ফেসবুকের বয়ান

  মোহাম্মদ রুহুল আমিন খান ২২ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফেসবুক

ইন্টারনেট ব্যবহার করে অনেক কিছু করা যায়। অনেকে উপকৃত হয়, অনেকে নীতি-নৈতিকতা বিসর্জনও দেয়। ইন্টারনেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট ফেসবুক। সবার সঙ্গে সহজে যোগাযোগের মাধ্যম এটি। অনেকে অনেক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে ফেসবুক। কেউ ফেসবুকে দায়ি ইল্লাল্লাহর ভূমিকা পালন করে। অনেকে ফেইক আইডি খোলে অশ্লীল ছবি আপলোড, নোংরা ভাষায় স্ট্যাটাস, ভুয়া সংবাদ প্রচার এবং অশালীন মন্তব্য করে অন্যকে বিব্রত করে। ইসলাম ধর্ম এটি সমর্থন করে না।

প্রকাশ্য ও অপ্রকাশ্য সব ধরনের অশ্লীলতা ইসলামে হারাম। আল্লাহ বলেন, প্রকাশ্যে হোক কিংবা গোপনে হোক, তোমরা অশ্লীল কাজের ধারে-কাছেও যেয়ো না। (সূরা আল আনআম ১৫১)।

আর জেনে, না জেনে অন্যকে দোষারোপ, অন্যের নিন্দা ও অপপ্রচার চালানো ফেসবুকে প্রচলিত একটি বিষয়। কিন্তু ইসলামে পরনিন্দা বা কুৎসা রটানো হারাম। এটি ঘৃণিত কাজ। এটিকে পবিত্র কোরআনে মৃত ভাইয়ের গোশত খাওয়ার সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। (সূরা আল হুজরাত-১২)।

এটি কোনো মুমিনের চরিত্র হতে পারে না। মুমিনের চরিত্র কেমন হবে এ ব্যাপারে রাসূল (সা.) বলেন, মুমিন কখনও দোষারোপকারী, নিন্দাকারী ও অভিসম্পাতকারী হতে পারে না, নিজে অশ্লীল কাজ করে না এবং কটুভাষীও হয়ো না। (জামেআত-তিরমিজি)।

বর্তমানে নিরাপত্তার জন্য অনেক স্থানে সিসি টিভি/গোপন ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়। কিন্তু অনেকে আবার এই প্রযুক্তির অপব্যবহার করে। মেয়েদের বাথরুমে, ট্রায়াল রুমে গোপন ক্যামেরা বসায় এবং ইউটিউবে এসব দৃশ্য ছেড়ে দেয়। যা পরবর্তীতে আক্রান্ত মেয়ের আত্মহত্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যারা এমন ঘৃণিত কাজ করে তাদের উচিত আল্লাহকে ভয় করা এবং এমন দৃশ্য ধারণ করা থেকে বিরত থাকা। আল্লাহ বলেন, আর তোমরা প্রকাশ্য এবং গোপন পাপ বর্জন কর; নিশ্চয় যারা পাপ অর্জন করে অচিরেই তাদের তার প্রতিফল দেয়া হবে। (সূরা আল আনআম ১২০)

বিজ্ঞানের কল্যাণে দুনিয়া এখন হাতের মুঠোয়। সব কাজই অতি সহজ। বর্তমান যুগে কেউ ইচ্ছা করলে ইন্টারনেটের মাধ্যমে কোরআন-হাদিসের আলোচনা দেখতে ও শুনতে পারবে, ইচ্ছা করলে অশ্লীল মুভি বা দৃশ্য দেখতে পারবে। তাদের কর্মকাণ্ড দুনিয়ার কেউ না দেখলেও এরা আল্লাহতায়ালার দৃষ্টি এড়াতে পারবে না। যারা হৃদয়ে আল্লাহর ভয় (তাকওয়া) লালন করে এবং পরকালের চিন্তা করে তারা এমন অশ্লীল কাজ করতে পারে না। এ বিষয়ে সতর্ক করে আল্লাহ বলেন, হে ঈমানদারগণ! তোমরা আল্লাহকে ভয় কর; এবং প্রত্যেকের উচিত চিন্তা করে দেখা, আগামীকালের জন্য সে কী অগ্রিম পাঠিয়েছে। আর তোমরা আল্লাহকে ভয় কর। আর তোমরা যা কর নিশ্চয় আল্লাহ সে বিষয়ে জানেন। (সূরা আল হাশর-১৮)। যারা অন্তরে আল্লাহর ভয় পোষণ করে তারাই আল্লাহর কাছে প্রিয় (সূরা আল হুজরাত-১৩)।

প্রযুক্তির এ সময়ে আমাদের উচিত আল্লাহকে গোপনে ও প্রকাশ্যে ভয় করা।

লেখক : শিক্ষার্থী, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×