সংবাদের সূত্র ধরে

চাল পড়ে পাতা নড়ে

প্রকাশ : ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  মো. রায়হান কবির

গায়েবের হিড়িক চলছে দেশে। কয়লা, পাথর কিংবা সোনা গায়েব হওয়ার পর এবার নতুন আবির্ভাব চাল। ঝিনাইদহের হরিপুরে ভিজিএফের চাল পাওয়া গেছে পুকুরে! পুকুরে জলজ প্রাণী বা জলজ উদ্ভিদের সঙ্গে চালের আবিষ্কার একটি বিরাট ব্যাপার। কিন্তু চাতাল বা গুদামের পরিবর্তে চাল কেন পুকুরে তার অনুসন্ধান চালিয়েছে বিচ্ছু। চলুন দেখি চাল পুকুরে পাওয়ার কারণ কী?

আসল না প্লাস্টিক

মাঝে মাঝেই এখন প্লাস্টিকের চালের গুজব শুনি আমরা। ফেসবুক, ইউটিউব থেকে শুরু করে সব সামাজিক মাধ্যমে প্লাস্টিকের চালের ভিডিও আপলোড করে সচেতনতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। তাই সংশ্লিষ্ট ভিজিএফের চাল পানিতে ফেলে হয়তো পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে, চালগুলো ভেসে ওঠে না ডুবে যায়? ডুবে গেলে আসল, আর ভেসে উঠলে নকল মানে প্লাস্টিকের চাল! তাই হয়তো ভিজিএফের চাল পুকুরে পাওয়া গেছে।

পরিষ্কারের উদ্দেশ্যে

অনেকেরই অভিযোগ থাকে ভিজিএফে নিুমানের চাল দেয়া হয়। চালে ময়লা, পাথর থেকে শুরু করে নানা জিনিস মিশিয়ে ওজন বাড়ানো হয়। তাই জনগণকে পরিষ্কার চাল দেয়ার উদ্দেশ্যে চাল পুকুরের পানিতে রেখে হয়তো ধুয়ে পরিষ্কার করার চেষ্টা করছিল কর্তৃপক্ষ।

পুকুর চুরি নয়, ভরাট

জনপ্রতিনিধিদের নামে এমনিতেই দুর্নাম থাকে তারা ভিজিএফ বা রিলিফের চাল বা অন্যান্য দ্রব্য চুরি করে থাকেন। অনেকে আবার এগুলোকে পুকুর চুরিও বলে থাকেন। তাই ওই এলাকার জনপ্রতিনিধি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তিনি ভিজিএফের চাল মানে পুকুর চুরি করবেন না। বরং চাল দিয়ে পুকুর ভরাট করবেন। সে কারণেও চাল পুকুরে ঢালা হতে পারে!

মাছ পরীক্ষা

ভিজিএফের চাল যে পুকুরে ঢালা হয়, সে পুকুরের সব মাছ এ চাল খেয়ে কেমন বোধ করেছে বা চাল খাওয়ার পর সুস্থ থাকে কিনা- প্রকৃতপক্ষে এটা ছিল একটা পরীক্ষার অংশ। অর্থাৎ সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধি গিনিপিগ পরীক্ষার মতো ‘মাছ পরীক্ষা’ করে দেখেছেন এ চাল আসলেই মানুষের খাবার উপযোগী কিনা?

প্রতীকী প্রতিবাদ

এটা প্রতীকী প্রতিবাদের একটি অংশ হওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়া যায় না। সরকার চালের দাম কমানোর ঘোষণা দেয়া সত্ত্বেও চালের দাম সে অর্থে কমেনি। অর্থাৎ চালের দাম যাতে সত্যিকার অর্থে ‘পানির দাম’ হয় সেটার জন্য চাল পানিতে ফেলে চাল আর দামের সম্পর্ক বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে হয়তো।