বিচ্ছিন্ন ঘটনায় নেত্রকোনায় শান্তিপূর্ণ ভোট

  নেত্রকোনা প্রতিনিধি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নেত্রকোনার পাঁচটি আসনেই উৎসবমুখর পরিবেশে রোববার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা সদর ও কয়েকটি উপজেলায় কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। জেলা শহরের নাগড়া পথকুলি বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে স্থানীয় কিছু যুবকের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সহায়তায় পরিস্থিতি শান্ত হয়। পুলিশ খালিয়াজুরী উপজেলার পাঁচহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ থেকে বিএনপি কর্মী আবদুল মোমেন ও বুলবুল মিয়াকে জাল ভোট গ্রহণের অভিযোগে আটক করেছে। বেলা ৩টার দিকে বিএনপি প্রার্থী নেত্রকোনা-৩ আসনের ড. রফিকুল ইসলাম হিলালী ও নেত্রকোনা-৫ আসনের আবু তাহের তালুকদার নির্বাচন বর্জন করেছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

সরেজমিন দেখা গেছে, সকালে ভোটারের উপস্থিতি কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। জেলা শহরের কাটলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দত্ত উচ্চ বিদ্যালয়, কাকলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মেদনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আটপাড়ার আইমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মোহনগঞ্জের পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ ঘুরে দেখা গেছে, ওই সব ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি। তবে অধিকাংশ কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্টদের উপস্থিতি ছিল কম। নেত্রকোনা-৪ (মদন-মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী) আসনে বিএনপি দলীয় প্রার্থী তাহমিনা জামান শ্রাবণী সাংবাদিকদের জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জেলার খালিয়াজুরীর পাঁচহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে একদল দুর্বৃত্ত বিএনপি দলীয় প্রার্থীর এজেন্টদের ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়। এ সময় ভোট কেন্দ্রে কিছুটা উত্তেজনা দেখা দেয়। পুলিশ উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুর রউফ স্বাধীনের ভাই আবদুল মোমেন ও এজেন্ট বুলবুল মিয়াকে আটক করে নিয়ে যায়। খালিয়াজুরী থানার ওসি হযরত আলী আটকের ঘটনা অস্বীকার করেন। তিনি আরও জানান, মোহনগঞ্জ ও খালিয়াজুরীতে সকাল ৯টার দিকে সব এজেন্টকে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। খালিয়াজুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া জব্বার কেন্দ্র থেকে বিএনপি দলীয় এজেন্ট বের করে দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ১০ বছর ভোটাররা ভোট দিতে পারেনি। তরুণ প্রজন্ম এবার নতুন ভোটার হয়েছে। বিএনপি যেসব অভিযোগ করছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। এদিকে জেলা শহরের নাগড়া পথকুলি বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে সাতপাই ও নাগড়া এলাকার কিছু যুবকের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে নেত্রকোনা পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর গোলাম মোস্তফা, ছাত্রদল নেতা দুলন, হৃদয়, সুমন, সুজন, আবদুন নূরসহ কমপক্ষে সাতজন আহত হয়েছেন। তাদের নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এদিকে নেত্রকোনা-১ (কলমাকান্দা-দুর্গাপুর) আসনে বিএনপি দলীয় প্রার্থী কেন্দ ীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল সাংবাদিকদের অভিযোগ করে জানান, ওই আসনে ভোট কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের জোর বের করে দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ সময় উপজেলা মহিলা দলের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কলি আক্তার এসব ঘটনার প্রতিবাদ করায় তাকে পুলিশ আটক করে। নেত্রকোনা-৩ (আটপাড়া- কেন্দুয়া) আসনের বিএনপি দলীয় প্রার্থী ড. রফিকুল ইসলাম হিলালী অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচনী এলাকার বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। নেত্রকোনা জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম বলেন, যেসব কেন্দ্র থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে, সেসব কেন্দ্রে ম্যাজিস্ট্রেট পাঠিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×