আষাঢ়ে স্বপ্ন

  কাজী সুলতানুল আরেফিন ১৪ জুলাই ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রোজ সকালে এখন শান্তিতে ঘুমাতে পারি। ঘুম থেকে জেগে ওঠার পর সে হাসি মুখে নাশতা এগিয়ে দেয়। নাশতা খাওয়ার সময় খুব মোলায়েম সুরে বলে,‘ওগো, আজ আর তেমন কিছু লাগবে না! তোমাকে কষ্ট করে বাজারে যেতে হবে না। টুকিটাকি যা লাগবে তা আমি ম্যানেজ করে নেব। তুমি শুধু শুধু টেনশন করো না।’ আহ! তার মিষ্টি সুরে এমনিতেই পেট ভরে গেল। নাশতা পুরোপুরি আর খেতে হল না।

অফিসে যাওয়ার আগে আমার জুতাসহ জরুরি সব কিছু সে গুছিয়ে দিল। বার বার মনে করিয়ে দিল যেন নিজের খেয়াল রাখি। পাশাপাশি অফিসের নারী সহকর্মীদের খেয়াল যেন বেশি বেশি করে রাখি। নারীর প্রতি লক্ষ্য রাখাও এক ধরনের সম্মান।

অফিসে থাকা অবস্থায় সে ফোন করে আমাকে কোনোরকম বিরক্ত করল না। অফিসে থাকা অবস্থায় ঘন ঘন ফোন আসলে কাজে বিঘ্ন ঘটে- এ কথা সে জানে। তবে একবার কল দিয়েছিল শুধু। কোনো কিছু আনার জন্য নয়! আমি ঠিকমতো দুপুরে খাবার খেয়েছিলাম কিনা সেটি জানতে। সন্ধ্যায় অফিস থেকে ফেরার পর এক গ্লাস বেলের শরবত খাইয়ে দিয়ে আমাকে বিশ্রাম নিতে বলল। তারপর আমার হাতে টিভির রিমোট গুঁজে দিয়ে বলল, ‘নাও, খেলা দেখো! খেলাতেই মজা। দেশের খেলা দেখলে দেশপ্রেম বাড়ে।’

আমি তার কাছে জানতে চাইলাম, ‘তুমি সিরিয়াল দেখবে না?’

সে উত্তরে বলল, ‘ওইসব ছাইপাস কেউ দেখে? খালি প্যাঁচ আর প্যাঁচ! দাঁড়িয়ে সবাই শুধু লেকচার দেয়!’

‘আচ্ছা।’ আমি অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকি তার দিকে।

‘এসব সিরিয়াল মানসিকভাবে সুস্থ কোনো মানুষ দেখতে পারে না!’ সে যেন ক্ষোভে ফেটে পড়ল। রাতে খাবার পর আমার মাথার চুলে বিলি কাটতে কাটতে বলল, ‘জান, আজ মা ফোন করেছিলেন বেড়াতে যাওয়ার জন্য। আমি সোজা না করে দিয়ে বলেছি, এত ঘন ঘন বেড়ানোর কী দরকার? তাছাড়া আমি বেড়াতে গেলে তোমার খুব অসুবিধা হয়।’

‘ঠিক বলেছ!’

‘আমি কখনও বেঠিক কিছু বলে তোমার আর তোমার পরিবারের কারো মনে কষ্ট দিতে চাই না!’

‘আচ্ছা, পাশের বাসার ভাবি অনেক দামি একটা নেকলেস পরে আছেন দেখলাম! এটা দেখে তোমার কী মন খারাপ করে না?’

‘ছিঃ ছিঃ এসব কী বল তুমি? যার যার জীবন যার যার মতো। আমরা আমাদের অবস্থা যেমন তেমনই চলব। আর অপরের উদাহরণ আমাকে কখনও দেবে না বলে দিলাম!’

তার কথা আর আদর মাখা পরশে আমার চোখে রাজ্যের ঘুম নেমে এলো।

গভীর ঘুম। যা কিছু টেনশন ছিল নিমিষেই উড়ে চলে গেল। আষাঢ় মাস এলেই আমি নিত্য এমন স্বপ্নের রচনা করি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×