দাওয়াইয়ের নাম হাসি
jugantor
দাওয়াইয়ের নাম হাসি

  গ্রন্থনা : রাফিয়া আক্তার  

০৯ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গভীর রাত। খুব বৃষ্টি হচ্ছে। কেউ একজন চিৎকার করে বলছে, ‘এই যে ভাই, কেউ আছেন? একটু ধাক্কা দেবেন?’ মাঝরাতে এমন চিৎকার শুনে ঘুম ভেঙে গেল শায়লার। সে তার স্বামী মাসুদকে ধাক্কা দিয়ে বলল, ‘এই শুনছ, কে যেন খুব বিপদে পড়েছে!’

অগত্যা উঠতে হল মাসুদকে। মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়ানো উচিত। বৃষ্টিতে ভিজে কাদা-পানি মাড়িয়ে সে এগিয়ে চলল শব্দের উৎস লক্ষ্য করে। কাছাকাছি গিয়ে জানতে চাইল, ‘কোথায় ভাই আপনি?’

‘এই তো, এদিকে। বাগানের দিকে আসুন।’ শুনে মাসুদ এগিয়ে গেল। কয়েক সেকেন্ড বাদে আবারও শুনতে পেল, ‘হ্যাঁ হ্যাঁ ডানে আসুন। নারিকেল গাছটার ঠিক পেছনে।’ শুনে মাসুদ আরও খানিকটা এগিয়ে গেল।

‘আহ! ধন্যবাদ! আপনার ভাই দয়ার শরীর। কতক্ষণ ধরে দোলনায় বসে আছি, ধাক্কা দেয়ার মতো কাউকে পাচ্ছি না!’ মাসুদকে দেখতে পেয়ে বলল মাতাল লোকটা!

*

একদিন রতন দোকানে গেছে শার্ট কেনার জন্য।

রতন : এই যে ভাই, শার্টটার দাম কত?

দোকানদার : ১০০০ টাকা।

রতন : ৩০০ টাকা হলে দিন।

দোকানদার : কী যে বলেন! এত কমে হবে না।

রতন : ঠিক আছে, আরও ৫০ টাকা দিচ্ছি- দিয়ে দিন।

দোকানদার : না ভাই, একদাম ৭০০ টাকা নেবেন?

রতন : না, আমি ৪০০ পর্যন্ত দেব।

দোকানদার : শেষ দাম ৬০০ হলে নিয়ে যান, আর কম হবে না।

রতন : না ভাই। শেষ দাম ৪৫০ হলে বলেন, না হলে আমি যাই।

দোকানদার : আচ্ছা নিয়ে যান।

রতন শার্টটা হাতে নিয়েই দিল দৌড়। দোকানদার পেছন থেকে দৌড়ে ধরে ফেলল তাকে।

দোকানদার : কিরে, শার্ট যখন চুরিই করবি তাহলে এতক্ষণ শুধু শুধু দামাদামি করলি কেন?

রতন : আরে, দামাদামি না করলে আপনার ১০০০ টাকাই লস হতো! আপনি ধরে না ফেললে এখন তো কেবল ৪৫০ টাকা লস হতো! আপনার লস কমানোর জন্যই তো এতক্ষণ দামাদামি করলাম!

*

এক বিকালে প্রেমিক-প্রেমিকা তাদের প্রথম সাক্ষাতে হাজির হয়েছে এক রেস্টুরেন্টে-

প্রেমিক : আমি তোমাকে একটা কথা বলতে চাই?

প্রেমিকা : কী কথা?

প্রেমিক : ইয়ে মানে আমি আসলে বিবাহিত। তোমাকে এতদিন মিথ্যে কথা বলেছি।

প্রেমিকা : আরে, এ আর এমন কী! আমি তো ভয়-ই পেয়ে গিয়েছিলাম।

প্রেমিক : কেন?

প্রেমিকা : না মানে আমি ভাবলাম- তুমি বলবে, তোমার কাছে এখন টাকা নেই!

*

এক রাতে সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে বাড়ি থেকে প্রেমিকের হাত ধরে পালাচ্ছে এক তরুণী-

প্রেমিক : তোমার বাবা টের পাননি তো?

প্রেমিকা : না। উনি বাসায় নেই।

প্রেমিক : বাসায় নেই মানে! এত রাতে কোথায় গেছেন?

প্রেমিকা : আমাদের জন্য ট্যাক্সি ডাকতে!

