সংরক্ষিত পাঠক আসন

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে সড়কগুলোরও কিছু দাবি ছিল

  আসিফ আসলাম ২৮ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অন্যের দোষে আমরা দোষী হব না

রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ এলাকার সড়কগুলোর বেশিরভাগ অংশজুড়ে দখল করে থাকে হকাররা। এতে সড়ক প্রশস্ত হওয়া সত্ত্বেও সংকীর্ণ হয়ে যায়। যার ফলে প্রায়ই জ্যাম লেগে যায়, পাঁচ মিনিট হেঁটে পার হওয়া সড়ক গাড়ি করে পার হতে প্রায় আধাঘণ্টা লেগে যায়। জ্যামে আটকে বোর হয়ে যাওয়া যাত্রীরা গালি দিতে থাকে সড়ককে। ‘কচুর সড়ক’, ‘সড়ক তো নয় যেন নরক’ ইত্যাদি বলে। অথচ এতে সড়কের কোনো দোষ নেই। দোষ ছিল হকারদের। তাই নিরাপদ সড়ক দিবসে অযথা অন্যের দোষে গালি খাওয়া থেকে মুক্তির জন্য সড়কগুলো হকারদের সড়ক থেকে উচ্ছেদের দাবি জানিয়েছে।

কানের সুরক্ষা চাই

কথায় আছে, ‘দেয়ালেরও কান আছে’। দেয়াল তৈরি হয় ইট-পাথর দিয়ে, সড়কও তৈরি হয় ইট-পাথর দিয়ে। তাই দেয়ালের কান থাকাটাও অস্বাভাবিক কিছু নয়। এখন সড়কে ওঠামাত্রই হাইড্রোলিক হর্নসহ অন্যান্য বিকট আওয়াজের হর্ন বাজিয়ে সড়কের কানের বারোটা বাজানোর কোনো মানে হয় না। তাই নিরাপদ সড়ক দিবসে সড়কগুলোর পক্ষ থেকে যেখানে-সেখানে অযথা হর্ন না বাজানোর দাবিটা উঠতেই পারে।

সমঅধিকার প্রদান করতে হবে

এ দাবি, ভিআইপি সড়ক ছাড়া অন্য সড়কগুলোরও। তারাও ভিআইপি সড়কগুলোর মতো শুধু গাড়িই বহন করতে চায়। ময়লার ডাস্টবিন, হকারের দোকান ইত্যাদি বহন করতে চায় না এবং ভিআইপি সড়কগুলোর মতো তারাও উন্নত ট্রাফিক সিস্টেমসহ অন্যসব সুযোগ-সুবিধা প্রত্যাশী। তাই তাদের দাবি মহান জাতীয় সড়ক দিবসে সব সড়ককে সমান অধিকার প্রদান করা হোক।

কুড়াতলী, কুড়িল, বিশ্বরোড, ঢাকা

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×