নতুন অফিসে একদিন
jugantor
নতুন অফিসে একদিন

  আশরাফুল আলম পিনটু  

২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আমেরিকার এক সরকারি কর্মকর্তা। পদোন্নতি পেয়ে এমডি হয়েছেন। এ নিয়ে খুব অহংকার তার। সব সময় অন্যরকম ভাব নিয়ে চলেন। তিনি যে বিশেষ আলাদা কেউ, তা সবাইকে বোঝাতে চান। দেখাতে চান তার ক্ষমতা।

সেই এমডি বদলি হয়ে এলেন নতুন অফিসে। প্রথম দিন। নিজের অফিস ঘরে বসে আছেন তিনি। এমন সময় বাইরের দরজায় টোকা দিলেন এক কর্মচারি।

নিজের নতুন অবস্থানের ব্যাপারে সচেতন হয়ে উঠলেন এমডি। কর্তৃত্ব দেখাতে চাইলেন।

কর্মচারিকে বাইরে দাঁড় করিয়ে রাখলেন কিছুক্ষণ। টেবিল থেকে টেলিফোনটা তুলে কানে ধরলেন। তারপর ভেতরে আসতে বললেন তাকে।

কর্মচারিটি ভেতরে এলে ইশারায় তাকে অপেক্ষা করতে বললেন এমডি। তারপর তাকে শুনিয়ে টেলিফোনে বলতে লাগলেন, ‘বলুন স্যার। জি স্যার, আমি তার সঙ্গে বিকেলে দেখা করব। জি জি, তখনই আপনার সংবাদটা তাকে দেব, স্যার। আপনি চিন্তা করবেন না। জি স্যার, আমি কালই আসব আপনার অফিসে। আপনার প্রশংসার জন্য ধন্যবাদ, স্যার। ভালো থাকবেন আপনিও।’

এভাবে অনেকক্ষণ কথা চালালেন এমডি। কথার ফাঁকে মাঝেমাঝেই কর্মচারিকে দেখছিলেন তিনি। অবাক হয়ে তার কথা শুনছিলেন কর্মচারিটি। তার মুখ হাঁ হয়ে গেছে।

একসময় কথা শেষ করে এমডি ফোনটা রাখলেন। তাকালেন কর্মচারির দিকে। আÍতৃপ্তির সঙ্গে বললেন, ‘চেয়ারম্যান স্যার ফোন করেছিলেন। আমাকে খুবই পছন্দ

করেন। তার সঙ্গে কথা বললাম। তা বলো, কেন এসেছ? কী চাই তোমার?’

‘তেমন কিছুই না, স্যার।’ কর্মচারি জবাব দিলেন, ‘আপনার টেবিলের টেলিফোনটার লাইন নেই, স্যার। আমি তার

লাগাতে এসেছি!’

নতুন অফিসে একদিন

 আশরাফুল আলম পিনটু 
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আমেরিকার এক সরকারি কর্মকর্তা। পদোন্নতি পেয়ে এমডি হয়েছেন। এ নিয়ে খুব অহংকার তার। সব সময় অন্যরকম ভাব নিয়ে চলেন। তিনি যে বিশেষ আলাদা কেউ, তা সবাইকে বোঝাতে চান। দেখাতে চান তার ক্ষমতা।

সেই এমডি বদলি হয়ে এলেন নতুন অফিসে। প্রথম দিন। নিজের অফিস ঘরে বসে আছেন তিনি। এমন সময় বাইরের দরজায় টোকা দিলেন এক কর্মচারি।

নিজের নতুন অবস্থানের ব্যাপারে সচেতন হয়ে উঠলেন এমডি। কর্তৃত্ব দেখাতে চাইলেন।

কর্মচারিকে বাইরে দাঁড় করিয়ে রাখলেন কিছুক্ষণ। টেবিল থেকে টেলিফোনটা তুলে কানে ধরলেন। তারপর ভেতরে আসতে বললেন তাকে।

কর্মচারিটি ভেতরে এলে ইশারায় তাকে অপেক্ষা করতে বললেন এমডি। তারপর তাকে শুনিয়ে টেলিফোনে বলতে লাগলেন, ‘বলুন স্যার। জি স্যার, আমি তার সঙ্গে বিকেলে দেখা করব। জি জি, তখনই আপনার সংবাদটা তাকে দেব, স্যার। আপনি চিন্তা করবেন না। জি স্যার, আমি কালই আসব আপনার অফিসে। আপনার প্রশংসার জন্য ধন্যবাদ, স্যার। ভালো থাকবেন আপনিও।’

এভাবে অনেকক্ষণ কথা চালালেন এমডি। কথার ফাঁকে মাঝেমাঝেই কর্মচারিকে দেখছিলেন তিনি। অবাক হয়ে তার কথা শুনছিলেন কর্মচারিটি। তার মুখ হাঁ হয়ে গেছে।

একসময় কথা শেষ করে এমডি ফোনটা রাখলেন। তাকালেন কর্মচারির দিকে। আÍতৃপ্তির সঙ্গে বললেন, ‘চেয়ারম্যান স্যার ফোন করেছিলেন। আমাকে খুবই পছন্দ

করেন। তার সঙ্গে কথা বললাম। তা বলো, কেন এসেছ? কী চাই তোমার?’

‘তেমন কিছুই না, স্যার।’ কর্মচারি জবাব দিলেন, ‘আপনার টেবিলের টেলিফোনটার লাইন নেই, স্যার। আমি তার

লাগাতে এসেছি!’