দাওয়াইয়ের নাম হাসি
jugantor
দাওয়াইয়ের নাম হাসি

  বিনোদন ডেস্ক  

০৪ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সাহেদ : এত রাতে কে?

পুলিশ : আমরা পুলিশ, তাড়াতাড়ি দরজাটা খুলুন।

সাহেদ : কেন, কী ব্যাপার?

পুলিশ : ভয় পাবেন না, আমরা শুধু কথা বলতে এসেছি।

সাহেদ : আপনারা মোট কতজন এসেছেন?

পুলিশ : পাঁচজন।

সাহেদ : তা বেশ তো। নিজেরা নিজেরাই কথা বলুন না!

*

পার্টিতে এক লোক বসে আছেন চুপচাপ। একটু বাদে সুন্দরী এক তরুণী এসে তার সামনে হাজির হলো। তারপর নরম গলায় জানতে চাইল, ‘আপনি কি নাচতে ইচ্ছুক?’

শুনে লোকটি বেশ উৎফুল্ল কণ্ঠে বলল, ‘অবশ্যই!’

তরুণী এবার মিষ্টি হেসে বলল, ‘চলুন, আমার স্বামীকে দেখিয়ে দিই। তার খুব নাচতে ইচ্ছে করছে! দয়া করে তার সঙ্গে একটু নাচুন প্লিজ!’

*

মিন্টু : তোমার দোকানে ঢোকার মুখে দেখলাম টুলের ওপর গম্ভীর মুখে এক ভদ্রলোক বসে আছেন। লোকটা কে ভাই?

রিন্টু : ও হচ্ছে ফার্নিচারের দোকানের লোক। ওই টুলটা বানিয়েছিল, বকেয়া পাওনার জন্য এখন বসে আছে।

মিন্টু : ওর টাকাটা তবে মিটিয়ে দিচ্ছ না কেন?

রিন্টু : আরে ও বলেছে, যতক্ষণ না ওর পাওনা টাকা বুঝে পাচ্ছে; ততক্ষণ পর্যন্ত নাকি আর একজন পাওনাদারকেও দোকানে ঢুকতে দেবে না! পাওনাদার ঠেকানোর জন্য এমন বিনে পয়সার লোক পেয়েছি যখন তখন আর ওকে আমি অত সহজে ছাড়ছি না!

গ্রন্থনা : রাফিয়া আক্তার

দাওয়াইয়ের নাম হাসি

 বিনোদন ডেস্ক 
০৪ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সাহেদ : এত রাতে কে?

পুলিশ : আমরা পুলিশ, তাড়াতাড়ি দরজাটা খুলুন।

সাহেদ : কেন, কী ব্যাপার?

পুলিশ : ভয় পাবেন না, আমরা শুধু কথা বলতে এসেছি।

সাহেদ : আপনারা মোট কতজন এসেছেন?

পুলিশ : পাঁচজন।

সাহেদ : তা বেশ তো। নিজেরা নিজেরাই কথা বলুন না!

*

পার্টিতে এক লোক বসে আছেন চুপচাপ। একটু বাদে সুন্দরী এক তরুণী এসে তার সামনে হাজির হলো। তারপর নরম গলায় জানতে চাইল, ‘আপনি কি নাচতে ইচ্ছুক?’

শুনে লোকটি বেশ উৎফুল্ল কণ্ঠে বলল, ‘অবশ্যই!’

তরুণী এবার মিষ্টি হেসে বলল, ‘চলুন, আমার স্বামীকে দেখিয়ে দিই। তার খুব নাচতে ইচ্ছে করছে! দয়া করে তার সঙ্গে একটু নাচুন প্লিজ!’

*

মিন্টু : তোমার দোকানে ঢোকার মুখে দেখলাম টুলের ওপর গম্ভীর মুখে এক ভদ্রলোক বসে আছেন। লোকটা কে ভাই?

রিন্টু : ও হচ্ছে ফার্নিচারের দোকানের লোক। ওই টুলটা বানিয়েছিল, বকেয়া পাওনার জন্য এখন বসে আছে।

মিন্টু : ওর টাকাটা তবে মিটিয়ে দিচ্ছ না কেন?

রিন্টু : আরে ও বলেছে, যতক্ষণ না ওর পাওনা টাকা বুঝে পাচ্ছে; ততক্ষণ পর্যন্ত নাকি আর একজন পাওনাদারকেও দোকানে ঢুকতে দেবে না! পাওনাদার ঠেকানোর জন্য এমন বিনে পয়সার লোক পেয়েছি যখন তখন আর ওকে আমি অত সহজে ছাড়ছি না!

গ্রন্থনা : রাফিয়া আক্তার

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন