রজব মাসে আহলে বাইতের প্রেম বর্ণনা

  সৈয়দ হুমায়ূন কবীর ২৯ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হজরত আলীর (রা.) রওজা শরিফ
হজরত আলীর (রা.) রওজা শরিফ। ছবি: সংগৃহীত

আল্লাহ পাকের সৃষ্টি অনন্তকাল ধরে চলে আসছে। অনন্তকাল পর্যন্ত চলবে। কালের পরিক্রমায় রজব মাস এসে গেছে। এই চন্দ্র মাসে পাক-পাঞ্জাতনের মা ফাতেমা ও হজরত আলী জন্মগ্রহণ করেছেন। পাক-পাঞ্জাতনের আর এক মহান সন্তান খাজা বাবা মঈনুদ্দিন চিশতির জন্ম-মৃত্যু এই রজব মাসেই। খাজা বাবা এই ভারত বর্ষে ইসলামের জ্ঞান উন্মোচনকারী। ভারত বর্ষে কম-বেশি এক কোটির মতো অন্য ধর্মের মানুষ খাজা বাবার হাতে বায়াত হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে। রাসূল (স.)-এর বংশধর- আহলাল বাইত-আওলাদে রাসূল খাজা বাবা মঈনুদ্দিন চিশতির কালবে যারা রাসূল দেখেছে এবং কালেমা পড়েছে। এই মুসলমানেরাই উম্মতে মোহাম্মদ।

আহলাল বাইত হজরত আলী ওয়াজহুকে রাসূল (স.) বলেছেন ‘আলী আল্লাহ ও রাসূলকে ভালোবাসে, আল্লাহ ও রাসূল (স.) আলীকে ভালোবাসে’ ‘আমি জ্ঞানের শহর আলী তার দ্বার’ ‘আমি যার মওলা আলী তার মওলা।’ রাসূল (স.) সমগ্র সৃষ্টিকে অযথা আলী ওয়াজহু সম্পর্কে এ মন্তব্য করেননি। মিথ্যাকে বাতিল এবং সত্যকে (হককে) প্রতিষ্ঠিত করার জন্যই হজরত আলী সম্পর্কে রাসূল পাকের এই বাণী। আরবি পড়–য়া ও তাদের সমর্থকেরা আলী ওয়াজহু সম্পর্কে বিরোপ মন্তব্য করেন যা মোটেও ঠিক নয়। মনগড়া মতবাদে শিয়া-সুন্নির ফ্যাকরায় সুন্নি আলেমরা ও তাদের সমর্থকেরা হজরত আলীসহ আহলাল বাইত-আওলাদে রাসূলদের এড়িয়ে চলেন। আহলাল বাইত-আওলাদে রাসূলের প্রতি মহব্বতের আনুগত্যশীলতা ছাড়া মুসলমান হওয়া যাবে না যা কোরআনের আয়াত ও আয়াতের শানে নজুল থেকে স্পষ্ট। সূরা- মায়েদার ৫৫ ও ৫৬ নম্বর আয়াত ও শানে নজুল দেয়া হল-

“৫৫। বস্তুত তোমাদের বন্ধু হলেন আল্লাহ ও তাঁর রাসূল, আর মুমিনগণ যারা সালাত কায়েম করে, জাকাত আদায় করে এবং রুকূ’কারী।” “৫৬। আর যারা আল্লাহ, তাঁর রাসূল ও মুমিনগণকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করে (তারা আল্লাহর দল)। নিশ্চয়ই আল্লাহর দলই বিজয়ী হবে।”

যে ব্যক্তি ‘ইউহেব্বুকুম’ থেকে ‘কাফেরিন’ পর্যন্ত আয়াতটি ১০১ বার পাঠ করে যে কোনো মিষ্টি দ্রব্যে ফুঁ দিয়ে যাকে খাওয়াবে সে তার অনুগত বন্ধু হয়ে যাবে। (দুবারুন্নাখীম)

