কী শেখাল রমজান

রমজান মাস শেষ হওয়া মানেই ইবাদত শেষ হওয়া নয়। খোদা পাওয়ার এই মাসে জীবনকে কতটুকু পরিবর্তন করেছি। রমজান থেকে কী ফলফল অর্জন করেছি। কীভাবে কাটাব রমজান পরবর্তী জীবন। বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থী দিয়েছেন তাদের মতামত। লিখেছেন-

  মোহাম্মদ তালহা তারীফ ১৪ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মারুফ রুসাফী

রাউজন স্টেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, রাশিয়া।

প্রশ্ন : রমজান কী শেখাল

উত্তর : প্রতিটি অঙ্গ-প্রতঙ্গের সংযম রয়েছে রমজানে। সেই রমজান আমাদের একত্রে ইফতার করা, তারাবির সালাত আদায় করা, সামাজিক বন্ধন তৈরির শিক্ষা দিয়েছে। দান-সদকার মাধ্যমে সমাজের দুর্দশাগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর। শিক্ষা দিয়েছে। বিশ্বের নানা প্রান্তে বসবাসকারী মুমিন বান্দা একই সুতায় মালা গেঁথেছে। বদরযুদ্ধ বিজয় রমজান আমাদের উপহার দিয়েছে। ইমানি শক্তি আমলে বরকতপ্রাপ্তির নিশ্চয়তা দিয়েছে। নিজকে আল্লাহর প্রতি সমর্পণ হওয়ার শিক্ষা পেয়েছি।

ওয়ালী খান রাজু

শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রশ্ন : রমজান পেয়েও স্বভাব পরিবর্তন হয় না কেন?

উত্তর : এর অন্যতম কারণ হল, ইবাদত ও আমলে একনিষ্ঠ না হওয়া। আমরা অনেকেই লোকলজ্জার ভয়ে রোজা রাখি। সমাজে নিজের অবস্থান, মসজিদ মাদ্রাসার দেয়া মূল্যবান হাজী পদবিটাকে ধরে রাখতে। চেষ্টা করি। অন্যে কী বলে, আল্লাহর ভয়কে বাদ দিয়ে অন্যের ভয়ে সালাতসহ তারাবি আদায় করি। এক মাস ইবাদত বন্দেগি করি লোক দেখানো। বাকি সময়ে ইবাদতে ন্যূনতম আগ্রহ নেই আমাদের। যার ফলে রমজানের শিক্ষা স্থায়ী না। ভূরিভোজ, সেহরি পার্টি, ইফতার মাহফিলে হইহুল্লোড়ে ব্যস্ত থেকে রমজান মাস পার করি। অবৈধ পন্থায় অর্থ অর্জন বন্ধ থাকে না কখনও। অবৈধ পন্থায় অর্জিত অর্থ দিয়ে সেহরি, ইফতারির খাবার খেলে রোজা কি পূর্ণ হওয়ার আশা করা যায়। আমরা আজ না খেয়ে শুধু পেটের রোজা রাখছি। বরং রমজানের মূল শিক্ষা মুত্তাকি হওয়া থেকে দূরে থাকছি। রমজানকে আমরা শপিং করা এবং ব্যবসা-বাণিজ্যের মাস মনে করি। দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধিতে আনন্দ পাই। এরপর খাদ্যে ভেজাল দিই। সহমর্মিতার যে শিক্ষা রমজান প্রদান করে তার ছিটেফোঁটাও আমাদের জীবনে নেই। ফলাফল দাঁড়ায়, রমজান চলে গেলে আমরা ফিরে যাই অতীত অবস্থায়। পরিবর্তনের মহাসুযোগ থেকে যুগ যুগ বঞ্চিত থাকি আমরা।

সাইফুন্নেছা মালিহা

শিক্ষার্থী, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

প্রশ্ন : রমজানের পরে কীভাবে জীবন কাটাবেন?

উত্তর : পাপাচার, হিংসা, গিবত, চোখলখোরি থেকে নিজেকে মুক্ত রাখব। রমজানে যেমন পড়েছি এখনও কোরআন অর্থ বুজে পড়ব। গরিব দুঃখী অসহায়দের পাশে দাঁড়াব। সত্যি কথা যে, রমজান শেষে আমরা কেউ ধর্মকর্ম তেমন করি না। আগামী রমজান আসা পর্যন্ত রুটিন করে চলব। রুটিন অনুযায়ী ইবাদতে মগ্ন হব। রমজান শেষ হয়েছে, শুদ্ধ হওয়া শেষ হয়নি। হালাল অর্থ অর্জন করব। শাওয়াল মাসে ছয়টি রোজা রাখার চেষ্টা করব। আল্লাহর ভয়ে জুলুম করা থেকে বেঁচে থাকব। সহমর্মিতার মাসে যে শিক্ষা পেয়েছি, জীবনের প্রতিটি মুহূর্তে তা বাস্তবায়ন করব। রমজান থেকে পাওয়া শিক্ষা আজীবন ধরে রাখব।

লেখক : শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×