ইতালি, কানাডা ও প্যারিসে প্রবাসীদের তুষার ভ্রমণ

  যুগান্তর ডেস্ক    ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ইতালি

ইতালির রোমে যুব উন্নয়ন ব্যবসায়ী সমিতির উদ্যোগে তুষার ভ্রমণ হয়ে গেল। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে আটায় রওনা হয়ে সন্ধ্যায় শীতকালীন তুষার ভ্রমণ শেষ হয়। যুব উন্নয়ন সমিতির সভাপতি মাফিজুল ইসলাম রাসেল বলেন, কর্ম ব্যস্ততায় যখন ডুবে থাকি মনের মাঝে এক প্রকার একঘেয়ামি চলে আসে। এটা দূর করতে যুব উন্নয়ন ব্যবসায়ী সমিতি এই আয়োজনের ব্যবস্থা করে। সবার সহযোগিতায় আনন্দ দেয়ার চেষ্টা করেছি। এর ভালো-মন্দ আপনারা বলবেন। ভ্রমণের স্থান কামপো ফেলিছে। এটি ইতালির আলোচিত ভূমিকম্প এলাকা লা কুইলা জোনে অবস্থিত। রোম থেকে প্রায় একশ কি. দূরে। প্রতিদিন ইতালিয়ানসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা নয়নাভিরাম স্থানটি দেখতে ভিড় জমান। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশিরা কর্মব্যস্ততার মাঝে একটু স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে ফ্যামিলিসহ দল বেধে ছুটে যান। এসময় যুব উন্নয়ন ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাহবুর রহমান বলেন, যুব উন্নয়নের কাজ যুবকদের আনন্দ দেয়া। তাই সবার সার্বিক সহযোগিতায় সুন্দর এই উদ্যোগ বাস্তবে রূপ দেয়া সম্ভব হয়েছে। তুষার ভ্রমণে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহসভাপতি ওসমান গনি, সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম শিপন, মোস্তাফিজুর রহমান, সফিকুল ইসলাম সফিক, আবু আহমেদ শহিদুল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক সানাউল্লাহ তুহিন, দফতর সম্পাদক খোকন মোল্লা, সহদফতর সম্পাদক, আরিখ চৌধূরী, কোষাধ্যক্ষ মহি উদ্দিন, সহ কোষাধ্যক্ষ, এমডি ইয়াছিন, সহ প্রচার সম্পাদক, ওলিউল্লাহ সোহাগ প্রমুখ। জমির হোসেন, ইতালি থেকে

প্যারিস

শীতের শেষ সময়ে তুষারপাত হল প্যারিসে। সাংস্কৃতিক রাজধানী খ্যাত শহর প্যারিসে এ নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো তুষারপাত হল এ বছর। তবে আবহাওয়ার পূর্বাবাসে বলা আছে এই সপ্তহ জুড়েই তুষারপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া দফতর থেকে বলা হয়েছে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে শীতের শেষ সময়ে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা এবং তুষারপাত হচ্ছে। তুষারপাতের ফলে শীতের প্রকোপ বাড়বে এবং প্রচণ্ড ঠাণ্ডা অনুভূত হবে। কখনও কখনও দিন এবং রাতের কোনো একটা সময় তাপমাত্রা মাইনাসও হতে পারে।

ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে তুষার উপভোগের নানা স্থিরচিত্র। আবার কেউ কেউ ফেসবুক লাইভে এসে উচ্ছ্বাসও দেখিয়েছেন। ডাক্তাররা বলছেন, প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাহিরে না যেতে কারণ হঠাৎ করে পড়া এই ঠাণ্ডায় যে কোনো রোগ বালাই হতে পারে, যেমন সর্দি কাশি কিংবা জ্বর। তবে প্রয়োজনে বের হলে গরম কাপড় কিংবা প্রর্যাপ্ত প্রস্তুত নিয়ে বের হওয়া উচিত। ফয়সাল আহাম্মেদ দ্বীপ, প্যারিস থেকে

কানাডা

শীতপ্রধান কানাডায় উইন্টার স্পোর্টস খুব জনপ্রিয়। এই দেশে শীতের প্রকোপ বেশি থাকায় মানুষ এই স্পোর্টসগুলোর দিকে ঝুঁকে পড়ে। শীতের ভয়ে এই দেশে মানুষ ঘরে বসে থাকে না। এমনকি বরফের নদীতে ক্যাম্পাইন করতে বেরোয়। কয়েকদিন তাঁবু করে বরফের নদীতে কাটিয়ে দেয়। কানাডার মানুষের কাছে এমন একটি প্রিয় জায়গা ম্যানিটোবা প্রভিন্সের ফরক্স। এটি রেড রিভার আর এসিনোবয়েন নদীর মিলন স্থল। রেড রিভার নদীটি কানাডা এবং আমেরিকার ওপর দিয়ে বয়ে গেছে। দুই দেশ মিলে নদীটির দৈর্ঘ্য ৮৮৫ কিলোমিটার। অন্যদিকে এসিনোবয়েন নদীর দৈর্ঘ্য ১০৭০ কিলোমিটার।

রেড রিভার এবং এসিনোবয়েন নদীর মিলনস্থল ফরক্স। প্রতি বছর এখানে ৩ কিলোমিটার স্নো ট্রেইল করা হয়। নদীর পানিতে বরফ জমে। তার ওপর রোলার চালিয়ে স্নো ট্রেইল করা হয়েছে। প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মাঝে নদীতে মানুষ হাঁটে, দৌড়ায়, সাইকেল চালায়, স্ক্যাটিং, আইস হকি, কুকুর দিয়ে স্লেজ বানিয়ে ছুঁটে চলে। অনেকে গাড়ি নদীর মাঝে পার্কিং করে। কেউ বরফের মাঝে হোল করে মাছ ধরে। প্রতি বছর এই স্নো ট্রেইল দেখতে বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে হাজার হাজার মানুষ আসে। ফরক্স কানাডিয়ানদের কাছে একটি ঐতিহাসিক জায়গা। আজ থেকে প্রায় ৬ হাজার বছর আগে এখানকার আদিবাসীদের মিটিংয়ের জায়গা ছিল। পরে কলোনিয়াল যুগে ব্রিটিশরা এখানে মিটিং করত। ১৯৭৪ সালে কানাডিয়ান সরকার এই জায়গাটিকে জাতীয় ঐতিহাসিক জায়গা”হিসেবে ঘোষণা করেছে। এই বছর ফেব্র“য়ারি মাসের ৪ তারিখ ফরক্সে ৪০০ লোকের একটি স্ক্যাটিং চেইন করা হয়েছে। এর আগে জাপানে ৩৭০ জন লোকের মানব স্ক্যাটিং চেইন ছিল গ্রিনিজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে সবার উপরে।

মোহাম্মদ সাকিবুর রহমান খান, কানাডা থেকে [email protected]

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter