একদিন এক ব্যাংকে
jugantor
ভিনদেশি রসিকতা
একদিন এক ব্যাংকে

  আশরাফুল আলম পিনটু  

১৫ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এক বৃদ্ধ মহিলা টাকা তুলতে ব্যাংকে গেলেন।

বৃদ্ধা তার ব্যাংক কার্ড কাউন্টারের তরুণীকে দিয়ে বললেন, ‘আমি ১০ ডলার তুলতে চাই।’

তরুণী বললেন, ‘ব্যাংক কাউন্টারে ১০০ ডলারের নিচে তোলা যায় না। দয়া করে আপনি এটিএম বুথে যান।’

‘এখানে কেন দেয়া হবে না?’ বৃদ্ধা জানতে চাইলেন।

তরুণী তাকে ব্যাংক কার্ড ফেরত দিলেন। বিরক্ত হয়ে বললেন, ‘এটাই নিয়ম। আর কোনো কাজ না থাকলে আপনি দয়া করে সরুন। আপনার পেছনে লাইনে আরও গ্রাহক দাঁড়িয়ে আছেন!’

বৃদ্ধা কয়েক সেকেন্ড ভাবলেন। তারপর কার্ডটা আবারও দিলেন তরুণীকে।

বললেন, ‘দয়া করে আমাকে একটু সাহায্য করুন। আমার অ্যাকাউন্টের সব টাকা আমাকে দিয়ে দিন।’

বৃদ্ধার অ্যাকাউন্ট চেক করলেন তরুণী। খুব অবাক হয়ে গেলেন। মাথা নাড়ালেন কয়েকবার। তারপর মহিলার দিকে ঝুঁকে শ্রদ্ধার সঙ্গে বললেন, ‘আপনার অ্যাকাউন্টে ৩ লাখ ডলার আছে। কিন্তু আপনাকে দিতে এখন এ পরিমাণ নগদ টাকা আমাদের ব্যাংকের এ শাখায় নেই। আপনি আজ ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলে যান। কাল এলে পেয়ে যাবেন নিশ্চয়।’

এবার বৃদ্ধা জানতে চাইলেন, ‘তাহলে আমি এখন কী পরিমাণ তুলতে পারব?’

তরুণী জানালেন, ‘১০০ থেকে ৩ হাজার ডলার পর্যন্ত- যে কোনো পরিমাণ।’

‘ঠিক আছে। এখন তাহলে আমাকে ৩ হাজার ডলারই দিন।’ বৃদ্ধা বললেন।

কাউন্টারের তরুণী হাসিমুখে ৩ হাজার ডলার দিলেন বৃদ্ধার হাতে।

বৃদ্ধা এবার সেই টাকা থেকে ১০ ডলার রাখলেন তার পার্সে। বাকিটা তরুণীকে ফেরত দিয়ে বললেন, ‘নিন, এই ২ হাজার ৯৯০ ডলার আমার অ্যাকাউন্টে জমা করে দিন।’

ভিনদেশি রসিকতা

একদিন এক ব্যাংকে

 আশরাফুল আলম পিনটু 
১৫ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

এক বৃদ্ধ মহিলা টাকা তুলতে ব্যাংকে গেলেন।

বৃদ্ধা তার ব্যাংক কার্ড কাউন্টারের তরুণীকে দিয়ে বললেন, ‘আমি ১০ ডলার তুলতে চাই।’

তরুণী বললেন, ‘ব্যাংক কাউন্টারে ১০০ ডলারের নিচে তোলা যায় না। দয়া করে আপনি এটিএম বুথে যান।’

‘এখানে কেন দেয়া হবে না?’ বৃদ্ধা জানতে চাইলেন।

তরুণী তাকে ব্যাংক কার্ড ফেরত দিলেন। বিরক্ত হয়ে বললেন, ‘এটাই নিয়ম। আর কোনো কাজ না থাকলে আপনি দয়া করে সরুন। আপনার পেছনে লাইনে আরও গ্রাহক দাঁড়িয়ে আছেন!’

বৃদ্ধা কয়েক সেকেন্ড ভাবলেন। তারপর কার্ডটা আবারও দিলেন তরুণীকে।

বললেন, ‘দয়া করে আমাকে একটু সাহায্য করুন। আমার অ্যাকাউন্টের সব টাকা আমাকে দিয়ে দিন।’

বৃদ্ধার অ্যাকাউন্ট চেক করলেন তরুণী। খুব অবাক হয়ে গেলেন। মাথা নাড়ালেন কয়েকবার। তারপর মহিলার দিকে ঝুঁকে শ্রদ্ধার সঙ্গে বললেন, ‘আপনার অ্যাকাউন্টে ৩ লাখ ডলার আছে। কিন্তু আপনাকে দিতে এখন এ পরিমাণ নগদ টাকা আমাদের ব্যাংকের এ শাখায় নেই। আপনি আজ ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলে যান। কাল এলে পেয়ে যাবেন নিশ্চয়।’

এবার বৃদ্ধা জানতে চাইলেন, ‘তাহলে আমি এখন কী পরিমাণ তুলতে পারব?’

তরুণী জানালেন, ‘১০০ থেকে ৩ হাজার ডলার পর্যন্ত- যে কোনো পরিমাণ।’

‘ঠিক আছে। এখন তাহলে আমাকে ৩ হাজার ডলারই দিন।’ বৃদ্ধা বললেন।

কাউন্টারের তরুণী হাসিমুখে ৩ হাজার ডলার দিলেন বৃদ্ধার হাতে।

বৃদ্ধা এবার সেই টাকা থেকে ১০ ডলার রাখলেন তার পার্সে। বাকিটা তরুণীকে ফেরত দিয়ে বললেন, ‘নিন, এই ২ হাজার ৯৯০ ডলার আমার অ্যাকাউন্টে জমা করে দিন।’