হে মনমুসল্লি ভাই শরিয়তে আছ তরিকতে নাই

  শরীফ উদ্দিন পেশোয়ার ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হে মনমুসল্লি ভাই শরিয়তে আছ তরিকতে নাই

পবিত্র আল কোরআনে আল্লাহতায়ালা বলেন, তোমরাই শ্রেষ্ঠ দল, মানবজাতির কল্যাণের জন্য তোমাদের বানানো হয়েছে। তোমরা সৎ কর্মের আদেশ করো, অসৎকর্মের নিষেধ করো আল্লাহর ওপর বিশ্বাস করো। [সূরা আল-ইমরান ১১০]। তিনি অনত্র বলেন, আমি তো আদম সন্তানদের মর্যাদা দান করেছি। [বনি ইসরাইল]।

উইলিয়াম শেক্সপিয়ার বলেছেন, মানুষকে এক মহান কাজের জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে। সক্রেটিস বলেছেন, মানুষের কাজের লক্ষ্য হল শান্তি এবং এই শান্তিই হল কল্যাণ। প্লেটো বলেছেন, মানুষের পরম আকাক্সিক্ষত ও আরাধ্য বস্তু হল সৌন্দর্যের প্রত্যয়, জনহিতকর কাজের প্রচেষ্টা, সামাজিক কল্যাণ প্রতিষ্ঠা। শেখ সাদী (র.) বলেছেন, প্রকৃত মানুষ কুকুরের উপকার করতেও সংকোচ বোধ করে না।

লালন ফকির বলেছেন, ভবে মানুষ গুরু নিষ্ঠা যার।

কিন্তু কী যে হল, মানুষকে যত মন্দ কর্ম ঘিরে ফেলেছে অক্টোপাসের মতো! বড় বড় হিংস্র প্রাণী থেকে ছোট ছোট প্রাণী আমাদের কাছে হার মানে শয়তানও বোধ করি হার মানতে বাধ্য হচ্ছে। অধর্মকে আজ ধর্ম বানিয়েছে মানুষ। লোককবি শাহ আবদুল করিম বলেন, ‘ইমান ইসলাম দূরে ছাইড়া/ কে খাইবে কারে মাইরা/ যমের হাতে যাই কে মনে বাহিরে চইলা/ কী চমৎকার খেলা আইছে/ বাপে-পুতে লাইগ্যিা রইছে/ শয়তানে ও পেনশন পাইয়া খেমটা তাল বাজায় গো।’

সমাজজুড়ে প্রতারণা, আমানতদারি নষ্ট করার কারিগররা কোচিং খুলে বসেছে। কোচিং ব্যবসা, পাঠদানে ফাঁকির ব্যবসা। জাতিকে যারা সুস্থ করার দায়িত্বে ছিলেন, তারা আজ নিজেরাই ব্যাধিগ্রস্ত। ব্যবসায়ীরা দেশবাসীকে খাওয়াচ্ছেন বিষ! খাস জমি জবরদখল করে নারী হরণ করে নদী, খাল, বিল দখল করে ভোগে মজে আছে মানুষ। বলতে পারেন কেন আমরা নামাজ পড়ি? কেন আমরা হজ করি? আমরা মনে করি নামাজ এবং হজব্রতে আমাদের গুনাহ মাফ হয়ে যাবে।

তাই নয় কি? মানুষ আমাকে হাজীসাব বলুক। আলহাজ লিখলে নামের শোভা বৃদ্ধি পায়? সকালে বিকালে জামায়াতে হাজীর হয় প্রথম কাতারে। পেছনের মুসল্লিদের ঠেলে ডিঙিয়ে। ইমাম সাহেবের কাছাকাছি দাঁড়ায়।

যারা সবচেয়ে বেশি দুর্নীতি করেন অর্থাৎ অসাধু ব্যক্তিরা দেখা যায় আবার নামাজও পড়েন বেশি, আবার হজব্রতও পালন করেন! এ কেমন ধর্ম কর্ম? নামাজ ফেরত মুসল্লি প্রতিবেশীর জমির আইল ভাঙেন অনায়াসে। কত কিছুই না দেখি। অসহ্য হয়ে বলি- চোখ আর দেখ না/ কানকে বলি হে কান আর শুনো না/ অনেক দেখেছ/ অনেক শুনেছ। এবার বধির হও। আজীবন অন্ধ হও। চারপাশে দেখি মানুষ মারার কত কৌশল!

জগৎজুড়ে এমন লোক খুঁজছি যার সংস্পর্শে গেলে মানুষ হব। হয়তো ঠিকমতো সন্ধান করতে পারছি না। কেন আমরা নামাজ পড়ে হজ করেও শ্রেষ্ঠ জীব হতে পারছি না? কেন পশুর চেয়ে অধম হয়ে যাচ্ছি? শাহ আবদুল করিম বলেন, মনমুসল্লি ভাই/ শরিয়তে আছ তুমি/ তরিকতে নাই/ তরিকতে নাই তুমি/ হকিকতে নাই/হকিকতে হক বিচারে মন পবিত্র হলে পরে/ দেখতে পাবে আপন ঘরে আল্লাহ আলেক সাই।

তিনি আরও বলেন, ভব সাগরের নাইয়া/ মিছা গৌরব করবে পরার ধন পাইয়া। আল্লাহ বলেন, যারা বিশ্বাস করে এবং সৎ কর্ম করে তারাই সৃষ্টির সেরা। ইমাম গাজ্জালীর (র.) মতে মানুষের স্বভাব থেকে ফেরেশতার স্বভাবে উন্নীত করার নাম হিকমত। এবং হিকমতই হতে হবে মানুষের সাধনার কৌশল। শেখ সাদী (র.) বলেন, তোরা তা দেহান বাশদ আজ হেরচেবাজ/ নাইয়ায়াদ বগোসে দিল আজ গায়রে রাজ।

অর্থাৎ যতদিন পর্যন্ত তোমার লোভলালসার মুখ খোলা থাকবে, ততদিন পর্যন্ত আল্লাহর পক্ষ থেকে তোমার আত্মায় কোনো ভেদ কথা সৃষ্টি হবে না। তিনি আরও বলেন, তুমি যদি মহৎ ব্যক্তি হতে চাও তবে মহত্বের সেবা কর।

ক্ষতি করা, সৃষ্টিকে অবহেলা করা, সৃষ্ট জীবের সম্পদ হরণ করা কোনো কিতাবে নেই। আল্লাহতায়ালা এ ধরনের অপরাধ কখনও ক্ষমা করবেন না। নামাজ বা হজ পালন করেও এসব মোছা যাবে না। পূর্ণ ইসলামে আত্মসমর্পণ করে পূর্ণাঙ্গ মুসলমান হলেই সুখী হয়ে যাবে। আল্লাহ আমাদের মুসলমান বানান।

লেখক : প্রাবন্ধিক

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×