হলেও বিতরণ লাইনের অভাবে ওই দুই তালিকার অধিকাংশ শিল্পপ্রতিষ্ঠানে গ্যাস সংযোগ দেয়া সম্ভব হয়নি।

এরই মধ্যে এলএনজি আমদানি সামনে রেখে আরও ২ হাজারের বেশি শিল্পকারখানাকে গ্যাস সংযোগের অনুমোদন দেয়া হয়েছে, যাদের অধিকাংশেরই বিতরণ লাইন নেই। দীর্ঘ ২০ মাস অতিবাহিত হলেও সরকারের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান কেন বিতরণ লাইন নির্মাণ করেনি কিংবা শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলো নিজস্ব অর্থায়নে বিতরণ লাইন নির্মাণের অনুমতি চাইলেও অনুমোদন কেন দেয়া হয়নি- এ প্রশ্নের জবাব কী?

দুঃখজনক হল, বিতরণ লাইন না থাকায় একদিকে অনুমোদন পেয়েও সংশ্লিষ্ট গ্রাহকরা গ্যাস পাচ্ছেন না, অন্যদিকে সরকার উচ্চমূল্যের এলএনজি (তরল প্রাকৃতিক গ্যাস) আমদানি করে তা বিক্রি করতে পারছে না এবং এর ফলে সরকারের বিপুল পরিমাণ অর্থ গচ্চা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, এলএনজিবাহী প্রথম জাহাজ দেশে পৌঁছার পর গত রোববার ১ লাখ ৩৮ হাজার ঘনমিটার এলএনজি নিয়ে দ্বিতীয় জাহাজটি মহেশখালীর মাতারবাড়ি টার্মিনালে ভিড়েছে। সব ধরনের প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও মাঠপর্যায়ে পর্যাপ্ত পাইপলাইন, সঞ্চালনলাইন ও অবকাঠামো না থাকায় এলএনজি সরবরাহ করা যাচ্ছে না।

এর ফলে শত শত কোটি টাকার গ্যাস নষ্ট হচ্ছে। বলার অপেক্ষা রাখে না, অনুমোদনপ্রাপ্ত শিল্পপ্রতিষ্ঠানের আঙিনা পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ লাইন নির্মাণ অথবা শিল্পকারখানাগুলোর নিজস্ব অর্থায়নে নির্মাণের অনুমতি দিলে এলএনজি সরবরাহ নিয়ে এমন বিপাকে পড়তে হতো না। আমরা মনে করি, এজন্য সংশ্লিষ্টদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা উচিত।

দেখা যাচ্ছে, সরকার ব্যবসাবান্ধব হলেও দেশের গ্যাস ও জ্বালানি খাতের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান পেট্রোবাংলা যেন তার উল্টো পথে হাঁটছে। এর পেছনে সুগভীর কোনো ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা দরকার। অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল করতে হলে অবশ্যই বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে।

বেসরকারি খাতে আশানুরূপ বিনিয়োগ না হওয়ার অন্যতম কারণ চাহিদা অনুযায়ী শিল্পকারখানায় গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ না পাওয়া। অনেক উদ্যোক্তা শিল্প স্থাপন করে বিদ্যুৎ ও গ্যাসের অভাবে সেগুলো চালু করতে পারছেন না, যা মেনে নেয়া কষ্টকর। দেশের উন্নয়নে মন্থরগতি বা স্থবিরতার কারণ অনুসন্ধান করেছেন অনেকে।

সুপরিকল্পিত উন্নয়ন প্রক্রিয়ার আওতায় বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ তথা অবকাঠামোগত উন্নয়ন ঘটিয়ে দেশের বিপুল জনগোষ্ঠীর দক্ষতা কাজে লাগানো সম্ভব হলে আমাদের উন্নয়নের স্বপ্ন বাস্তবে রূপলাভ করবে, এতে কোনো সন্দেহ নেই।

বস্তুত নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ও গ্যাস সরবরাহে এবং রেল, সড়ক ও নৌপথের যথাযথ উন্নয়নে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে বেসরকারি খাতের উদ্যোক্তাদের মুনাফা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়তে হবে না। এর ফলে তারা দেশে নতুন নতুন বিনিয়োগে আগ্রহী হবেন, তা বলাই বাহুল্য। দেশে শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধিকল্পে গ্যাস সংযোগের অনুমোদন পাওয়া শিল্পকারখানায় অতি দ্রুত বিতরণ বা সার্ভিস লাইন নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হবে, এটাই প্রত্যাশা।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter