রংপুর-৪: জোট-মহাজোটের প্রার্থী চূড়ান্ত না হওয়ায় উৎকণ্ঠা

  কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি ২৪ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুর
ছবি: যুগান্তর

জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে বিভিন্ন জেলা নির্বাচনী জ্বরে কাঁপলেও উত্তাপ নেই রংপুর জেলার দুই উপজেলা নিয়ে গঠিত রংপুর-৪ (কাউনিয়া-পীরগাছা) আসনে।

হাট-বাজার, চায়ের দোকানে তরুণ-বৃদ্ধ, নবীন-প্রবীণ সবার মুখে মুখে ভোটালাপ চললেও জোট-মহাজোটের কবলে সংগঠনগুলোর প্রার্থী চূড়ান্ত না হওয়ায় উদ্বিগ্ন-উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে নেতাকর্মীসহ সাধারণ ভোটারের মধ্যে।

আসনটিতে সম্ভাব্য প্রার্থীর সংখ্যা বেশি হলেও আলোচনায় মূলত তিনটি সংগঠনের দেশের বিশিষ্ট চার ব্যবসায়ীর নাম বেশি আলোচিত।

মাঠে স্বরগরম বা ভোটের হাওয়ার গণসংযোগ দৃশ্যমান নয় কারণ হিসেবে প্রতিটি দলের নেতারাই দলীয় প্রধানের নির্দেশের অপেক্ষায় আছেন।

এদিকে ক্ষমতার বাইরে থাকলেও উজ্জীবিত হওয়ার চেষ্টায় বিএনপি আর আসন ফেরাতে মরিয়া জাতীয় পার্টি, অন্যদিকে শক্ত অবস্থানে বেশ ভালোই রয়েছে আওয়ামী লীগ।

এ নিয়ে গোটা এলাকায় চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ ও নানা জল্পনা-কল্পনা। কে হচ্ছেন কোন দলের প্রার্থী? তথ্যসূত্রে জানা গেছে, ১৯৭৩ সালে এ আসনে নির্বাচিত হয়েছিলেন ভাষা সৈনিক আওয়ামী লীগের শাহ্ আবদুর রাজ্জাক, ১৯৭৯ সালে বিএনপির রহিম উদ্দিন ভরসা, ১৯৮৬ ও ১৯৮৮ সালে জাতীয় পার্টির শাহ্ আলম, ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে জাতীয় পার্টির করিম উদ্দিন ভরসা এবং ২০০৮ ও ২০১৪ সালে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি।

এ ব্যাপারে কাউনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ. হান্নান জানান, এলাকা দীর্ঘদিন অবহেলিত ও উন্নয়নবঞ্চিত ছিল।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুনশি এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর গত ১০ বছরে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, অর্থনৈতিক, সামজিক, যোগাযোগ, বিদ্যুৎসহ নানা খাতে প্রতিশ্র“তি মোতাবেক ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন।

সে বিবেচনায় উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারও তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন বলে আমরা আশাবাদী।

আর জাতীয় পার্টির কাউনিয়া উপজেলার আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট শাহীন সরকার জানান, রংপুর মানে ‘জাতীয় পার্টি-এরশাদ-লাঙ্গল’ এক সময় এখানে করিম উদ্দিন ভরসা অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন।

সে সময় তিনি এলাকায় স্বাস্থ্য-শিক্ষা, কৃষি, অসংখ্য মসজিদ-মন্দির, রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ, ব্রিজ-কালভার্ট নির্মাণসহ সার্বিক উন্নয়ন করেছেন। যার সুফল দুই উপজেলার মানুষ এখনও ভোগ করছেন।

এরশাদপ্রীতি ও সংগঠনের ঐক্যবদ্ধতার কারণে এ আসনে আমরা যথেষ্ট শক্তিশালী। আগামী নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী উত্তরসূরি হিসেবে সিরাজুল ইসলাম ভরসা বা নতুন মুখ মোস্তফা সেলিম বেঙ্গল যে কেউ লাঙ্গল প্রতীকে অংশগ্রহণ করবেন তাকেই মানুষ বিশাল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করবে।

অপরদিকে কাউনিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম শফি জানান, দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা ও গত নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা এবং প্রতিকূল রাজনৈতিক পরিস্থিতির মাঝেও আমরা উজ্জীবিত। এলাকার মানুষ এখন বিএনপির দিকে তাকিয়ে, তারা পরিবর্তন চায়।

আসনটিতে সাবেক সংসদ সদস্য রহিম উদ্দিন ভরসার ছেলে কাউনিয়া উপজেলার সভাপতি এমদাদুল হক ভরসাকে দলের কাণ্ডারি হিসেবে মনোনীত প্রার্থী করলে অথবা যাকেই দল ধানের শীষ প্রতীক দেবে যদি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয় তবে ধানের শীষের বিজয় সুনিশ্চিত।

ঘটনাপ্রবাহ : রংপুর-৪: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×