আওলাদে রাসূলগণ মা ফাতেমার সন্তান। মা ফাতেমার সন্তানগণ সমগ্র সৃষ্টিকুল শ্রেষ্ঠ। নবীকন্যা মা ফাতেমার মর্যাদা অসীম। রাসূল কন্যা মা ফাতেমাকে অস্বীকার বা অবজ্ঞা করে যারা রাসূল (স.)কে নির্বংশ বলেছে/এখনও বলছে/ভবিষ্যতে বলবে তারা রাসূলের শত্রু এবং হাজার হাজার সন্তান থাকলেও তারা নির্বংশ/সূরা মাউনের শেষ আয়াতে বলা হয়েছে, এ সব ‘আপনার (রাসূলের) শত্রুরাই নির্বংশ।’ এই বেলায়েতি জামানায় যারা মা ফাতেমার সন্তান আওলাদে রাসূলদেরকে অবজ্ঞা করবে তারাই রাসূলের শত্রু। নবীকন্যা ফাতেমার সন্তান আওলাদে রাসূলদের শত্রু মা ফাতেমার শত্রু রাসূল পাকের শত্রু। রাসূলের জাগতিক ওফাতের পর ১৪০০ বছর ধরে নামাজের দোহাই দিয়ে উম্মতে মোহাম্মদকে আওলাদে রাসূল বিরোধীচক্র হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা চলছে। নামাজে দরূদে ইব্রাহীমে স্পষ্ট বুঝা যাচ্ছে নবী বংশ- আওলাদে রাসূলদের প্রতি আনুগত্যশীল থাকতে হবে। ধ্বংস হবে তারা যারা আওলাদে রাসূলের প্রতি আনুগতশীল নয়। আরবি পড়–য়ারা কোরআনের যে সব আয়াতে নবী বংশ- আওলাদে রাসূলদের মর্যাদার উল্লেখ আছে সে সব আয়াত এরিয়ে যান। এরা কখনও উম্মতে মোহাম্মদী নয়। মহাসম্মানিত রাসূল (স.)-এর বাণী ‘ফাতেমা আমার দেহেরই একটি টুকরা। যে তাকে নিন্দা করবে, সে নিশ্চয়ই আমাকে নিন্দা করবে। সে জিনিসই আমাকে কষ্ট দেয়, যা তাকে কষ্ট দেয়।’ এই হাদীসে নবীকন্যা ফাতেমার মর্যাদা-সম্মান-ভালোবাসা উম্মতে মোহাম্মদীর জন্য অপরিহার্য করা হয়েছে। মেশকাত শরিফের হাদীসে বলা হয়েছে, ৪৩৬৭। হজরত আয়েশা (রা.) বলেন, আচার-আচরণে, চাল-চলনে এবং মহৎ চরিত্রে আলাপ-আলোচনায় ও কথাবার্তায় ফাতেমা (রা.) অপেক্ষা অন্য কউকেও আমি রাসূল (স.)-এর সঙ্গে অধিক সাদৃশ্যপূর্ণ দেখতে পাইনি। ফাতেমা যখনই তার কাছে আসতেন তখন তিনি দাঁড়িয়ে তাঁর হাত ধরে চুম্বন করতেন এবং নিজের আসনে বসাতেন। আর যখনই রাসূল (স.) তাঁর কাছে যেতেন তখন তিনিও তাঁর জন্য দাঁড়িয়ে তার হাত ধরে চুম্বন করতেন এবং তাঁকে নিজের আসনে বসাতেন।

নূরনবী দাঁড়িয়ে আপন আসনে মা ফাতেমাকে বসাতেন। এই মহাসম্মান একমাত্র মা ফাতেমার জন্য নির্ধারিত ছিল। উম্মতে মোহাম্মদীর জন্য মা ফাতেমার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা রাসূল পাকের প্রতি সম্মান প্রদর্শনেরই শামিল।

লেখক : প্রাবন্ধিক, টোপেরবাড়ী দরবার শরীফ, ধামরাই, ঢাকা

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×