 

দাওয়াইয়ের নাম হাসি

 গ্রন্থনা : রাফিয়া আক্তার 
০৯ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গভীর রাত। খুব বৃষ্টি হচ্ছে। কেউ একজন চিৎকার করে বলছে, ‘এই যে ভাই, কেউ আছেন? একটু ধাক্কা দেবেন?’ মাঝরাতে এমন চিৎকার শুনে ঘুম ভেঙে গেল শায়লার। সে তার স্বামী মাসুদকে ধাক্কা দিয়ে বলল, ‘এই শুনছ, কে যেন খুব বিপদে পড়েছে!’

অগত্যা উঠতে হল মাসুদকে। মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়ানো উচিত। বৃষ্টিতে ভিজে কাদা-পানি মাড়িয়ে সে এগিয়ে চলল শব্দের উৎস লক্ষ্য করে। কাছাকাছি গিয়ে জানতে চাইল, ‘কোথায় ভাই আপনি?’

‘এই তো, এদিকে। বাগানের দিকে আসুন।’ শুনে মাসুদ এগিয়ে গেল। কয়েক সেকেন্ড বাদে আবারও শুনতে পেল, ‘হ্যাঁ হ্যাঁ ডানে আসুন। নারিকেল গাছটার ঠিক পেছনে।’ শুনে মাসুদ আরও খানিকটা এগিয়ে গেল।

‘আহ! ধন্যবাদ! আপনার ভাই দয়ার শরীর। কতক্ষণ ধরে দোলনায় বসে আছি, ধাক্কা দেয়ার মতো কাউকে পাচ্ছি না!’ মাসুদকে দেখতে পেয়ে বলল মাতাল লোকটা!

*

একদিন রতন দোকানে গেছে শার্ট কেনার জন্য।

রতন : এই যে ভাই, শার্টটার দাম কত?

দোকানদার : ১০০০ টাকা।

রতন : ৩০০ টাকা হলে দিন।

দোকানদার : কী যে বলেন! এত কমে হবে না।

রতন : ঠিক আছে, আরও ৫০ টাকা দিচ্ছি- দিয়ে দিন।

দোকানদার : না ভাই, একদাম ৭০০ টাকা নেবেন?

রতন : না, আমি ৪০০ পর্যন্ত দেব।

দোকানদার : শেষ দাম ৬০০ হলে নিয়ে যান, আর কম হবে না।

রতন : না ভাই। শেষ দাম ৪৫০ হলে বলেন, না হলে আমি যাই।

দোকানদার : আচ্ছা নিয়ে যান।

রতন শার্টটা হাতে নিয়েই দিল দৌড়। দোকানদার পেছন থেকে দৌড়ে ধরে ফেলল তাকে।

দোকানদার : কিরে, শার্ট যখন চুরিই করবি তাহলে এতক্ষণ শুধু শুধু দামাদামি করলি কেন?

রতন : আরে, দামাদামি না করলে আপনার ১০০০ টাকাই লস হতো! আপনি ধরে না ফেললে এখন তো কেবল ৪৫০ টাকা লস হতো! আপনার লস কমানোর জন্যই তো এতক্ষণ দামাদামি করলাম!

*

এক বিকালে প্রেমিক-প্রেমিকা তাদের প্রথম সাক্ষাতে হাজির হয়েছে এক রেস্টুরেন্টে-

প্রেমিক : আমি তোমাকে একটা কথা বলতে চাই?

প্রেমিকা : কী কথা?

প্রেমিক : ইয়ে মানে আমি আসলে বিবাহিত। তোমাকে এতদিন মিথ্যে কথা বলেছি।

প্রেমিকা : আরে, এ আর এমন কী! আমি তো ভয়-ই পেয়ে গিয়েছিলাম।

প্রেমিক : কেন?

প্রেমিকা : না মানে আমি ভাবলাম- তুমি বলবে, তোমার কাছে এখন টাকা নেই!

*

এক রাতে সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে বাড়ি থেকে প্রেমিকের হাত ধরে পালাচ্ছে এক তরুণী-

প্রেমিক : তোমার বাবা টের পাননি তো?

প্রেমিকা : না। উনি বাসায় নেই।

প্রেমিক : বাসায় নেই মানে! এত রাতে কোথায় গেছেন?

প্রেমিকা : আমাদের জন্য ট্যাক্সি ডাকতে!