বালা-মুসিবত নিজেই ডেকে আনে মানুষ

  মাহমুদ আহমদ ১২ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কেউ আজ এ কথা বলতে পারি না যে, আমি নিরাপদ। আমার অন্যায় কৃতকর্মের মাত্রা আজ এতটাই ছাড়িয়েছে যে, পুরো দেহ যেন পাপে ভরপুর। আমি ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকরি যাই করছি না কেন, সবকিছুতেই যেন আমি অসৎকেই প্রাধান্য দিচ্ছি। এমনকি মুখে আমি যা বলছি তা-ও মিথ্যা বলছি; আল্লাহর ভয়ে দুই রাকাত যে নামাজ আদায় করছি সেখানেও দুনিয়ার চিন্তায় মগ্ন থাকছি। তাই একের পর এক আজাবের মুখোমুখি হচ্ছি। এর মূল কারণ হচ্ছে- আমার কৃতকর্মই এসবকে আহ্বান জানাচ্ছে। যেভাবে পবিত্র কোরআনে আল্লাহপাক ইরশাদ করেছেন- ‘মানুষের কৃতকর্মের দরুন স্থলে ও জলে বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে। এর পরিণামে তিনি কর্মের শাস্তির স্বাদ তাদের ভোগ করাবেন, যাতে তারা আল্লাহর দিকে ফিরে আসে’ (সূরা আর রুম : ৪১)। যেহেতু আমাদের পাপ সর্বত্র ছেয়ে গেছে, তাই বিভিন্ন প্রাকৃতিক আজাব আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে সতর্ক সংকেত। আল্লাহ আমাদের সতর্ক করছেন, তোমরা সহজ-সরল পথ ধর। তুমি ব্যক্তি জীবনে যে কাজই কর না কেন, তা যেন হয় সৎ। বিষয়টিকে এভাবেও বলা যায়, সমাজ ও দেশের বেশিরভাগ মানুষ যখন পাপ, ব্যভিচার, অন্যায় এবং নিজ প্রভুকে ভুলতে বসে তখনই আল্লাহতায়ালা তার পক্ষ থেকে শাস্তি ঢেলে দেন। পবিত্র কোরআনে আল্লাহপাক বলেন, ‘আর তোমাদের কৃতকর্মের কারণই তোমাদের ওপর বিপদ নেমে আসে। অথচ তিনি অনেক কিছুই উপেক্ষা করে থাকেন’ (সূরা আশ শুরা : ৩০)। আবার আল্লাহপাক ইরশাদ করেছেন- ‘এমন কোনো জনপদ নেই যা আমি কেয়ামতের আগে ধ্বংস না করব, অথবা অতি কঠোর আজাব দেব’ (সূরা বনি ইসরাইল : ৫৮)। আল্লাহতায়ালার এসব ভবিষ্যদ্বাণী আজ আমরা অক্ষরে অক্ষরে পূর্ণ হতে দেখছি। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যেসব আজাব আমরা প্রত্যক্ষ করছি, তা মহাধ্বংসের পূর্বলক্ষণ হয়ে প্রকাশিত হচ্ছে। আর এসব পবিত্র কোরআন তথা ইসলামের সত্যতার জ্বলন্ত নিদর্শন বহন করছে। আল্লাহতায়ালা পরম করুণাময়, তিনি কোনো জাতিকে সাবধান না করে কখনও বালা-মুসিবত দেন না। যেভাবে পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছে, ‘আমি সতর্ক করার জন্য রাসূল প্রেরণ না করে কখনও আজাব দিই না (সূরা বনি ইসরাইল : ১৫)। তারপর আবার উল্লেখ রয়েছে- ‘নূহের পর আমি কত প্রজন্মকেই ধ্বংস করেছি। আর তোমার প্রভু প্রতিপালক তার বান্দাদের পাপের খবরাখবর রাখার ক্ষেত্রে এবং পর্যবেক্ষণের ব্যাপারে যথেষ্ট’ (সূরা বনি ইসরাইল : ১৭)।

আজাবের এমন একটি দিক নেই, যেদিক দিয়ে আজ পৃথিবী আক্রান্ত হয়নি। পৃথিবীর এমন কোনো দেশ বা এমন কোনো জাতি নেই যার ওপর আজাব না এসেছে, সে যত বড় শক্তিধর রাষ্ট্রই হোক না কেন। খোদার পক্ষ থেকে শাস্তিস্বরূপ যখন কোনো আজাব আসে তখন তা থেকে রক্ষা পাওয়ার কোনো রাস্তা থাকে না। যেভাবে কোরআনে উল্লেখ রয়েছে- ‘তুমি বল, আল্লাহর হাত থেকে কে তোমাদের রক্ষা করতে পারে যদি তিনি তোমাদের কোনো শাস্তি দিতে চান? অথবা তিনি যদি তোমাদের প্রতি কৃপা করতে চান তবে কে এ থেকে তোমাদের বঞ্চিত করতে পারে? আর তারা নিজেদের জন্য আল্লাহ ছাড়া অন্য কোনো অভিভাবক বা কোনো সাহায্যকারীও খুঁজে পাবে না’ (সূরা আহজাব : ১৭)।

আল্লাহতায়ালা পৃথিবীতে কেন আজাব-গজব পাঠান সে সম্পর্কে পবিত্র কোরআনে বর্ণনা করে আমাদের সতর্ক করেছেন; কিন্তু আমরা এ বিষয়ে উদাসীন। দিনের পর দিন আমরা পবিত্র কোরআনের শিক্ষা অমান্য করেই যাচ্ছি। আমাদের একটি বিষয় বোঝা উচিত যে, পবিত্র কোরআনে আল্লাহপাক কেন বারবার আজাবের কথা উল্লেখ করলেন? তিনি যেহেতু রহমানুর রাহিম, তিনি চান না যে, তার বান্দা কোনোভাবে কষ্টে পড়–ক। তাই তিনি বারবার সতর্ক করছেন, তার বান্দারা যেন সুপথে চলে। কিন্তু যখন কোনো জাতি তার নির্দেশাবলি অমান্য করতে করতে সীমা ছাড়িয়ে যায় তখনই তার পক্ষ থেকে কোনো না কোনো শাস্তি নেমে আসে। খোদার বান্দারা আজকে স্রষ্টাকে ভুলে বসেছে। আজ পৃথিবীতে এমন কোনো দেশ নেই যারা বলতে পারবে, আমরা এসব প্রাকৃতিক আজাব থেকে নিরাপদ। যত শক্তিশালী রাষ্ট্রই হোক, কেউ বলতে পারে না, আমাদের দেশ সম্পূর্ণ নিরাপদ। সব ধরনের আজাব থেকে বাঁচার জন্য এখন একটিই মাত্র রাস্তা খোলা আছে আর তাহল আল্লাহতায়ালার প্রকৃত বান্দা হয়ে যাওয়া, আল্লাহর অধিকার এবং বান্দার অধিকার যথাযথ প্রদান করা, নিজকে সংশোধন করা এবং আত্মাকে পবিত্র করা।

সময় থাকতেই আমাদের দোষত্রুটির জন্য খালেস নিয়তে আল্লাহপাকের কাছে তওবা করতে হবে। মোনাজাত করতে হবে, হে আল্লাহ আমাদের আপনার আজাবের সীমানা থেকে দূরে রাখুন।

লেখক : কলাম লেখক

[email protected]

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×