নরসিংদী-১: জেল-কোর্টে ব্যস্ত বিএনপি আ’লীগের দখলে মাঠ
jugantor
নরসিংদী-১: জেল-কোর্টে ব্যস্ত বিএনপি আ’লীগের দখলে মাঠ

  নরসিংদী প্রতিনিধি  

১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নরসিংদী-১: জেল-কোর্টে ব্যস্ত বিএনপি আ’লীগের দখলে মাঠ

নির্বাচনের আর মাত্র বাকি ১৫ দিন। কিন্তু নির্বাচনের উত্তাপ নেই নরসিংদী-১ (সদর) আসনে। তবে রাজপথ আকড়ে ধরে মিটিং-মিছিল, গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী। ভোটারদের বাড়ি বাড়ি ঘুরে নৌকার জন্য ভোট প্রার্থনা করছেন প্রার্থী ও আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

তবে মাঠে নেই বিএনপি। দলীয় নেতাকর্মীদের জামিনে মুক্ত করতে কারাগার ও আদালত চত্বরেই তাদের দিন কেটে যাচ্ছে। সদর আসনের বিএনপি প্রার্থী খায়রুল কবির খোকন, থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম, যুবদল সভাপতি মহসিন হুসাইন বিদ্যুৎসহ বিএনপির প্রায় ৫ শতাধিক নেতাকর্মী কারাগারে রয়েছেন।

মামলা ও গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে বেশিরভাগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। তাই নির্বাচনের মাঠে প্রচারণায় নামতে পারছে না বিএনপি নেতাকর্মীরা। ভোটাররা বলছে, এবার একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ফাঁকা মাঠে গোল দেবে আওয়ামী লীগ।

নরসিংদী-১ (সদর) আসনটি দুইটি পৌরসভা ও নয়টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এই আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৮০ হাজার ৩০ জন। এই আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) নজরুল ইসলাম হিরু।

বিএনপির ধানের শীষ নিয়ে লড়ছেন দলটির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দলের প্রার্থী হাত-পাখা নিয়ে লড়ছেন আশরাফ হোসেন ভূঁইয়া। বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল থেকে মই নিয়ে লড়ছেন মোবারক হোসেন আকন্দ।

গণফ্রন্টের জাকির হোসেন (মাছ)। জাকের পার্টি থেকে গোলাপ ফুল নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আরিফুল ইসলাম ভূঁইয়া। এই আসনে একাধিক প্রার্থী থাকলেও মূলত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে নৌকা ও ধানে শীষের প্রার্থীর মধ্যে।

সদর আসনে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, মিটিং, মিছিল, গণসংযোগ, ওঠান বৈঠকসহ প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন আওয়ামী লীগ। শহরজুড়ে সাঁটানো হয়েছে পোস্টার। চলছে মাইকিং।

এর উল্টো চিত্র বিএনপি দুর্গের। কোথাও কোথাও পোস্টার বা মাইকিং চোখে পড়লেও গণসংযোগ বা প্রচারণায় দেখা মেলেনি বিএনপি নেতাকর্মীদের। বীরপুর এলাকার বয়োবৃদ্ধ ভোটার রাম চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, এবারের নির্বাচনে উৎসবের আমেজটা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে আমাদের দাবি একটাই, আমরা যেন নিরাপদে ভোট দিয়ে বাড়ি আসতে পারি।

বিএনপি প্রার্থী খোকনের স্ত্রী শিরিন সুলতানা বলেন, প্রচারণায় নামলেই বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করছে পুলিশ। সারাক্ষণ আমার বাসার সামনে পুলিশ ও ডিবি পুলিশ বসে থাকে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী লে. কর্নেল (অব.) মো. নজরুল ইসলাম হিরু তার বক্তব্যে বলেন, নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিএনপি মাঠ ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করছে।

নরসিংদী-১: জেল-কোর্টে ব্যস্ত বিএনপি আ’লীগের দখলে মাঠ

 নরসিংদী প্রতিনিধি 
১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
নরসিংদী-১: জেল-কোর্টে ব্যস্ত বিএনপি আ’লীগের দখলে মাঠ
খায়রুল কবীর খোকন ও নজরুল ইসলাম হিরু। ছবি: যুগান্তর

নির্বাচনের আর মাত্র বাকি ১৫ দিন। কিন্তু নির্বাচনের উত্তাপ নেই নরসিংদী-১ (সদর) আসনে। তবে রাজপথ আকড়ে ধরে মিটিং-মিছিল, গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী। ভোটারদের বাড়ি বাড়ি ঘুরে নৌকার জন্য ভোট প্রার্থনা করছেন প্রার্থী ও আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

তবে মাঠে নেই বিএনপি। দলীয় নেতাকর্মীদের জামিনে মুক্ত করতে কারাগার ও আদালত চত্বরেই তাদের দিন কেটে যাচ্ছে। সদর আসনের বিএনপি প্রার্থী খায়রুল কবির খোকন, থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম, যুবদল সভাপতি মহসিন হুসাইন বিদ্যুৎসহ বিএনপির প্রায় ৫ শতাধিক নেতাকর্মী কারাগারে রয়েছেন।

মামলা ও গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে বেশিরভাগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। তাই নির্বাচনের মাঠে প্রচারণায় নামতে পারছে না বিএনপি নেতাকর্মীরা। ভোটাররা বলছে, এবার একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ফাঁকা মাঠে গোল দেবে আওয়ামী লীগ।

নরসিংদী-১ (সদর) আসনটি দুইটি পৌরসভা ও নয়টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এই আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৮০ হাজার ৩০ জন। এই আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) নজরুল ইসলাম হিরু।

বিএনপির ধানের শীষ নিয়ে লড়ছেন দলটির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দলের প্রার্থী হাত-পাখা নিয়ে লড়ছেন আশরাফ হোসেন ভূঁইয়া। বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল থেকে মই নিয়ে লড়ছেন মোবারক হোসেন আকন্দ।

গণফ্রন্টের জাকির হোসেন (মাছ)। জাকের পার্টি থেকে গোলাপ ফুল নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আরিফুল ইসলাম ভূঁইয়া। এই আসনে একাধিক প্রার্থী থাকলেও মূলত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে নৌকা ও ধানে শীষের প্রার্থীর মধ্যে।

সদর আসনে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, মিটিং, মিছিল, গণসংযোগ, ওঠান বৈঠকসহ প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন আওয়ামী লীগ। শহরজুড়ে সাঁটানো হয়েছে পোস্টার। চলছে মাইকিং।

এর উল্টো চিত্র বিএনপি দুর্গের। কোথাও কোথাও পোস্টার বা মাইকিং চোখে পড়লেও গণসংযোগ বা প্রচারণায় দেখা মেলেনি বিএনপি নেতাকর্মীদের। বীরপুর এলাকার বয়োবৃদ্ধ ভোটার রাম চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, এবারের নির্বাচনে উৎসবের আমেজটা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে আমাদের দাবি একটাই, আমরা যেন নিরাপদে ভোট দিয়ে বাড়ি আসতে পারি।

বিএনপি প্রার্থী খোকনের স্ত্রী শিরিন সুলতানা বলেন, প্রচারণায় নামলেই বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করছে পুলিশ। সারাক্ষণ আমার বাসার সামনে পুলিশ ও ডিবি পুলিশ বসে থাকে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী লে. কর্নেল (অব.) মো. নজরুল ইসলাম হিরু তার বক্তব্যে বলেন, নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিএনপি মাঠ ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করছে।