লাইফ ইজ বিউটিফুল!
jugantor
লাইফ ইজ বিউটিফুল!

  কমল আরেফিন  

১৫ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শীতের সঙ্গে আগুনের একটি গভীর সম্পর্ক আছে। শীত এলে অনেকে শরীরে আগুনের উত্তাপ নিতে চান। এদিকে শীতও আসি আসি করছে। তাই বোধহয়, আগুনের আনাগোনাও শুরু হয়ে গেছে। হঠাৎ করেই রাজধানীর বেশ ক’টি লোকাল বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে কে বা কাহারা! তাহারা কাহারা আসুন সে বিতর্কে না জড়াই। পলিটিক্যাল ফায়ার বলে কথা!

আমাদের ঘরেও কি আগুনের কমতি আছে! এদিকে বাজারের আগুনের কথা না বলাই ভালো। সবজির বাজারে আগুন লেগেছে অনেকদিন হয়ে গেল। এখনও সে আগুন নেভার কোনো লক্ষণ নেই! আরও অনেক আগুন আছে। আগুন নিয়ে গান আছে; আছে কবিতা। আগুন আছে সংসারে; হৃদয়ে। সংসারের আগুন বাড়ে-কমে। কিন্তু হৃদয়ের আগুন কমতে চায় না সহজে। আগুন নিয়ে আছে কৌতুকও।

চলুন শোনা যাক। এক দোকানে আগুন লেগেছে। দোকানের সামনেই দাঁড়িয়ে ছিল মনির। চিন্তা করল, দোকানের ভেতর আটকে পড়াদের উদ্ধার করতে হবে। মনির আর দেরি করল না। আগুন পেরিয়ে দোকানের ভেতর ঢুকল সে। এক এক করে দোকানের ভেতর থেকে ছয়জনকে বাইরে বের করে আনল।

কিছুক্ষণ পর বেরসিক পুলিশ এসে মনিরকে আটক করে থানায় নিয়ে গেল। মনিরের বাবা খবর পেয়েই ছুটলেন থানায়। বিরক্ত হয়ে পুলিশকে বললেন, ‘কী ব্যাপার, আমার ছেলেকে ধরে এনেছেন কেন? ও তো আগুন থেকে মানুষকে উদ্ধার করেছে! আমার ছেলে তো কোনো অপরাধ করেনি!’

‘অপরাধ করেনি মানে? আপনার ছেলে দোকান থেকে যাদের বাইরে নিয়ে এসেছে, এরা সবাই ফায়ার সার্ভিসের কর্মী!’ চেঁচিয়ে জবাব দিলেন পুলিশ।

সংসারে আগুনের ছ্যাঁকাটা সবচেয়ে বেশি টের পান গৃহকর্তা। বাজারে গেলেও ছ্যাঁকা খান। আবার ঠিকঠাক সদাই নিয়ে ফিরতে না পারলে ঘরেও ছ্যাঁকা খান! তাছাড়া নানা বিষয়ে দুজনের মতের মিল তো আছেই। একজন যদি উত্তরে হাঁটেন; অন্যজন হাঁটেন দক্ষিণে।

এ নিয়েও একটি কৌতুক শুনে নিন। স্বামী বিরক্ত হয়ে স্ত্রীকে বলল, ‘আমি গত বিশ বছর ধরে দেখছি। আমার প্রতিটি কথায় তুমি ভুল ধর!’

‘বিশ বছর নয়; ওটা উনিশ বছর হবে!’ নির্বিকার গলায় জবাব দিল স্ত্রী।

এদিকে মনের আগুনেও পুড়ে পুড়ে ছাই হন অনেকে। সবচেয়ে বিপদ হচ্ছে, আগুন নিয়ে খেলা। আগুনে নিয়ে খেলতে গিয়ে নিজেই সে আগুনে পুড়বেন না যেন। দূরে থাকুন দুঃখের আগুন থেকেও। এদিকে প্রথম প্রীতি ম্যাচে নেপালকে দুই-শূন্য গোলে হারিয়ে দেশের মানুষের মনে খুশির আগুন জ্বেলে দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। সুতরাং সব আগুন খারাপ না। আমরা চাই, আমাদের জাতীয় ফুটবল দল মাঝে মাঝেই আমাদের বুকে এমন খুশির আগুন জ্বালিয়ে দিক। আসুন, আমরা দুঃখের আগুন এড়িয়ে চলি। জ্বলি খুশির আগুনে। হ

লাইফ ইজ বিউটিফুল!

