ছাত্র বনাম শিক্ষক
jugantor
ই-বিচ্ছু
ছাত্র বনাম শিক্ষক

  কমল আরেফিন  

০৭ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছাত্র : স্যার, আপনাকে একটা প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করব?

শিক্ষক : হ্যাঁ করো।

ছাত্র : ধরুন একটি হাতি। হাতিটাকে ফ্রিজে রাখবেন কীভাবে?

শিক্ষক : আরে গাধা হাতি অনেক বড়, ফ্রিজে হাতির জায়গা হবে না।

ছাত্র : স্যার, ফ্রিজ অনেক বড়। প্রথমে ফ্রিজের দরজা খুলবেন, তারপর হাতিটাকে রেখে দেবেন।

ছাত্র : স্যার, আরেকটা প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করব?

শিক্ষক : হ্যাঁ অবশ্যই।

ছাত্র : আচ্ছা গাধাকে সেই ফ্রিজে কীভাবে রাখবেন?

শিক্ষক : খুব সহজ। প্রথমে ফ্রিজ খুলব, তারপর গাধাটাকে রেখে দেব।

ছাত্র : না স্যার, ভুল উত্তর। প্রথমে দরজা খুলে ভেতরে থাকা হাতিটাকে বের করতে হবে, তারপর গাধাটাকে রাখবেন। স্যার, আরেকটা প্রশ্ন করি?

শিক্ষক : হ্যাঁ হ্যাঁ করো।

ছাত্র : ধরুন বাঁদরের জন্মদিন। পার্টিতে সব পশুরাই এসেছে, কিন্তু একটি পশু আসেনি, সেই পশুটি কে?

শিক্ষক : উমম...সিংহ হতে পারে, কারণ সিংহ আসলে সবাইকে খেয়ে নেবে। তাই তাকে নিমন্ত্রণ করা হয়নি।

ছাত্র : আবারও ভুল উত্তর স্যার, গাধা আসেনি। কারণ গাধাকে আপনি আগেই ফ্রিজে রেখে দিয়েছেন। স্যার, ০ আরেকটা প্রশ্ন করব?

শিক্ষক (রেগে গিয়ে) : হ্যাঁ, করো।

ছাত্র : রাস্তায় একটি নদী আছে, নদীটিতে পারাপারের জন্য কোনো ব্রিজ বা সাঁকো নেই, আপনি কীভাবে নদীটি পার হবেন?

শিক্ষক : কীভাবে আর! আমি নৌকায় করে পার হব।

ছাত্র : দুঃখিত স্যার, আবারও ভুল উত্তর। এত তাড়াতাড়ি আপনি নৌকা কোথায় পাবেন?

শিক্ষক : তাহলে তুই-ই বল কীভাবে পার হব?

ছাত্র : আপনি সাঁতরে নদীটা পার হবেন স্যার।

শিক্ষক : কুমির যদি খেয়ে নেয়!

ছাত্র : স্যার, আবারও ভুল বললেন। সবাই তো বাঁদরের জন্মদিনের পার্টিতে। আপনি নিশ্চিন্তে নদী পার হতে পারবেন। আচ্ছা স্যার, আরেকটা প্রশ্ন করি?

শিক্ষক : না, আর কোনো প্রশ্ন নয়। আজ তোর ছুটি বাবা। শুধু আজ না, আগামী তিন দিন তোর ছুটি!

ই-বিচ্ছু

ছাত্র বনাম শিক্ষক

 কমল আরেফিন 
০৭ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছাত্র : স্যার, আপনাকে একটা প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করব?

শিক্ষক : হ্যাঁ করো।

ছাত্র : ধরুন একটি হাতি। হাতিটাকে ফ্রিজে রাখবেন কীভাবে?

শিক্ষক : আরে গাধা হাতি অনেক বড়, ফ্রিজে হাতির জায়গা হবে না।

ছাত্র : স্যার, ফ্রিজ অনেক বড়। প্রথমে ফ্রিজের দরজা খুলবেন, তারপর হাতিটাকে রেখে দেবেন।

ছাত্র : স্যার, আরেকটা প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করব?

শিক্ষক : হ্যাঁ অবশ্যই।

ছাত্র : আচ্ছা গাধাকে সেই ফ্রিজে কীভাবে রাখবেন?

শিক্ষক : খুব সহজ। প্রথমে ফ্রিজ খুলব, তারপর গাধাটাকে রেখে দেব।

ছাত্র : না স্যার, ভুল উত্তর। প্রথমে দরজা খুলে ভেতরে থাকা হাতিটাকে বের করতে হবে, তারপর গাধাটাকে রাখবেন। স্যার, আরেকটা প্রশ্ন করি?

শিক্ষক : হ্যাঁ হ্যাঁ করো।

ছাত্র : ধরুন বাঁদরের জন্মদিন। পার্টিতে সব পশুরাই এসেছে, কিন্তু একটি পশু আসেনি, সেই পশুটি কে?

শিক্ষক : উমম...সিংহ হতে পারে, কারণ সিংহ আসলে সবাইকে খেয়ে নেবে। তাই তাকে নিমন্ত্রণ করা হয়নি।

ছাত্র : আবারও ভুল উত্তর স্যার, গাধা আসেনি। কারণ গাধাকে আপনি আগেই ফ্রিজে রেখে দিয়েছেন। স্যার, ০ আরেকটা প্রশ্ন করব?

শিক্ষক (রেগে গিয়ে) : হ্যাঁ, করো।

ছাত্র : রাস্তায় একটি নদী আছে, নদীটিতে পারাপারের জন্য কোনো ব্রিজ বা সাঁকো নেই, আপনি কীভাবে নদীটি পার হবেন?

শিক্ষক : কীভাবে আর! আমি নৌকায় করে পার হব।

ছাত্র : দুঃখিত স্যার, আবারও ভুল উত্তর। এত তাড়াতাড়ি আপনি নৌকা কোথায় পাবেন?

শিক্ষক : তাহলে তুই-ই বল কীভাবে পার হব?

ছাত্র : আপনি সাঁতরে নদীটা পার হবেন স্যার।

শিক্ষক : কুমির যদি খেয়ে নেয়!

ছাত্র : স্যার, আবারও ভুল বললেন। সবাই তো বাঁদরের জন্মদিনের পার্টিতে। আপনি নিশ্চিন্তে নদী পার হতে পারবেন। আচ্ছা স্যার, আরেকটা প্রশ্ন করি?

শিক্ষক : না, আর কোনো প্রশ্ন নয়। আজ তোর ছুটি বাবা। শুধু আজ না, আগামী তিন দিন তোর ছুটি!

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন