দাওয়াইয়ের নাম হাসি

প্রকাশ : ২৫ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

ডাক্তার : ভয়ের কিছু নেই। চট করে আপনার দাঁত তুলে দেব।

রোগী : না না ডাক্তার সাহেব, আমার ভীষণ ভয় করছে। যন্ত্রণায় আমি মরেই যাব!

ডাক্তার : ঠিক আছে, এই নিন এক পেগ হুইস্কি পান করুন। দেখবেন সাহস বেড়ে যাবে।

রোগী হুইস্কি পান করার পর ডাক্তার ফের বললেন, ‘কি, এখন সাহস বেড়েছে তো?’

রোগী : নিশ্চয়ই বেড়েছে। এখন দেখি কোনো শালা আমার দাঁত তুলতে আসে। দাঁতে কেবল হাত লাগাতে আসুক, বাপের নাম ভুলিয়ে দেব!

*

মাতাল হয়ে অনেক রাতে বাড়ি ফিরেছে এক ব্যক্তি। চুপি চুপি বেডরুমে ঢুকে দেখে তার স্ত্রী বাথরুমে গেছে। সে যে মদ খেয়ে এসেছে এটা যাতে স্ত্রী বুঝতে না পারে তাই জলদি বিছানায় উঠে একটা মোটা বই খুলে পড়ার ভান করতে লাগল। একটু পর স্ত্রী বাথরুম থেকে বের হয়েই চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করল, ‘আজও মদ খেয়ে এসেছ, তাই না?’

: মোটেই না একদম বাজে কথা।

- বলি, তাহলে মুখের সামনে অমন করে ব্রিফকেসটা খুলে ধরে রেখেছ কেন?

*

স্ত্রী : বিয়ের আগে কি তোমার কোনো বান্ধবী ছিল?

স্বামী : না, তুমিই প্রথম।

স্ত্রী : কাল যে মেয়েটির সঙ্গে খুব হেসে কথা বলছিলে ওই মেয়েটি তা হলে কে?

স্বামী : ওর সঙ্গে আমার পরিচয় হয়েছে বিয়ের পর।

*

ডাক্তার : আপনি বলছেন আপনি সারারাত ধরে ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন দেখেন?

রোগী : হ্যাঁ।

ডাক্তার : কতদিন ধরে এটা চলছে?

রোগী : প্রায় এক বছর।

ডাক্তার : হুঁ, কিন্তু আপনার অন্য কোনো স্বপ্ন দেখতে ইচ্ছে করে না? যেমন ধরুন- খাবারদাবার বা বেড়াতে যাওয়া?

রোগী : হুঁ, ওসব করতে গিয়ে আমি আমার ব্যাটিংটা মিস করি আর কী!

*

হারাধন ও তার স্ত্রীর মধ্যে কথোপকথন-

হারাধন : আমার খুব ক্ষুধা লাগছে।

স্ত্রী : আমি আজকে ভীষণ অসুস্থ বোধ করছি।

হারাধন : তাই নাকি! আমি আরও ভাবলাম তোমাকে নিয়ে আজকে কেএফসিতে খেতে যাব।

স্ত্রী (গদ গদ হয়ে) : আরে বোকা, আমি তো দুষ্টামি করছিলাম।

হারাধন : তুমি কি মনে করেছ আমি দুষ্টামি করতে জানি না! যাও জলদি রুটি বানাও।

গ্রন্থনা : আরিফুল হক