 কমল আরেফিন 
১৫ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

শীতের সঙ্গে আগুনের একটি গভীর সম্পর্ক আছে। শীত এলে অনেকে শরীরে আগুনের উত্তাপ নিতে চান। এদিকে শীতও আসি আসি করছে। তাই বোধহয়, আগুনের আনাগোনাও শুরু হয়ে গেছে। হঠাৎ করেই রাজধানীর বেশ ক’টি লোকাল বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে কে বা কাহারা! তাহারা কাহারা আসুন সে বিতর্কে না জড়াই। পলিটিক্যাল ফায়ার বলে কথা!

আমাদের ঘরেও কি আগুনের কমতি আছে! এদিকে বাজারের আগুনের কথা না বলাই ভালো। সবজির বাজারে আগুন লেগেছে অনেকদিন হয়ে গেল। এখনও সে আগুন নেভার কোনো লক্ষণ নেই! আরও অনেক আগুন আছে। আগুন নিয়ে গান আছে; আছে কবিতা। আগুন আছে সংসারে; হৃদয়ে। সংসারের আগুন বাড়ে-কমে। কিন্তু হৃদয়ের আগুন কমতে চায় না সহজে। আগুন নিয়ে আছে কৌতুকও।

চলুন শোনা যাক। এক দোকানে আগুন লেগেছে। দোকানের সামনেই দাঁড়িয়ে ছিল মনির। চিন্তা করল, দোকানের ভেতর আটকে পড়াদের উদ্ধার করতে হবে। মনির আর দেরি করল না। আগুন পেরিয়ে দোকানের ভেতর ঢুকল সে। এক এক করে দোকানের ভেতর থেকে ছয়জনকে বাইরে বের করে আনল।

কিছুক্ষণ পর বেরসিক পুলিশ এসে মনিরকে আটক করে থানায় নিয়ে গেল। মনিরের বাবা খবর পেয়েই ছুটলেন থানায়। বিরক্ত হয়ে পুলিশকে বললেন, ‘কী ব্যাপার, আমার ছেলেকে ধরে এনেছেন কেন? ও তো আগুন থেকে মানুষকে উদ্ধার করেছে! আমার ছেলে তো কোনো অপরাধ করেনি!’

‘অপরাধ করেনি মানে? আপনার ছেলে দোকান থেকে যাদের বাইরে নিয়ে এসেছে, এরা সবাই ফায়ার সার্ভিসের কর্মী!’ চেঁচিয়ে জবাব দিলেন পুলিশ।

সংসারে আগুনের ছ্যাঁকাটা সবচেয়ে বেশি টের পান গৃহকর্তা। বাজারে গেলেও ছ্যাঁকা খান। আবার ঠিকঠাক সদাই নিয়ে ফিরতে না পারলে ঘরেও ছ্যাঁকা খান! তাছাড়া নানা বিষয়ে দুজনের মতের মিল তো আছেই। একজন যদি উত্তরে হাঁটেন; অন্যজন হাঁটেন দক্ষিণে।

এ নিয়েও একটি কৌতুক শুনে নিন। স্বামী বিরক্ত হয়ে স্ত্রীকে বলল, ‘আমি গত বিশ বছর ধরে দেখছি। আমার প্রতিটি কথায় তুমি ভুল ধর!’

‘বিশ বছর নয়; ওটা উনিশ বছর হবে!’ নির্বিকার গলায় জবাব দিল স্ত্রী।

এদিকে মনের আগুনেও পুড়ে পুড়ে ছাই হন অনেকে। সবচেয়ে বিপদ হচ্ছে, আগুন নিয়ে খেলা। আগুনে নিয়ে খেলতে গিয়ে নিজেই সে আগুনে পুড়বেন না যেন। দূরে থাকুন দুঃখের আগুন থেকেও। এদিকে প্রথম প্রীতি ম্যাচে নেপালকে দুই-শূন্য গোলে হারিয়ে দেশের মানুষের মনে খুশির আগুন জ্বেলে দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। সুতরাং সব আগুন খারাপ না। আমরা চাই, আমাদের জাতীয় ফুটবল দল মাঝে মাঝেই আমাদের বুকে এমন খুশির আগুন জ্বালিয়ে দিক। আসুন, আমরা দুঃখের আগুন এড়িয়ে চলি। জ্বলি খুশির আগুনে। হ