দাওয়াইয়ের নাম হাসি

  গ্রন্থনা : আরিফুল হক ৩০ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এক ইউরোপীয় লোক একদিন চার্চে এক ফাদারের কাছে এসে বললেন, ‘ফাদার, আজ থেকে সত্তর-পঁচাত্তর বছর আগের কথা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলছে। এক লোক জার্মান নাৎসি বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে আমার বাসায় লুকাতে চাইল। আমি তাকে চিলেকোঠায় লুকাতে দিলাম ঠিকই তবে যুদ্ধের দুর্দিনের কথা ভেবে কিছু অর্থ উপার্জনের চিন্তাও করলাম। অর্থাৎ লোকটার আশ্রয়ের বদলে মাসে মাসে টাকা নিতে লাগলাম। লোকটাও উপায় না দেখে রাজি হয়েছিল। আজ এত বছর পর আমার সেই কথা মনে পড়ল। আমার কি পাপ হয়েছে? আমি কি পাপী? প্লিজ বলুন ফাদার।’

ফাদার বললেন, ‘মাই চাইল্ড, তখন যুদ্ধাবস্থা চলছিল। সবাই বিপদে ছিল, কাজেই ওই অবস্থায় কিছু টাকা কামানো এমন কোনো পাপ বলে আমার মনে হয় না। তোমার পাপ হয়নি বাছা।’

‘আহ! আপনি আমায় বাঁচালেন ফাদার। আমার মনের ভার হাল্কা হয়ে গেল। আমি যাই।’

চলে গিয়ে একটু পর লোকটা আবার ফিরে এলেন।

ফাদার বললেন, ‘এখন কি চাও মাই চাইল্ড?’

লোকটা বললেন, ‘ইয়ে মানে ফাদার, আমি কি এখন চিলেকোঠায় গিয়ে লোকটাকে বলে দেব যে যুদ্ধ শেষ হয়ে গেছে?’

*

জীবনে প্রথম জেব্রাকে দেখে এক ঘোড়া প্রশ্ন করল আরেক ঘোড়াকে, ‘ওটা আবার কে?’

‘ওটাও ঘোড়া। জেলখানায় ছিল নিশ্চয়ই। মনে হয় পালিয়েছে, তবে পোশাক পাল্টানোর সময় পায়নি এখনো।’

*

কোচ বলছেন খেলোয়াড়কে, ‘তোমার রুমমেটের কাছে শুনলাম, তুমি নাকি গতকাল ঘুমের মধ্যে আমাকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করছিলে, আর অভিশাপ দিচ্ছিলে? এ কথা কি সত্য?’

খেলোয়াড় : না স্যার, পুরোপুরি সত্য না।

কোচ : তাহলে কতটুকু সত্য?

খেলোয়াড় : আমি ঘুমাচ্ছিলাম- এটা মিথ্যা!

*

এক মিষ্টি বিক্রেতা দোকানে তার ছোট ছেলেকে বসিয়ে জরুরি কাজে বাইরে যাওয়ার আগে বলে গেল সব সময় যেন কুকুরের দিকে নজর রাখে। কারণ মাঝে মাঝেই কুকুর মিষ্টির ট্রে’তে হামলা করে।

যথারীতি দোকানে অনেক লোক মিষ্টি কিনতে এলো আর ছেলেটিও বাবার বলে দেয়া দাম অনুযায়ী মিষ্টি বিক্রি করতে থাকল। এমন সময় এক কাস্টমার পীড়াপীড়ি শুরু করল যে সে মিষ্টি খাবেই কিন্তু দাম আট টাকার বেশি দিতে পারবে না। কিন্তু ছেলেটি দশ টাকার কমে বিক্রি করবে না।

এক পর্যায়ে ছেলেটি বিরক্ত হয়ে বলল, ‘টাকা দেয়া লাগবে না, আপনি খেয়ে ফেলেন। বাবা এলে বলব যে একটা মিষ্টি কুকুর খেয়েছে!’

*

এক লোকের স্ত্রী এক জায়গায় একটা সাইনবোর্ড দেখল। তাতে লেখা- সিল্কের শাড়ি ১০ টাকা। জামদানি শাড়ি ৮ টাকা। এটা দেখে সে তার স্বামীকে বলল, ‘কী বিশাল ডিসকাউন্ট, অবিশ্বাস্য! ডার্লিং, আমাকে ৩০০ টাকা দাও। আমি ২০-৩০টা শাড়ি কিনব।

স্বামী : আরে জান, ওটা তো লন্ড্রির সাইনবোর্ড!

*

মরুভূমিতে এক গাধা আর এক লোকাল বাসের ড্রাইভারের মধ্যে দেখা হল। গাধা জিজ্ঞেস করল, ‘তুই কে রে?’ ড্রাইভার এদিক-ওদিক তাকিয়ে আশপাশে কেউ নেই দেখে গর্বের সঙ্গে বলল, ‘আমি একজন পাইলট! তুই কে?’

গাধাও এদিক-ওদিক তাকিয়ে আশপাশে কেউ নেই দেখে বলল,

‘আমি ঘোড়া!’

আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৫৬ ২৬
বিশ্ব ৯,৬২,৮৮২২,০৩,২৭৪৪৯,১৯১
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×