দাওয়াইয়ের নাম হাসি

  গ্রন্থনা : আরিফুল হক ০৪ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

*

রেস্টুরেন্টে বসে একজন খদ্দের ওয়েটারকে ডেকে জানতে চাইলেন, ‘এটা আমাকে কী খেতে দিয়েছ?’

ওয়েটার : কেন স্যার? এটা স্যুপ।

খদ্দের : আমি দুই দিন আগে এটা কী ছিল, জানতে চাইনি। আমি জানতে চাচ্ছি, এখন এটা কী?

*

মফস্বল শহরে বেড়াতে এসে একজন ট্যুরিস্ট একটা রেস্তোরাঁয় ঢুকলেন। ঢুকেই তিনি একটি সিদ্ধ ডিমের অর্ডার দিলেন। খাওয়া শেষে তাকে বলা হল, ‘বিল হয়েছে পঞ্চাশ টাকা।’

ট্যুরিস্ট অবাক হয়ে বললেন, ‘এত দাম ডিমের? তোমাদের এখানে কি ডিম পাওয়া যায় না?’

ওয়েটার বলল, ‘ডিম পাওয়া যায়, কিন্তু ট্যুরিস্ট পাওয়া যায় না!’

*

খদ্দের : ওয়েটার, এদিকে এসো!

ওয়েটার : বলুন স্যার।

খদ্দের : কখনও চিড়িয়াখানায় গেছ?

ওয়েটার : না স্যার।

খদ্দের : যাও, ঘুরে আস। কচ্ছপগুলোকে একবার লজ্জা দিয়ে এসো।

*

এক ভদ্রলোক একবার এক হোটেলে ঢুকে মাংস আর রুটির অর্ডার দিলেন। বয় মাংস-রুটি এনে তার সামনে রাখল। ভদ্রলোক এক টুকরা মাংসে কামড় দিয়েই সোজা ম্যানেজারের সামনে গিয়ে জিজ্ঞেস করলেন, ‘আপনাদের এই হোটেলটা খুব পুরনো, তাই না?’

ম্যানেজার : হ্যাঁ, এই বাড়িটা মুঘল আমলের। আর এ বাড়িতে হোটেল ব্যবসা চলছে সেই ব্রিটিশ আমল থেকে!

ভদ্রলোক : কিন্তু বয় যে মাংসটি দিয়ে গেল সেটি কোনো আমলের?

*

সর্দারজি তার এক বছর বয়সী ছোট্ট শিশুটির আধো আধো বোল রেকর্ড করে রাখছিলেন।

সর্দারজির বন্ধু : সে কী কথা! এইটুকু বাচ্চার কথা রেকর্ড করছ কেন?

সর্দারজি : বড় হলে জিজ্ঞেস করব, ও আসলে কী বলতে চেয়েছিল!

*

সর্দারজিকে বললেন তার এক বন্ধু, ‘সর্দারজি, তুমি কি প্রেম করে বিয়ে করবে, নাকি বিয়ে করে প্রেম করবে?’

সর্দারজি বললেন, ‘অবশ্যই বিয়ে করে প্রেম করব। শুধু আমার স্ত্রী’র কাছে ধরা পড়ে না গেলেই হয়!’

*

এক স্ত্রী তার স্বামীকে অভিযোগ করল, ‘তুমি মোটেই আমার আত্মীয়স্বজনকে পছন্দ কর না।’

স্বামী শুনে বলল, ‘কে বলল! আমি তো তোমার শাশুড়িকে, আমার শাশুড়ির থেকেও বেশি পছন্দ করি।’

*

স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার এক সময়ে স্ত্রী রেগে বলল, ‘আমি আমার বাবার সব সম্পতি সাধুদের বিলিয়ে দেব।’

একথা শুনেই স্বামী ব্যাগ গোছাতে শুরু করল। স্ত্রী আশ্চর্য হয়ে জিজ্ঞেস করল,‘ এ কী! কোথায় চললে?’

‘সাধু হতে!’ স্বামী জানাল।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×