ফেসবুক নয় : কোরআন

  মোহাম্মদ রুহুল আমিন খান ২৪ মে ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আল্লাহ বলেন, এটা কোরআন এমন এক কিতাব যার মধ্যে কোনো সন্দেহ নেই। আর এটি হচ্ছে মুত্তাকিদের জন্য পথপ্রদর্শক। (সূরা বাকারা-২)

কোরআন অধ্যয়নের মাধ্যমে আল্লাহর কথা বারবার স্মরণ হয়। জানা যায়, পাপের প্রতিফল জাহান্নামের ভয়াবহ শাস্তির কথা। পাওয়া যায় সৎকাজের প্রতিফলন, আরামদায়ক ও সুখকর জান্নাতের বর্ণনা। আর কোরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে মুমিনদের ঈমান বাড়ে। এভাবে মুমিনের তাকওয়া অর্জন হয়। আল্লাহ বলেন, প্রকৃত মুমিন তারাই আল্লাহর স্মরণে যাদের হৃদয় প্রকম্পিত হয় এবং তাদের সামনে আল্লাহর আয়াত পাঠ করা হলে তাদের ঈমান বেড়ে যায়। (সূরা আনফাল : ২)।

সুতরাং তাকওয়া অর্জনে কোরআন অধ্যয়ন ও তেলাওয়াতের কোনো বিকল্প নেই। তাছাড়া কোরআন তেলাওয়াত জানা ছাড়া নামাজ আদায় করাও সম্ভব নয়।

আমরা অনেকেই বটতলার উপন্যাস, সিনেমা-নাটক ও ফেসবুকে সব সময় মজে থাকি। কিন্তু সমগ্র মানবজাতির পথ নির্দেশিকা কোরআন অধ্যয়নের সময় পাই না। সিনেমা, নাটক, বটতলার উপন্যাস ও ফেসবুকের মাধ্যমে সাময়িক আনন্দ পাওয়া যায়; কিন্তু পাওয়া যায় না সরল সঠিক পথের সন্ধান। বরং এমন অহেতুক কাজে মগ্ন থেকে অনেকে নিজের জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য থেকে বিচ্যুত হয়ে যায়। আমাদের উচিত এই রমজানে কোরআন অধ্যয়নে সময় দেয়া। কেননা সরল-সঠিক পথের সন্ধান দিতে পারে একমাত্র কোরআন। আল্লাহ বলেন, নিশ্চয়ই এই কোরআন এমন একটি পথ দেখায় যা সবচেয়ে সরল ও মজবুত এবং যে মুমিনরা নেক আমল করে তাদের মহাপুরস্কারের সুসংবাদ দেয়। (সূরা বনি ইসরাঈল-৯)

আমরা যারা কোরআন অধ্যয়নে তেমন সময় দিতে পারি না, তাদের উচিত রমজানে কোরআন অধ্যয়নের জন্য কিছু সময় নির্ধারণ করে রাখা।

লেখক : শিক্ষার্থী, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×