মাস্ক নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড

  লেখা : সোহানুর রহমান অনন্ত, আঁকা : কাওছার মাহমুদ ১৫ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কিরে, তুই হঠাৎ মাস্ক বিক্রির ব্যবসায় নামলি কবে থেকে, তোর না তেলের ব্যবসা ছিল?

এরেই কয়, ঝোপ বুঝে কোপ মারো! ঝোপ বুঝে কোপ মারতে শিখস নাই দেইখাই তো এখনও বেকার জীবন কাটাইতাছস!

চীনে মাস্ক ফ্রিতে দিচ্ছে, আর আমাদের দেশে হয়ে গেছে তিনগুণ বেশি দাম!

ফ্রিতে দিলে কি আর আমাদের ইজ্জত থাকে মিয়া! ফাও প্রশ্ন নিয়া আসছেন। কুইক সাইড লন!

তোর এমন অবস্থা কে করল, গতকালই তো সুস্থ দেখছিলাম!

দাম বেশি হওয়ায় মাস্ক কিনতে না পাইরা মুখে গামছা প্যাঁচাইয়া বাইর হইছিলাম! এলাকার কুত্তাগুলা চোর মনে কইরা এমন দৌড়ানি দিছে যে ম্যানহোলে গিয়া পড়ছি!

ঘটনা কী! আপনারা তো একজন আরেকজনরে দেখতে পারতেন না, এখন দেখছি দিনরাত

একলগে ঘোরেন!

আরে ভাই একজন পেঁয়াজ আর একজন মাস্ক বিক্রি করি, সম্পর্কের দিক থেকে আমরা তো এখন খুব কাছের মানুষ!

তোমারে না বলছি, যে কদিন দেশে ভাইরাস আছে তুমি আমার সঙ্গে দেখা করবা না! তারপরও আমার বাড়ির সামনে এসে হাঁচি-কাশি দিচ্ছো?

আমি তো চিকিৎসা নিতে আসছি। তুমি না বলছিলা, ভালোবাসা দিয়া আমার সব ভালো করে দিবা! আপাতত হাঁচি-কাশিটা একটু ভালো করে দাও না!

এই যে দুঃসময়ে পাবলিকের কাছে বেশি দামে মাস্ক বেচতাছেন এইটা কি ঠিক?

দরকার হইলে একটা মাস্ক ফ্রি নিয়া যান। আমার বিজনেসে হুদাই ঝামেলা কইরেন না!

আরও খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত