রাজশাহী-৫: ফাঁকা মাঠে সক্রিয় আওয়ামী লীগ

আইনি বাধায় নিষ্ক্রিয় বিএনপি

  কেএম রেজা, পুঠিয়া ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী-৫: ফাঁকা মাঠে সক্রিয় আওয়ামী লীগ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনে বর্তমানে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা. মনসুর রহমান দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ভোটের মাঠ সরগরম রেখেছেন।

তিনি প্রতিদিন কাক ডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চষে বেড়াচ্ছেন নির্বাচনী এলাকা। অপরদিকে বিএনপির দু’জন প্রার্থী নিজেদের মধ্যে প্রতীক নিয়ে আইনি জটিলতার কারণে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছেন।

বিএনপির তৃণমূল নেতাকর্মীরা দুঃখ প্রকাশ করে বলছেন, ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে দু’প্রার্থীর দ্বন্দ্বের কারণে আবারও এই আসনটি আ’লীগের দখলে চলে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তবে অন্য দল তাদের সাধ্যমতো প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জানা গেছে, পুঠিয়া-দুর্গাপুর আসনে মোট ৫ জন দলীয় প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হচ্ছেন- আ’লীগ মনোনীত (নৌকা) প্রার্থী ডা. মনসুর রহমান, বিএনপির মনোনীত (ধানের শীষ) নাদিম মোস্তফা-নজরুল ইসলাম মণ্ডলের মধ্যে আইনি জটিলতায় প্রতীক স্থগিত রয়েছে।

অধ্যাপক আবুল হোসেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী (হাত পাখা) রুহুল আমীন ও জাকের পার্টির প্রার্থী শফিকুল ইসলাম (গোলাপ ফুল) নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মূল লড়াই হবে আ’লীগ-বিএনপির মধ্যে।

তবে আইনি জটিলতার কারণে বর্তমানে বিএনপির প্রচার-প্রচারণা বন্ধ রয়েছে।

নির্বাচনের মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, আ’লীগ প্রার্থী ডা. মনসুর রহমান দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে দলের বিভক্তি মিটিয়ে নেতাকর্মীদের চাঙ্গা রেখেছেন। প্রায় সব এলাকায় ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা-সমাবেশ ও প্রচার-প্রচারণার দিক দিয়ে এখনও পর্যন্ত তিনিই এগিয়ে রয়েছেন।

ডা. মনসুর রহমান বলেন, আমি চিকিৎসক হিসেবে যেমন রোগীদের সেবা করে আসছি, তেমন জনগণের ভোটে এমপি নির্বাচিত হয়ে সব সময় সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে চাই। আমার চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই।

অপরদিকে প্রায় একযুগ নিষ্ক্রিয় থাকার পর ভোটের মাধ্যমে আবারও সক্রিয় হয়ে উঠেছিল বিএনপির নেতাকর্মীরা। প্রাথমিকভাবে দল থেকে চারজন প্রার্থীকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়।

এদের মধ্যে প্রথমেই ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের দিন তথ্য গোপন ও ঋণ খেলাপির কারণ দেখিয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা নাদিম মোস্তফার মনোনয়ন বাতিল করেন।

এর কারণে নবম জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচনে বিএনপির দলীয় প্রার্থী নজরুল ইসলাম মণ্ডলকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়। পরে নাদিম মোস্তফা আপিলে প্রার্থিতা ফিরে পেলে দল থেকে তাকেই চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন।

তিনি প্রতীক পাওয়ার পর প্রচার-প্রচারণায় নেতাকর্মীদের নিয়ে নির্বাচনের মাঠে নামেন। তিনি মাঠে নামার পর থেকে দীর্ঘদিন কোণঠাসা থাকা দলীয় নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হতে থাকেন।

তবে দলীয় মনোনয়ন জমা দেয়ার পর নজরুল ইসলাম মণ্ডলকে বাতিল করে নাদিম মোস্তফাকে দলীয় প্রতীক দেয়ায় তিনি হাইকোর্টে রিট করেন।

তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত নাদিম মোস্তফার প্রার্থিতা বাতিল করে নজরুল ইসলাম মণ্ডলকে দলীয় প্রতীক বরাদ্দ দিতে নির্দেশ দেন। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আবারও বিএনপির নেতাকর্মীরা ভোটের মাঠ ছেড়ে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েন।

আপিলের মাধ্যমে প্রার্থিতা ফিরে পেতে বর্তমানে নাদিম মোস্তফা ঢাকায় রয়েছেন। এদিকে রায়ের কপি না পাওয়ায় এখনও দলীয় প্রতীক পায়নি নজরুল ইসলাম মণ্ডল।

ঘটনাপ্রবাহ : রাজশাহী-৫: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×