এক স্বর্ণকেশীর বাজি
jugantor
ভিনদেশি রসিকতা
এক স্বর্ণকেশীর বাজি

  আশরাফুল আলম পিনটু  

২৮ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নিউইয়র্কের এক ইনডোর ক্লাব। রাত ১০টার একটু আগে ক্লাবে এলো জ্যাক। প্রথমেই গেল টিভি রুমে। ১০টার খবরটা দেখা দরকার। মেয়র নির্বাচনের সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে চায়। টিভির সামনে বসল সে। তার সামনে বসে আছে এক স্বর্ণকেশী। টিভি রুমে তারা দুজন ছাড়া আর কেউ নেই। স্বর্ণকেশী এ মহিলা খুব বোকাসোকা। বোকামির অনেক গল্প আছে তার।

১০টায় খবর শুরু হলো। প্রথমেই শিরোনাম পড়ে গেল সংবাদ পাঠিকা। তারপর দুয়েকটা সংবাদ পড়ে শুরু হলো একটি বিশেষ প্রতিবেদন। প্রতিবেদনটার উপস্থাপনা বেশ নাটকীয়। টান টান উত্তেজনা। উপস্থাপনার বিষয়-এক লোক উঁচু এক ভবনের ছাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে আছে। নিচে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যার প্রস্তুতি নিচ্ছে। টিভি ক্যামেরা ঘটনাটা অনুসরণ করছে। নিচে রাস্তায় দাঁড়িয়ে তা প্রত্যক্ষ করছে কিছু লোক।

স্বর্ণকেশী মহিলা পেছন ফিরে জ্যাকের দিকে তাকাল। জানতে চাইল, ‘তুমি কি মনে করো-লোকটা ঝাঁপ দেবে?’

মজা করার ইচ্ছা হলো জ্যাকের। বলল, ‘তোমার যা-ই মনে হোক, আমি বাজি ধরে বলতে পারি-লোকটা ঝাঁপ দেবে। ধরবে বাজি?’

স্বর্ণকেশী জবাব দিল, ‘ঠিক আছে, বাজি ধরলাম। আমি বলছি, লোকটা ঝাঁপ

দেবে না।’

জ্যাক সামনের ফাঁকা চেয়ারে ৩০০ ডলার রাখল। বলল, ‘এবার তোমার টাকাটাও রাখো।’

স্বর্ণকেশী তার বাজির টাকা বের করল। আর ঠিক তখনই লোকটা রাজহাঁসের মতো লাফ দিল নিচে। সঙ্গে সঙ্গে মারা গেল উঁচু ভবন থেকে পড়ে।

খুব হতাশ হলো স্বর্ণকেশী। কী আর করা! বাজির ৩০০ ডলার দিল জ্যাকের হাতে। বলল, ‘ওয়াদা ওয়াদাই। নাও, এই তোমার বাজির টাকা।’

জ্যাক হেসে বলল, ‘আমি তোমার এ টাকা নেবো না।’

‘নেবে না কেন? বাজি তো বাজিই।’

‘নেবো না কারণ, এ খবরটা আমি টিভিতে আগেও বিকাল পাঁচটায় দেখেছি। তার লাফ দিয়ে মরার বিষয়টা জানতাম।’

বোকা স্বর্ণকেশী বলল, ‘আমিও খবরটা আগে দেখেছি। কিন্তু ভাবতে পারিনি, লোকটা আবারও সেই একই কাণ্ড ঘটাবে!’

ভিনদেশি রসিকতা

এক স্বর্ণকেশীর বাজি

 আশরাফুল আলম পিনটু 
২৮ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নিউইয়র্কের এক ইনডোর ক্লাব। রাত ১০টার একটু আগে ক্লাবে এলো জ্যাক। প্রথমেই গেল টিভি রুমে। ১০টার খবরটা দেখা দরকার। মেয়র নির্বাচনের সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে চায়। টিভির সামনে বসল সে। তার সামনে বসে আছে এক স্বর্ণকেশী। টিভি রুমে তারা দুজন ছাড়া আর কেউ নেই। স্বর্ণকেশী এ মহিলা খুব বোকাসোকা। বোকামির অনেক গল্প আছে তার।

১০টায় খবর শুরু হলো। প্রথমেই শিরোনাম পড়ে গেল সংবাদ পাঠিকা। তারপর দুয়েকটা সংবাদ পড়ে শুরু হলো একটি বিশেষ প্রতিবেদন। প্রতিবেদনটার উপস্থাপনা বেশ নাটকীয়। টান টান উত্তেজনা। উপস্থাপনার বিষয়-এক লোক উঁচু এক ভবনের ছাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে আছে। নিচে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যার প্রস্তুতি নিচ্ছে। টিভি ক্যামেরা ঘটনাটা অনুসরণ করছে। নিচে রাস্তায় দাঁড়িয়ে তা প্রত্যক্ষ করছে কিছু লোক।

স্বর্ণকেশী মহিলা পেছন ফিরে জ্যাকের দিকে তাকাল। জানতে চাইল, ‘তুমি কি মনে করো-লোকটা ঝাঁপ দেবে?’

মজা করার ইচ্ছা হলো জ্যাকের। বলল, ‘তোমার যা-ই মনে হোক, আমি বাজি ধরে বলতে পারি-লোকটা ঝাঁপ দেবে। ধরবে বাজি?’

স্বর্ণকেশী জবাব দিল, ‘ঠিক আছে, বাজি ধরলাম। আমি বলছি, লোকটা ঝাঁপ

দেবে না।’

জ্যাক সামনের ফাঁকা চেয়ারে ৩০০ ডলার রাখল। বলল, ‘এবার তোমার টাকাটাও রাখো।’

স্বর্ণকেশী তার বাজির টাকা বের করল। আর ঠিক তখনই লোকটা রাজহাঁসের মতো লাফ দিল নিচে। সঙ্গে সঙ্গে মারা গেল উঁচু ভবন থেকে পড়ে।

খুব হতাশ হলো স্বর্ণকেশী। কী আর করা! বাজির ৩০০ ডলার দিল জ্যাকের হাতে। বলল, ‘ওয়াদা ওয়াদাই। নাও, এই তোমার বাজির টাকা।’

জ্যাক হেসে বলল, ‘আমি তোমার এ টাকা নেবো না।’

‘নেবে না কেন? বাজি তো বাজিই।’

‘নেবো না কারণ, এ খবরটা আমি টিভিতে আগেও বিকাল পাঁচটায় দেখেছি। তার লাফ দিয়ে মরার বিষয়টা জানতাম।’

বোকা স্বর্ণকেশী বলল, ‘আমিও খবরটা আগে দেখেছি। কিন্তু ভাবতে পারিনি, লোকটা আবারও সেই একই কাণ্ড ঘটাবে!’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন